Admirers of Prof.Kuntal Chattopadhyay

This page is to celebrate the teacher extraordinaire Prof.Kuntal Chattopadhyay, a true legend

Operating as usual

Photos from Admirers of Prof.Kuntal Chattopadhyay's post 20/04/2024

এবং মুশায়েরার রিলকে সংখ্যায় কুন্তল চট্টোপাধ্যায়ের নতুন প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে।

Photos from Admirers of Prof.Kuntal Chattopadhyay's post 04/12/2023

মান্দাসের নতুন সংখ্যায় কুন্তল চট্টোপাধ্যায়ের একটি কবিতা বিষয়ক গদ্য রয়েছে।

12/10/2023

Happy birthday, dearest teacher! Keep illuminating! Keep inspiring!

Many many happy returns of the day, Sir🙏

14/09/2023

অনেক দিন পরে

কুন্তল চট্টোপাধ্যায়

বলেছিলাম, যাবজ্জীবন দণ্ড আছে,
বলেছিলাম তোমার কাছে।
অপরাধের অনেক দফা পারস্পরিক
অনন্যোপায়, বলেছিলাম তোমার কাছে।

যাবার সময় সমস্ত মুখ আমার চেনা,
তবু দেখো কেউ নেবে না,
অনন্যোপায়, বলেছিলাম তোমার কাছে।
অশ্রুনদীর সুদূর পারে ঐ পথে কি
অনন্যোপায়, তুমি আমার সঙ্গে যাবে?

ভালোবাসি জীবন আমি আমার মতন,
সেই জীবনের বাঘের পিঠে, কী মহারণ,
এসবকিছুর কারণ ছিলো? কারণ আছে?
একটা না হয় সত্যি বলো, বারণ আছে?

Photos from Admirers of Prof.Kuntal Chattopadhyay's post 03/09/2023

কুন্তল চট্টোপাধ্যায়ের প্রবন্ধ রয়েছে পুনশ্চ পত্রিকার সাম্প্রতিকতম পবিত্র সরকার সংখ্যায়।

17/06/2023

দেশের বইয়ের জানালায় এবং মুশায়েরার ইউলিসিস সংখ্যা। সম্পাদক কুন্তল চট্টোপাধ্যায়।

01/06/2023

এবং মুশায়েরার নতুন সংখ্যা। অতিথি সম্পাদক হিসেবে এই সংখ্যা সম্পাদনা করেছেন কুন্তল চট্টোপাধ্যায়।

ছবি: প্রীতম বসাক পুনশ্চ

30/03/2023

'আধুনিকতাবাদ থেকে উত্তর-আধুনিকতার তত্ত্বপ্রস্থানে', বক্তা - কুন্তল চট্টোপাধ্যায়, অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর , ইংরেজি বিভাগ , নরসিংহ দত্ত কলেজ , হাওড়া।
Sunday, April 2 7:00pm
Google Meet joining info
Video call link: https://meet.google.com/oid-hyfs-xsk

Photos from Admirers of Prof.Kuntal Chattopadhyay's post 09/02/2023

গতকাল বইমেলার অন্যতম সংগ্রহ কবি- লেখক বাবলু গিরি সম্পাদিত 'শব্দের বাগান' পত্রিকার এই সংখ্যা। প্রচ্ছদ, কবিতার সম্ভার ও কবিতা- বিষয়ক গদ্যের সমাহারে অত্যন্ত রুচিশীল আয়োজন। বাল্যবন্ধু বাবলুকে অকৃত্রিম অভিনন্দন।

কুন্তল চট্টোপাধ্যায়

06/02/2023

কবি কুন্তল চট্টোপাধ্যায়ের কবিতা।// নিবিড়পাঠ #পারমিতা।

●●●●●●●●●●●●●●●●●

প্যারোলে ছাড়া পেলে ঠোঁট
ক্যারলে নেচে ওঠে পা,
আয় রে বুলবুলি, খা।

ভীষণ বিকেলে এই নদী,
কিছুটা প্রশ্রয় পাস যদি,
আয় রে বুলবুলি, গা।

নয় তো উড়ে গেলে তুই
আমি তো গান ভুলবই,
থাক না বুলবুলি, থাক।

নদীটা ভরে যাক জলে,
প্যারোল-মুক্ত কোলাহলে,
ক্যারলে জোনাকির ঝাঁক।।

■ "অসাধারণ কবিতাটি। লোক অলোকের সৌরভে টানটান।
অসামান্য অধিবাচনিক নির্বাচনে আস্বাদ‍্য হয়ে উঠেছে। প‍্যারোলে আর ক‍্যারলে শব্দের মিলে উঠে এসেছে বন্ধন মুক্তির আকুল আবেগ।
"প্যারোলে ছাড়া পেলে "

কোনো ভাবে বন্দী জীবন থেকে সাময়িক মুক্তি পাওয়ার আইনী শব্দ "প‍্যারোল".....

