Quiz Barta

Quiz barta is an organization of Beliaghata, Daspur, Paschim mednipur. We presenting quiz show anywh

09/06/2019

ক্যুইজ-ও-ম্যানিয়া থেকে পাওয়া আমন্ত্রণ পত্র

05/02/2019

Quiz Barta

04/02/2019

Qui-z-one এর Quiz Fiesta 2019 এ সন্মাননা প্রাপ্তি।

26/01/2019

আমাদের কুইজে উপস্থিত সমস্ত দর্শক, প্রতিযোগী ও পৃষ্ঠপোষকদের জানাই অসংখ্য ধন্যবাদ।

16/01/2019

সবাই আসুন। ভালো লাগবে এই প্রত্যাশা রাখি।

30/09/2018

আমাদের কুইজে উপস্থিত হওয়া সমস্ত দর্শক, প্রতিযোগী এবং পৃষ্ঠপোষক দের কে জানাই আমাদের টিমের পক্ষ থেকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আপনাদের পাশে পেয়ে আমরা আপ্লুত। এছাড়াও যারা শুভানুধ্যায়ী মানুষজন রয়েছেন, বিভিন্ন ভাবে আমাদের পাশে থেকেছেন, তাদের প্রতিও আমরা কৃতজ্ঞ।
যারা প্রতিযোগী ছিলেন, আপনাদের ফিডব্যাকের অপেক্ষায় রইলাম। আপনাদের ফীডব্যাক আমাদের চলার পথকে আরো সুগম করে তুলবে। ধন্যবাদ।

25/09/2018

দীর্ঘ বিরতির পর আমরা আবার ফিরছি কুইজের মঞ্চে। এবার আমরা পুণ্যভূমি বীরসিংহে। সর্বসাধারণের জন্য আয়োজিত এই কুইজে (৩ জনের গ্রুপ) সবাইকে জানাই সাদর আমন্ত্রন। থাকছে সুদৃশ্য ট্রফি ও নানান আকর্ষণীয় পুরস্কার (ক্যাশ প্রাইজ থাকলেও থাকতে পারে)।

*সময়টা সকাল ১১:৩০।

যেকোনো সহায়তার জন্য যোগাযোগ করুন - 7407842038

23/05/2018

He came, He saw, He conquered. Then he left silently.

ক্রিকেট বিশ্ব তোমাকে মিস করবে মি. 360°

16/04/2018

আমরা আসছি আর কিছুক্ষন পরেই। এই প্রথমবার আমরা হাজির হচ্ছি মহিলা সঞ্চালক নিয়ে।

27/03/2018

আমাদের কুইজ টিমের দুই ক্ষুদে সদস্য, পার্থ বালিয়াল ও শুভজিৎ মাইতি। আজ শুরু হচ্ছে ওদের জীবনের অন্যতম বড়ো পরীক্ষা (উচ্চমাধ্যমিক)। পেজের বাকি মেম্বার দের তরফে রইল অনেক শুভেচ্ছা। আপনারাও ওদের আশীর্বাদ করুন। ওরা, আপনাদের আশীর্বাদপ্রার্থী।

26/03/2018

রাত পেরোলেই উচ্চমাধ্যমিক। সকল পরীক্ষার্থী দের জানাই পেজের পক্ষ থেকে একরাশ শুভেচ্ছা। জীবনের লক্ষে তোমরা সফল হবেই।

14/03/2018

যেখানেই থাকুন ভালো থাকুন স্যার........

বিজ্ঞানের দুনিয়ায় নক্ষত্রপতন, প্রয়াত প্রখ্যাত বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং....

অনন্ত সময়ের কোলে বিলীন হয়ে গেলেন ‘আ ব্রিফ হিস্ট্রি অফ টাইম’-এর লেখক স্টিফেন হকিং। সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, ৭৬ বছর বয়সে প্রয়াত হয়েছেন এই বিখ্যাত বিজ্ঞানী। ইউকে সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, বিজ্ঞানীর পরিবারের মুখপাত্র এই খবর নিশ্চিত করেছেন।