কবি বলেছেন কোনও বন্দী ঠোঁট, মুক্ত এখন প‍্যারোলে।

সময় সীমায়িত ও নির্ধারিত। ঠোঁট এখানে দুটি প্রতীক বহন করছে―১) চুম্বন আশ্লেষ
২) অন্তর্জীবনের দাসখতের রুদ্ধ পরোয়ানা।
ঐ অবস্থা থেকে হঠাৎ-মুক্তির আনন্দেই যেন
"ক্যারলে নেচে ওঠে পা, "
ক‍্যারল সঙ্গীতে খৃষ্টিয় নাচ শুরু হয় অন্তর জগতে । মোক্ষ-নন্দিত নৃত‍্যপর কবির অন্তর তখন ডাকে বুলবুলিদের――
"আয় রে বুলবুলি, খা।"

কি খাবে বুলবুলি ???
মুক্ত ঠোঁট জুড়ে তার কিসের আহ্বান ????

অমোঘ নিয়মেই, জঙ্গম সময়ের অনিবার্য টানে জীবনেও নেমে আসে ভীষণ বিকেল। প্রৌঢ়ত্বের শেষ প্রহরে বয়ে চলে " এই নদী, "---এই কি জীবন নদী নয়? এমন বিকেল-পেরোনো সন্ধ্যা ছুঁই ছুঁই নদীর পূর্ণতায়
কিছুটা প্রশ্রয় পায় যদি চন্দ্রাহত কবিজীবন তাতেই জমে যাক না মৌতাত।
আর সে যজ্ঞে হোতা হতে ডাক আসে হৃদকন্দর থেকে――
"আয় রে বুলবুলি, গা। "----নাচে গানে স্থলে জলে নদীতে জীবনে সঞ্চিত গভীর উত্তাপে তখন ডানা ঝাপটায় অন‍্য আর এক উড়ান। বিচ্ছিন্নতার ভয় জেগে থাকে তবুও দুটো ঠোঁটের মিলনকামনায়। তখন আর্তমন নিঃশব্দে বলে―
"নয় তো উড়ে গেলে তুই
আমি তো গান ভুলবই,
থাক না বুলবুলি, থাক।".... স্থায়ি সুখের আকুল করা তিয়াসায় লেখা হয় প্রচ্ছন্ন কান্না আর বেপথু আবেদন― "থাক না বুলবুলি ,থাক।"
অতুল স্বপ্ন বৈভবে জেগে থাকে চাওয়া শুধু―
"নদীটা ভরে যাক জলে,
প্যারোল-মুক্ত কোলাহলে,
ক্যারলে জোনাকির ঝাঁক।"......ভীষণ বিকেলের একা একা ভরা নদী মুক্তি খোঁজে স্রোতজলে ।মনের গভীরে, গোপন কন্দরে ক‍্যারলে টিপটিপ আলো জ্বেলে মৃদুল ছন্দে দোলে একঝাঁক জোনাকির তনু। আবেশেই তনুদোলে!

সেও তো সুন্দর বুলবুলি আসে যদি ত্বরিত ঠোঁট মেলে আজও এই ভীষণ বিকেলে....!?"

পারমিতা ভৌমিক

06/02/2023

"কবি কুন্তল চট্টোপাধ্যায়ের কবিতা ও কবি উমা বন্দোপাধ্যায়ের পাঠমূল‍্যায়ণ‌।
●●●●●●●●●●●●●●●●●
প্যারোলে ছাড়া পেলে ঠোঁট
ক্যারলে নেচে ওঠে পা,
আয় রে বুলবুলি, খা।

ভীষণ বিকেলে এই নদী,
কিছুটা প্রশ্রয় পাস যদি,
আয় রে বুলবুলি, গা।

নয় তো উড়ে গেলে তুই
আমি তো গান ভুলবই,
থাক না বুলবুলি, থাক।

নদীটা ভরে যাক জলে,
প্যারোল-মুক্ত কোলাহলে,
ক্যারলে জোনাকির ঝাঁক।
●●●●●●●●●●●●●●●●
বন্ধনমুক্তির আনন্দগান ছেয়ে যায় নদীতীরে~ গানপাখি ডানায় নিয়ে ভালোবাসার আখরগুলি বসে যদি উন্মুখ শেষবিকেলের ছায়ার কাছে ~ জোয়ার আসে নদীজলে ~ রচিত হয় সুন্দরের সরগম~ মুক্ত চরাচরে জোনাকির নিজস্ব আলোয় জেগে থাকে গোধূলি। অনবদ্য কবিতাটি । শ্রদ্ধা কবিকে।"

পারমিতা ভৌমিক

06/02/2023

খেলনা গাড়িরা শুধু হর্ন দেয়
ছোটবেলা জুড়ে,
আমি এত কুঁড়ে,
কখনও দেখিনি রাতভোর।
আমার খেলনা গাড়ি
সব নিয়ে চলে গেছে
সময়ের অনুগত চোর ।

কুন্তল চট্টোপাধ্যায়

Photos from Admirers of Prof.Kuntal Chattopadhyay's post 01/02/2023

"সোম পাবলিশিং থেকে এ বছরের কলকাতা বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে 'কবিতার উড়াল'। মূল বাংলা কবিতা ও তার পাশাপাশি ইংরেজি ভাষান্তরের এক সংকলন। অনুজপ্রতিম ও নির্ভেজাল কবিতাপ্রেমী আশিক ইকবাল মণ্ডল এই প্রশংসার্হ উদ্যোগের কবি ও কারিগর। আমার দুটি রচনা এখানে গৃহীত হয়েছে। কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন।"

কুন্তল চট্টোপাধ্যায়

'আধুনিকতাবাদ থেকে উত্তর- আধুনিকতার তত্ত্বপ্রস্থানে' # কুন্তল চট্টোপাধ্যায় #সাহিত্য_বাসর (সিরিজ 09/01/2023

https://m.youtube.com/watch?v=B4glA33cDuA&feature=youtu.be

'আধুনিকতাবাদ থেকে উত্তর- আধুনিকতার তত্ত্বপ্রস্থানে' # কুন্তল চট্টোপাধ্যায় #সাহিত্য_বাসর (সিরিজ #সাহিত্য_বাসর_আলোচনাসভা #বিষয় - 'আধুনিকতাবাদ থেকে উত্তর- আধুনিকতার তত্ত্বপ্রস্থানে' #বক্তা- কুন্তল চট্টোপাধ্যায় (অ্....

09/01/2023

কুন্তল চট্টোপাধ্যায়ের কবিতা
"অভ্যাসবশত"

নিবিড়পাঠ করলেন পারমিতা ভৌমিকঃ

যা কিছু সযত্ন লিপি

মুছে দিলে আবেগ ঝঞ্ঝায়,

আমি শুধু অভ্যাসবশত

তটরেখা স্পর্শ করে থাকি ;