চলতি বছরই ৭৬তম জন্মদিন পালন করেছিলেন। বিরল ‘মোটর নিউরন’ রোগে আক্রান্ত হকিং। পৃথিবীর অস্তিত্ব ও বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে বিভিন্ন তথ্য দিয়েছেন তিনি। ১৯৮৮ সালে প্রকাশিত হয়েছিল তাঁর বই ‘আ ব্রিফ হিস্ট্রি অফ টাইম।’ LS রোগে আক্রান্ত এক ব্যক্তি সাধারণত রোগ ধরা পড়ার চার বছরের বেশি বাঁচেন না। তাঁর রোগ ধরা পড়েছিল ১৯৬৩ সালে। অর্থাৎ তারপরও ৫৫ বছর বেঁচে থাকা মিরাকলের চেয়ে কম কিছু নয়। তবে আরও আশ্চর্য তাঁর গবেষণা। এই রোগে আক্রান্ত হয়েও যেভাবে তিনি বিশ্বের সৃষ্টি সন্ধানে রত হয়েছিলেন তা গোটা পৃথিবীকেই চমকে দিয়েছিল। নক্ষত্রদের দুনিয়াতেই ছিল তাঁর বাস। সৃষ্টির আদি থেকে প্রথম কয়েক মিনিটের রহস্য, বিগ ব্যাং থেকে ব্ল্যাক হোল নিয়ে যুগান্তকারী তত্ত্বে বিজ্ঞান দুনিয়াকে আলোড়িত করেছেন. গোটা পৃথিবীর কাছে তিনি ছিলেন বিস্ময়। শুধু বিজ্ঞানী হিসেবে নয়, প্রতিবন্ধকতাকে পেরিয়ে কী করে নক্ষত্র হয়ে ওঠা যায়, তাঁর থেকে ভাল উদাহরণ বোদহয় আ কেউ ছিল না. সেই নক্ষত্র পতনে শোকগ্রস্ত পৃথিবী. সময়ের ব্ল্যাক হোলে চিরতরে হারিয়ে গেলেন পৃথিবীর এই উজ্জ্বল জ্যোতিষ্ক।

14/03/2018

Quiz vlm

আজ বিশ্ব পাই (π) দিবস। গাণিতিক ধ্রুবক পাই (π) এর সম্মানে প্রতিবছর ১৪ মার্চ দিবসটি পালিত হয়। পাই-এর মান প্রায় ৩.১৪ বলে বিশ্বের গণিতবিদরা প্রতিবছর ১৪ মার্চকে পাই দিবস হিসেবে পালন করে থাকেন।

১৯৮৮ সালে পদার্থবিদ ল্যারি শ’ পাই দিবস এর ধারণার প্রবর্তন করেন। সানফ্রানসিসকোর বিজ্ঞান জাদুঘরের কর্মকর্তা ল্যারি শ’ এই দিবস উদযাপনের উদ্যোক্তা বলে তাকে ‘পাই-এর রাজপুত্র’ বলা হয়। পরবর্তীতে ২০০৯ সালে ১২ মার্চ যুক্তরাষ্ট্র সরকার ১৪ মার্চকে জাতীয় পাই দিবস হিসেবে পালনের অনুমোদন দেয়।

উল্লেখ্য, পাই (π) একটি গুরুত্বপূর্ণ গাণিতিক ধ্রুবক। ইউক্লিডিয় সমতলীয় জ্যামিতিতে, বৃত্তের পরিধি ও ব্যাসের অনুপাতকে পাই (π) হিসেবে সংজ্ঞায়িত করা হয়। উইলিয়াম জোনস সর্বপ্রথম ১৭০৬ সালে পাই (π) প্রতীকটির প্রচলন করেন। তবে এই প্রতীকটিকে জনপ্রিয় করেন সুইস গণিতবিদ লিওনার্দো ইউলার। গণিত, বিজ্ঞান ও ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের অনেক সূত্রে পাইয়ের ব্যবহার দেখা যায়। বর্তমানে কম্পিউটারের সাহায্যে π এর মান দশমিকের পর ১ ট্রিলিয়ন পর্যন্ত বের করা সম্ভব হয়েছে।

π=3.14159265358979323846264338327950288419716939937510582097494459230781640628620899862803482534211706798214808651328230664709384460955058223172535940812848111745028410270193852110555964462294895493038196442881097566593344612847564823378678316527120190914564856692346034861045432664

12/03/2018

সকল মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী দের জন্য অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল।

08/03/2018
21/02/2018

Quiz vlm

সবাইকে জানাই আন্তর্জাতিক ভাষা দিবসের প্রীতি ও শুভেচ্ছা...