তরঙ্গচুম্বন ভুলে ফিরে যাই,

পুনরায় আঁকি
; এবং অপেক্ষা করি

তুমি ফের মুছে দেবে বলে।

💐অসাধারণ কাব‍্যিক অধিবাচনে কবি কুন্তল তৈরী করে দিলেন কবিতা দেহটিকে।
অধিবাচনিক নির্বাচন ও সত‍্যের সঙ্গে তার সম্পৃক্তি পাঠককে বিস্মিত করে।
অভ‍্যাস একটা অদ্ভুত স্বভাবসত‍্য। সত্তার গভীরে মজ্জাগত হয়ে থাকা একটা বিশেষতা। আমরা আপন আপন সহজাত প্রকৃতির কাছে পাই অভ‍্যাসের হলফনামা।।
অভ্যাসবশতই সকলেই কিজ করে চলে। কবিবাঞ্ছিত অনেক।কিছু
যা সযত্ন লিপি হয়ে ছিল গোপনে সেসবও অনেকেই
মুছে দেয় আবেগ ঝঞ্ঝায়,অতিরেকে‌।
এসব তো সার্বজনীন সত‍্য। এই প্রেক্ষিতে কবি নিজেকে নির্ণীত করেন আর ভাবেন----
"আমি শুধু অভ্যাসবশত
তটরেখা স্পর্শ করে থাকি ;"--- অথচ অন‍্য কেউ––যা কিছু সযত্ন লিপি সব মুছে দিয়েছে আবেগ ঝঞ্ঝায়। তটরেখা কি ঝঞ্ঝা আটকায়? আবেগ বাঁধ ভাঙে। উদ্বেল হয়। তখন কবির কাছে অভ‍্যাসই শেষসত‍্য। তটরেখা স্পর্শ করে থাকাই একমাত্র ভবিষ্যৎ। শান্তি পথের দিকে‌।
যে মদির আবেশ ভরা তরঙ্গ স্পর্শ চুম্বনের মতো স্বাদু ছিল আজ কবি সে.…."তরঙ্গচুম্বন ভুলে ফিরে যাই,"----কিন্তু পুরোনো অভ‍্যাস কাজ করে।পিছুটানে । তাই কবি---পুনরায় আঁকেন নতুন শপথছবি। যদিও জানেন সেসব অস্থায়ী। তাই কবি বলেন---
"এবং অপেক্ষা করি
তুমি ফের মুছে দেবে বলে।"--- এই তো শুধু যাওয়া আসা। ক্ষণভঙ্গের লীলা। আবহমানের জোয়ার ভাটায় ভেসে চলার অভ‍্যাস। সবকিছুই কেবলমাত্র একটি অভ‍্যাস। ভাঙনের কিম্বা গড়নের অস্থায়ী বৃত্ত।

13/11/2022

পারমিতা ভৌমিকের নিবিড় পাঠঃ

অশ্রুপথ চিনে নিয়ে
উঠে যাও আগুনের ব্রিজে,
ছাই মাখো শরীরে তোমার।
আর একবার নেচে ওঠো
নটরাজ, প্রলয়-মুদ্রায়।

©কবি কুন্তল চট্টোপাধ্যায়।
মুগ্ধপাঠ #পারমিতা

■ প্রশ্নোত্তরে আধিবাচনিক হিন্দোল না রচনা করলে কবি কুন্তলের কবিতাফল্গুর উন্মোচন হবেনা।
অধিবাচন গুলো সাজিয়ে নেব----
"চিনে নিয়ে"---কি চিনে নেব?
কবির উত্তর ----
"অশ্রুপথ"-----
আর তার সঙ্গেই রয়েছে পথনির্দেশ ----
"চিনে নিয়ে
উঠে যাও আগুনের ব্রিজে,"
----অশ্রুপথ কি প্রতীকী এক যন্ত্রণা ক্লিষ্ট সময়? সে পথ পরাক্রমায় অশ্রু ঝরাতে হয়?
কোনো অপ্রতিদ্বন্দ্বীকে বাঁধতে চাওয়ার জন‍্য হয়তোবা এ অশ্রুপথ আপনিই তৈরি হয়ে যায় ক্ষুরধার জীবনের যুদ্ধব‍্যঞ্জনায়!!
পৃথিবীর সব দ্বান্দ্বিকতাই অশ্রু পথ চেনায় মঙ্গল নিকেতনে পৌঁছনোর আগে। দ্বন্দ্বই শেষ ও চরম তত্ত্ব।
ক্রমাদ্বন্দ্বের অন্তিমেই লভ‍্য হবে চূড়ান্ত সিঙ্গুলারিটি। উদাসীন সেই শিবচৈতন‍্যই মানব ইতিহাসের একমাত্র সত‍্য। কবি কুন্তল তাই কি আরও একবার নির্দেশিত করলেন অশ্রুপথযাত্রীর অসিতীক্ষ্ণ পথ???------
"ছাই মাখো শরীরে তোমার।"---
সর্বত‍্যাগের ঐশ্বর্যে তৈরি হয় যেন যৌদ্ধিক হাতিয়ার।
কবির লগ্নিত অনুভবে অনুরোধ হয়ে শেষবার ভেসে ওঠে মঙ্গলের ছবি----
"আর একবার নেচে ওঠো
নটরাজ,"
অস্তিত্বের চরম সংকটে এই আত্মলয়েই মানুষ স্বয়ং হয়ে উঠুক শিব। আর প্রয়োজনীয় ভাবে সে বৈনাশিক নৃত‍্য দোলাক "প্রলয়-মুদ্রায়।"
এ ছাড়া নান‍্যপন্থা। কবির অবলোকিতেশ্বর চেতনার মর্মদোল আশিস বয়ে আনুক প্রজাতিবন্ধ‍্যাত্বের শর্মিলা জঠরে।। অবলোকিতেশ্বর

Photos from Admirers of Prof.Kuntal Chattopadhyay's post 04/10/2022

সাম্প্রতিক প্রবন্ধ

Photos from Admirers of Prof.Kuntal Chattopadhyay's post 21/05/2022

কুন্তল চট্টোপাধ্যায়ের প্রবন্ধ রয়েছে এই সংখ্যায়।

Photos from Admirers of Prof.Kuntal Chattopadhyay's post 21/03/2022

কুন্তল চট্টোপাধ্যায় লিখছেনঃ

"ফুলেশ্বর উদ্দীপনের ফ্যাসিবাদ-বিরোধী একাঙ্ক নাটক 'দগ্ধ সময়'। শ্রদ্ধেয় নাট্যরচয়িতা ও পরিচালক অনুপ চক্রবর্তী মহাশয়ের লিখন-নির্দেশনা-অভিনয়ে ঋদ্ধ এক সময়নিষ্ঠ মর্মস্পর্শী প্রযোজনা । উলুবেড়িয়া রবীন্দ্রভবনে এই নাটকের দ্বিতীয় মঞ্চায়নে এলাকার সুধী দর্শকমণ্ডলীতে উপস্থিত থাকার সুযোগ হয়েছিল গতকাল ১৯ মার্চের বিকেলে । মাননীয় অনুপবাবু ও আমার পূর্বতন ছাত্র তথা ফুলেশ্বর উদ্দীপনের অন্যতম সক্রিয় সদস্য রামানুজ চট্টোপাধ্যায়ের আমন্ত্রণে ।
দুটি বিশ্বযুদ্ধের মধ্যবর্তী ইতিহাসের ঘটনাক্রমে ফ্যাসিবাদ ও নাজি নৈরাজ্য তথা ইহুদি-বিদ্বেষী ভয়াবহ হিংসার প্রেক্ষিতে রচিত এই নাটক 'দগ্ধ সময়'। নামটি অবশ্যই এই একাঙ্কের অন্তর্গত বয়ানের মেটাফর । ইতিহাসের এক অমানবিক দহনবেলার ট্র্যাজিক উল্লাসের হাড়-হিম নিষ্ঠুরতার যেসব ছবি উঠে এসেছে এক ঘন্টার এই নাট্যরূপে, 'দগ্ধ সময়' সেই পুড়ে যাওয়া সময়ের যন্ত্রণাকে শির্ষাঙ্কিত করে ।
একাঙ্কের সীমিত পরিসরে নাটকের প্লটে ইতিহাসের পাতা থেকে উঠে আসা ফুয়েরারের জার্মানির জিঙ্গোয়িস্ট জাতিবিদ্বেষের আস্ফালন এবং ইহুদি ও কম্যুনিস্ট নিধনযজ্ঞের মুহূর্তগুলি বড় বিহ্বল করে তোলে এই সময়ের দহনবেলায় পুড়তে থাকা আমাদেরকেও । ফ্যাসিবাদের ভাইরাসের বিপজ্জনক মিউট্যান্টগুলি আমাদের দেশ-কালে চিনে নিতে অসুবিধা হয় না ইহুদিদের জার্মান নাগরিকত্ব হারানো ও ডিটেনশন ক্যাম্পে বন্দী থাকার প্রসঙ্গসূত্রে । মনে পড়ে যায় শেকসপীয়ারের 'হ্যামলেট' নাটকে জনৈক প্রহরীর বলা সেই কথাগুলি,'Something is rotten in the state of Denmark'. হত্যা-হিংসা-লালসা তাড়িত ডেনমার্কে বিকল হয়ে যাওয়া সময়ে ছিলো পচনের কটুগন্ধ । ফুলেশ্বর উদ্দীপনের ফ্যাসিবাদ-বিরোধী 'দগ্ধ সময়'-এর মঞ্চায়নে আমাদের নাকে কি দহনের ঘ্রাণ একটুও এসে লাগলো না?
উপযোগী মঞ্চসজ্জা, আলো, মেকআপ ও কস্টিউম এবং সর্বোপরি গান ও সঙ্গীতানুষঙ্গ এ নাটকের কাহিনি, সংলাপ ও চমৎকার চরিত্রানুগ অভিনয়কে অসম্ভব প্রাণবন্ত করে তুলেছে । হৃদয়হীন নাজি কমাণ্ডার কার্লের ভূমিকায় অনবদ্য অনুপবাবু আমাদের ভীষণভাবে ছুঁয়ে যান নাটকের শেষে প্রাক্তন প্রেমিকা মারিয়ার সঙ্গে গ্যাসচেম্বারের লাইনে দাঁড়িয়ে মনুষ্যত্বের অবিনশ্বরতার উচ্চারণে । অত্যাচারী ও লোভী জার্মান গেস্টাপো আর অত্যাচারিত ইহুদি নারী-পুরুষদের অন্যান্য চরিত্রে চমৎকার অভিনয়ে নাটককে ইতিহাস থেকে সমকালে সার্থকভাবে পৌঁছে দিয়েছেন রামানুজ, হিমাদ্রীবাবু, শ্রেয়সী, সুদেষ্ণা, পলাশ ও অন্যান্য শিল্পীরা । আর অবশ্যই বলতে হবে নাটকের অন্তিম উত্তরণের মুহূর্তে শুভঙ্কর মণ্ডলের গীতি-উদ্দীপনের কথা, 'Bella Chow'..আহা !!
এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার, ফুলেশ্বর উদ্দীপনের সম্মাননা গ্রহণ করার পাশাপাশি আমার আরও এক পরম প্রাপ্তি বেশ কয়েকজন পুরনো ছাত্র-ছাত্রীদের সান্নিধ্য । রামানুজ তো ছিলোই এ আয়োজনের কাণ্ডারী । তারই কাছ থেকে খবর পেয়ে হাজির হয়েছিলো সুদীপ্ত, প্রলয়, ওয়াজির । উত্তরপাড়া থেকে উলুবেড়িয়া এবং গৃহকোণে ফিরিয়ে দেবার দায়িত্ব নিয়েছিলো অদিতি । সব মিলিয়ে প্রায় দু-দশকের স্মৃতির এক উজ্জ্বল উজানী যাত্রা । 'কি ভালোই না লেগেছিল, কেমন করে বলি?' বুদ্ধদেব বসুর 'চিল্কায় সকাল' নয় । এ আমার 'উলুবেড়িয়ায় বিকেল'।"