16/02/2018

Quiz vlm

10/01/2018

Quiz Barta's cover photo

10/01/2018

১২২ তম নেতাজী জন্ম জয়ন্তী উৎসব উপলক্ষে আয়োজিত ক্যুইজে সবাইকে জানাই সাদর আমন্ত্রন। ক্যুইজ সহ যে কোনো ইভেন্টে নাম লেখানোর জন্য ক্লিক করুন নিচে দেওয়া লিঙ্কে 👇👇👇

www.cognitoforms.com/bnc6/beliaghatanetajiclub

27/11/2017

Beliaghata Netaji Club

৮ দলীয় ফুটবল টুর্ণামেন্টের মধ্য দিয়ে শুরু হয়ে গেল ১২২ তম নেতজী জন্মজয়ন্তী উৎসব ২০১৮। উদ্বোধন করলেন মাননীয় গ্রাম পঞ্চায়েত শ্রী লক্ষন বারিক মহাশয়।

আমাদের এই উৎসবে সবাই সামিল হোন। অনুষ্ঠান সম্পর্কিত পরবর্তী খবরাখবর পেতে, পেজটিতে লাইক করুন।

10/10/2017

"আপনা হাত জগন্নাথ।"

পরের কথাটা কি?

30/09/2017

আমাদের কুইজে অংশগ্রহণকারী সকল প্রতিযোগী, দর্শক, লাওদা ভূতনাথ সংঘের সদস্য-সদস্যাগণ, পৃষ্ঠপোষক, শুভানুধ্যায়ী সবাইকে জানাই শুভ বিজয়া।