Photos from Admirers of Prof.Kuntal Chattopadhyay's post 14/12/2021

সৃষ্টির একুশ শতক পত্রিকায় সদ্যপ্রয়াত দীপেন্দু চক্রবর্তীকে নিয়ে কুন্তল চট্টোপাধ্যায়ের স্মৃতিচারণা।

https://www.ekushshatak.com/magazine-dec-2021/

22/11/2021

একটি বিদায়ের কাল্পনিক প্রতিবেদন

কুন্তল চট্টোপাধ্যায়

ছাদে সে প্রত্যহ যেত সূর্যাস্তবেলায়।
যখন টাইমকলে অবসন্ন শালিক চড়াই দিত ডুব
তখন পশ্চিমের আলো তার ভালো লেগেছিলো খুব?
অথবা উত্তরে ফোটা নয়নতারার ফুলগুলি
ভাঙাচোরা আলসের ইতস্তত ঘুলঘুলি থেকে
ডেকে যেত তাকে, একান্ত অভ্যাসের ফাঁকে ফাঁকে?

আলসের ইঁটগুলি সময়ের অযত্ন লালনে
নড়বড়ে দাঁতের মতো ধারণের প্রতিশ্রুতিক্ষীণ,
তবুও তো ফুলগুলি ফুটেছিলো নজিরবিহীন।
সেও ওই আকস্মিক পুষ্পপ্ররোচনা এড়াতে পারে নি
তাই গলিপথ জুড়ে তার বিদায়ের আলোচনা।

23/10/2021

কুন্তল চট্টোপাধ্যায়ের কবিতা
‐‐------------‐----------------------

যদিও যত্নছাপ রেখে গেছো
প্রতিটি অক্ষরে
তবুও কোথাও তুমি থাকো নি কো
পূর্ণ অবয়বী

মধ্যমিল, যতিচিহ্ন, দলবৃত্ত সবই
আঙ্গিকের প্ররোচনা ভুলে
এখন নির্মাণরত
গোপন মানবী

কুন্তল চট্টোপাধ্যায়ের কবিতা

Photos from Admirers of Prof.Kuntal Chattopadhyay's post 22/10/2021

কুন্তল চট্টোপাধ্যায়ের সাম্প্রতিক একটি লেখা।

11/10/2021

কবি কুন্তল চট্টোপাধ্যায়ের কবিতা।।।
💐
এমন নির্ভার এক পদধ্বনি
রেখে গেছো দূরে
কাছের স্তব্ধতা এসে ডেকে যায়
বাউল দুপুরে ।

তোমার সে দূরগামী
ধ্বনিটির কাছে
আমার নিঃশব্দ ঋণ
একান্ত নিভৃতে জেগে আছে ।💐

💐কবি কুন্তলের কবিতা একান্তভাবে মুগ্ধ করে আমাকে। প্রসঙ্গত তাই তাঁর কবিতা পেলে কিছু বলতেও ইচ্ছে করে। অধিবাচনিক সৌন্দর্য যখন পরিণতিতে একটা পর্দাওড়ানো সিদ্ধান্তের ইঙ্গিত দেয় তখন খুব ভালো লাগে পাঠক হিসেবে‌। প্রথম অধিবাচনেই মুগ্ধ হই যখন কবি বলেন,
"এমন নির্ভার এক পদধ্বনি
রেখে গেছো দূরে"-----স্পষ্টতঃ বুঝি, এই অধিবাচনটি সংলাপধর্মী।অর্থাৎ একটা অলিখিত দ‍্যোতক দ‍্যোতিতের মুগ্ধ সম্পর্কের নিরবয়বতা রয়ে গেছে লুকানো।তার গতি mundane থেকে Divine হতে পারে। সে যাইই হোক তাতে কবিতার উড়ান বিঘ্নিত হয় না।কুন্তলের এই কবিতাটি মূলতঃ একটি সংগঠন, অতয়েব এর মধ‍্যস্থলে রয়ে গেছে কবির শৈলীবৈশিষ্ট।স্বাভাবিক ভাবেই এখানে কবিতার অবয়ব বিশ্লেষণই একমাত্র পথ বলে মনে হয় না । কবিকে সামনে রেখে এগুতে এগুতেই ছুঁতে হবে তাঁর কবিতাকে ,কেননা কবিশিল্পী কুন্তলের সৃজনশীল ব‍্যক্তিত্বের জগৎ তাঁর ব‍্যক্তিগত জীবন থেকে স্বতন্ত্র আবার এক-ও।কাজেই তাঁর কবিতাকে দেখতে হলে একটি বিশেষ দৃষ্টিভঙ্গী চাই।
"এমন নির্ভার এক পদধ্বনি
রেখে গেছো দূরে"-----
এখানে ,এই অধিবাচনে, বক্তা উদ্দিষ্ট কারো প্রতি কথাটি বলছেন। যদি ব‍্যক্তিগত অনুভব থেকে পরিমাপ করি তবে তা হবে সর্বৈবভাবে রোমান্টিক সমালোচনা।কিন্তু আমি তা করতে চাইছিনা। ভাব আর প্রকরণেই ধরা দিক কবিতা, এটাই হবে কবিতাটির সঠিক স্থান নির্ণয়।কবির ব‍্যক্তিগত অনুভূতি নিয়ে ভাবলে মনে হয় কেউ নির্ভার এক পদধ্বনি রেখে গেছে যা এখন, এইমুহূর্তে কবিমানস থেকে দূরে, অথচ যার অস্তিত্ব কেবল কবির মনোভূমি জুড়েই আছে। প্রসঙ্গত এসে পড়া
"বাউল দুপুর" ---এই প্রতিবেশ-শববন্ধটি সহসা সচকিত করে দেয় পাঠকহৃদয়। যে দুপুর নিঃসঙ্গতার সে দুপুর বাউলের কিম্বা বাউল দুপুর---এই উপমাটির উপস্থাপনে কবিতার দ‍্যোতক ও দ‍্যোতিতের সূক্ষ্মসংযোজনটি করেছেন কুন্তল এক আশ্চর্য আত্মলীন কুশলতায়।
আমি বলি কি, কবির হৃদয়স্পন্দনটি ধরা পড়া চাই আগে। কবি কুন্তলকে এক অর্থে রোমান্টিক বলতে তো পারিই কেননা তাঁর রচিত ডিসকোর্সটি বলছে বক্তা ও শ্রোতার মধ‍্যে একটা মনুষ্যত্বের নিবিড় নৈকট‍্য রয়েছে অথচ একই সঙ্গে রয়েছে কালের নিষ্ঠুর ব‍্যবধান।
সাহিত্য যদি হয় বাচনিক শিল্প তবে তার প্রকৃত অবস্থাটি বোঝার প্রশ্ন অগ্রাধিকার পাবেই-----
দ্বিতীয় অধিবাচনে কবি জানাচ্ছেন,---
"কাছের স্তব্ধতা এসে ডেকে যায়
বাউল দুপুরে ।".... রচনার অন্তরালে সক্রিয় রয়েছে কবির অস্তিত্বময় ব‍্যক্তিজীবন এ কথা অস্বীকার করা যায়না কিছুতেই।
তাই তো কাছে ও দূরের টানাপোড়েনে কবিতার চাদরবোনা চলে।
দূরে রাখা নির্ভার পদধ্বনি আর কাছের স্তব্ধতা এসে ডেকে যাওয়া অলৌকিক একটি বিন্দুতে শ্বাস নেয়।
এইভাবেই তৈরী করে নেন কবি কিম্বা তৈরী হয়ে যায়
স্তব্ধতা ও নির্ভারের অলৌকিক মাখামাখি। কবি কুন্তল তখন ঋতঋদ্ধ ঐকান্তিকতায় জেনে যান----
"তোমার সে দূরগামী
ধ্বনিটির কাছে
আমার নিঃশব্দ ঋণ
একান্ত নিভৃতে জেগে আছে"――আমরা দেখি একটা 'নির্গ্রন্থি'--- বাক‍্যিক পরম্পরায় কবিতাটির গঠনে আপনাআপনিই সৃষ্টি হয়ে গেছে এবং সৃষ্টি করেছে একটা সমান্তরতা। এই গ্রন্থনাতে লক্ষণীয় এই যে আধিবাচনিক সংযুক্তিতে কবি কোনো connective ব‍্যবহার করলেন না।
কবিতা আলোচনাতে আমার ব‍্যক্তিগত অনুভূতির প্রক্ষেপ থাকলে পাঠক নিশ্চিত তা ক্ষমা করবেন। সর্বৈব উদাসীনতায় আলোচনার আলো কবিতা ও কবিব‍্যক্তিত্বের সবকোণে আলো ফেলতে পারে বলে আমি মনে করি না।।