22/09/2017

সর্বসাধারনের জন্য আয়োজিত এই ক্যুইজ তে, সবাইকে জানাই সাদর আমন্ত্রন।

সময় :- বিকাল ৫:৩০

02/08/2017

Beliaghata Netaji Club

বেলিয়াঘাটা নেতাজী ক্লাবের পক্ষ থেকে প্রত্যন্ত এলাকায় ত্রান বিলি করা হল।

18/07/2017

Quiz vlm

“আকাশ আমায় শিক্ষা দিল উদার হতে ভাইরে, কর্মী হবার মন্ত্র আমি বায়ুর কাছে পাইরে, পাহাড় শেখায় তাহার সমান হই যেন ভাই মৌন- মহান” আকাশের মত ঔদার্য,ক্লান্তিহীন বায়ুর মত কর্মীদের প্রেরণা এবং পাহাড়ের মত উচ্চতা নিয়ে যিনি মাথা উঁচু করে বেঁচেছিলেন তিনি হলেন নেলসন ম্যান্ডেলা। দক্ষিণ আফ্রিকার মানুষ তাঁকে আদর করে মাদিবা নামে ডাকে। মহত্ব এবং উদারতা অর্জনকারী এবং সাদা কালোর মৈত্রীর সেতুবন্ধনকারী, শান্তি আর সমপ্রীতির দাঁড়িয়ে থাকার স্তম্ভ বিশ্ববরেণ্য নেলসন ম্যান্ডেলা।
আজ ১৮ জুলাই নেলসন ম্যান্ডেলার জন্মদিন। ২০০৯ সালের ২৭শে এপ্রিল কনসার্ট ৪৬৬৬৪ এবং নেলসন ম্যান্ডেলা ফাউন্ডেশন নেলসন ম্যান্ডেলা আন্তর্জাতিক দিবস প্রতিষ্ঠা ও পালনে বিশ্ব জনগোষ্ঠির সহায়তা ও সমর্থন কামনা করেন। তদপরিপ্রেক্ষিতে গত ২০০৯ সালে নভেম্বরে সাধারণ পরিষদ অধিবেশনে জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন আফ্রিকার স্থপতি এই মহান নেতা নেলসন ম্যান্ডেলার জন্মদিনকে আন্তর্জাতিক দিবস হিসেবে পালনের প্রস্তাব দেন।
জাতিসংঘের ১৯২ সদস্য মহাসচিবের প্রস্তাবকে সমর্থন জানিয়ে প্রস্তাবটি গ্রহণ করে। ১৯১৮ সালে ১৮ জুলাই দক্ষিণ আফ্রিকার উমটাটায় কৃষ্ণাঙ্গ রিজার্ভ ট্রান্সকিই শহরের রাজধানীতে মুভিজোর নামক গ্রামে পিতা হেনরি গাডলাও মাতা- নোসিকেনী দম্পতির ঘরে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা ছিলেন গ্রাম্য মোড়ল। ম্যান্ডেলার বাবার মৃৃত্যুর পর দালিন্দ্যেবো তাঁকে পোষ্যপুত্র হিসেবে গ্রহণ করেন। সেখানেই তিনি আস্তে আস্তে বেড়ে উঠেন। আর নেতৃত্বের গুণটা পারিবারিকভাবে তাঁর মধ্যে প্রবেশ করে। ম্যান্ডেলা ছিলেন তাঁর পরিবারের প্রথম সদস্য যিনি স্কুলে পড়াশোনা করেছেন। স্কুলে পড়ার সময় তাঁর শিক্ষিকা এমদিনগান ম্যান্ডেলার ইংরেজি নাম রাখেন নেলসন।
থেম্বু রীতি অনুযায়ী ১৬ বছর বয়সে তাঁকে আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁর গোত্রে বরণ করে নেয়া হয়। এরপর তিনি ক্লার্কবারি বোর্ডিং ইন্সটিটিউট থেকে তিন বছরের জায়গায় মাত্র দুই বছরেই জুনিয়র সার্টিফিকেট পরীক্ষায় পাশ করেন।
স্কুল পাশ করার পর ম্যান্ডেলা ফোর্ট হেয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে বি.এ কোর্সে ভর্তি হন। জীবনের পরবর্তী সময়ে কারাগারে বন্দী অবস্থায় তিনি ইউনিভার্সিটি অব সাউথ আফ্রিকা দূরশিক্ষণ কার্যক্রমের অধীনে স্নাতক ডিগ্রী লাভ করেন। এরপর তিনি ইউনিভার্সিটি অব উইটওয়াটার্সরান্ডে আইন বিষয়ে স্নাতকোত্তর পড়াশোনা শুরু করেন।
ছাত্র অবস্থায় সাদা কালোর ভেদাভেদ তাঁকে মানসিক ভাবে উৎপীড়িত করত। একই দেশে দুই সমাজ ব্যবস্থা। এসব দেখে এক ধরনের আক্রোশ জন্ম নিয়েছিল মনের ভিতরে। বস্তিবাসী শ্রমজীবী মানুষের ভাগ্য, দারিদ্র, ক্ষুধা ও পুলিশের অবিরাম হয়রানি নিত্যদিনের সঙ্গী হয়ে দাঁড়িয়েছিল। তবে তিনি বিপদে ছিলেন ধীরস্থির এবং ন্যায়ের সংগ্রামের অটল। তিনি বলতেন,‘সংগ্রামই আমার জীবন। আমি স্বাধীনতার জন্য আমার জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত সংগ্রাম চালিয়ে যাব’। তাঁর জীবন ছিল জনগণের জন্য উৎসর্গীকৃত। ১৯৫৮ সালের ১৪ জুন উইনি ম্যান্ডেলাকে বিয়ে করেন মোথাডিস্ট চার্চে। ঐ বছরেই ১ আগষ্ট তাঁর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা হয় প্রিটোরিয়ার আদালতে। ১৯৬২ সালের ৫ আগষ্ট রবিনসন দ্বীপ কারাগারে প্রেরণ করা হয়। বন্দিজীবনের অধিকাংশ সময়েই তিনি ছিলেন রোবন দ্বীপে।