পারমিতা।

fb://photo/3864717380296802?set=t.1512911618&sfnsn=wiwspmo

SPECIAL LECTURES ON - History of English Literature Day -1 07/06/2021

কুন্তল চট্টোপাধ্যায়ের ক্লাস ইংরেজি সাহিত্যের ইতিহাস নিয়ে। আয়োজক কবি সুকান্ত মহাবিদ্যালয়।

https://www.youtube.com/watch?v=lup3by892wU

SPECIAL LECTURES ON - History of English Literature Day -1 SPECIAL LECTURES ONHistory ofEnglish LiteratureSPEAKERDr. Kuntal ChattopadhyayAssociate Professor,Narasinha Dutt CollegeORGANISED BYKABI SUKANTA MAHAVIDYALA...

Want your school to be the top-listed School/college in Uttarpara?

Click here to claim your Sponsored Listing.

Location

Category

Website

Address


Uttarpara
Other Tutors/Teachers in Uttarpara (show all)
Agarwal Tutorial Agarwal Tutorial
63, P. C Road HINDMOTOR
Uttarpara, 712233

Rajesh Sir - online tutor Rajesh Sir - online tutor
110 D. P. J. M Sarani Hindmotor Hooghly
Uttarpara, 712233

Online tuition (Mathematics) by experience tutor of 20 years+ using Google Meet for class 6 to 12, a

Standard Tutorial Hooghly Standard Tutorial Hooghly
Uttarpara, 712235

Gautam Majumder Gautam Majumder
Banerjee Para
Uttarpara, 712258

It is Our Lovely & Respected Sir, Mr. Gautam Majumder. He Is The Owner Of the Institution "Career Point". Situated in Uttarpara.

Biplab Sengupta Biplab Sengupta
Uttarpara

hi, i am joy a professional yoga instructor and personal fitness trainer have 15 years working experience specially with college student and working lady