১৯৬৪ সালের ১২ জুন বর্ণবৈষম্য বিরোধী সংগ্রামে সক্রিয় আন্দোলন, অর্ন্তঘাতসহ নানা অপরাধের দায়ে জাতিসংঘের ১০৬ ভোটের রায় বিবেচনায় এনে ফাঁসির পরিবর্তে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয় তাঁকে। পরবর্তীতে দ্বীপ থেকে দ্বীপান্তরে , কারাগার থেকে কারাগারে নির্যাতন ও কারাদণ্ড ভোগ করেন।
তরুণ ম্যান্ডেলা দীর্ঘ ২৭ বছর কারাগারের অন্ধকার প্রকোষ্ঠে বন্দী এবং কঠোর-নির্মম, নিঃসঙ্গ কয়েদি জীবন যাপন করলেও বর্ণবাদের সঙ্গে কখনো আপোস করেননি। শুধু ম্যান্ডেলাকেই নয়, তাঁর স্ত্রী উইনি ম্যান্ডেলাকে বেশ কয়েকবার কারাগারে এবং কন্যাদ্বয়কে শ্বেতাঙ্গ সরকার স্কুলে ভর্তির ক্ষেত্রে নানা রকম বিধি-নিষেধ আরোপ করে। গভীর রাতের শেষে যেভাবে ভোর হয় ঠিক সেভাবে দক্ষিণ আফ্রিকার শ্বেতাঙ্গ প্রেসিডেন্ট এফ ডবলিউ ডি ক্লার্ক ১৯৮৯ সালে বর্ণ-বৈষম্য নীতির অবসান ঘটান।
১৯৯০ সালে আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেস এর ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয় এবং দীর্ঘ ২৭ বছর পর অবশেষে ১৯৯০ সালের ১১ ফেব্রুয়ারী তিনি মুক্তি পান। মুক্তির পরদিন ১২ ফেব্রুয়ারি তিনি এক ঐতিহাসিক ভাষণে বলেন, ‘আমাদের সংগ্রাম চূড়ান্ত পর্যায়ে- আমি স্বপ্ন দেখি এমন এক সমাজের যেখানে সমঅধিকার নিয়ে সবাই সম্প্রীতিতে বসবাস করবে।
বর্ণবাদের কোনো ভবিষ্যৎ নেই। এই বর্ণবাদের অবসান ঘটাতে হবে। এ্‌ই দেশ সাদাকালোর দেশ। আমাদের আন্দোলন ছিল সাদাদের বিরুদ্ধে নয়, তাঁদের আধিপত্যবাদের বিরুদ্ধে ”।
পরবর্তীতে তিনি তাঁর দলের হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার সরকারের সাথে শান্তি আলোচনায় অংশ নেন। এর ফলে দক্ষিণ আফ্রিকায় বর্ণবাদের অবসান ঘটে এবং এরই ধারাবাহিকতায় সব বর্ণের মানুষের অংশগ্রহণে ১৯৯৪ সালে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়। ম্যান্ডেলা ১৯৯৪ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচিত হন এবং উপরাষ্ট্রপতি করেন শ্বেতাঙ্গ নেতা পূর্ববর্তী রাষ্ট্রপতি ডি- ক্লার্ককে। ১৯৯৯ সালে রাষ্ট্রপতি পদ থেকে তিনি স্বেচ্ছায় অবসর নেন।
সবচেয়ে মজার বিষয় হলো, যাঁরা তাকে রাজদণ্ড দিয়েছিল আবার তারাই তাঁকে বাধ্য হয়ে সম্মানিত করেছেন। চমৎকার বিষয়টি হলো, ইংল্যান্ডের লৌহমানবী খ্যাত প্রধানমন্ত্রী মার্গারেট থ্যাচার ম্যান্ডেলার মুক্তির নয় বছর আগে দম্ভোক্তি করে বলেছিলেন “কেউ যদি ভেবে থাকে এ. এন.সি কখনো দক্ষিণ আফ্রিকায় সরকার গঠন করতে পারবে তবে সে এক অন্ধকার অলিক রাজ্যে রাজ্যে বাস করছে”।
কিন্তু নয় বছর পর থেচারকেই দেখতে হলো সেই অন্ধকারের অলীক রাজ স্বয়ং ওয়েস্টমিনিস্টার হলে। সেখানে গ্রেনেডিয়র গার্ডদের বাদক দল -“নকোসি সিকেলেল আফ্রিকা”বাজাতে শুরু করে। সে সংগীতটি কয়েক দশক ধরে আফ্রিকান কৃষ্ণাঙ্গদের সংগ্রামের প্রেরণা জুগিয়েছিল। সেন্ট আলবার্ট হলে ৫ হাজার দর্শকের উপস্থিতিতে কনসার্ট শুরু হয় ফিল কলিন্সের গান দিয়ে, আর শেষ হয় দক্ষিন আফ্রিকার ট্যাম্পেট বাদক হাগ ম্যাসকেলার নেতৃত্বে, ট্রাম্পেটের ঝঙ্কার এর মধ্য দিয়ে।
দর্শকদের হর্ষধ্বনিতে মেতে ওঠে আলবার্ট হল। তাঁর জন্ম, ত্যাগ, ধৈর্য, আন্দোলন, সংগ্রাম এবং চূড়ান্ত সাফল্য তাঁকে জীবনের পরিপূর্ণতায় ভরে দিয়েছে এবং মহান বিশ্ববরেণ্য নেতায় পরিণত করেছে। তিনি যাদের কাছ থেকে সহ্য করেছেন নির্যাতন কিন্তু রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে প্রতিশোধনীতি গ্রহণ না করার জন্য পৃথিবীর সর্বত্র প্রশংসিত হয়েছেন।
তাঁর অসীম সাহস, দক্ষ নেতৃত্ব ও নিঃস্বার্থ নীতির জন্য সারা বিশ্বের মানুষ তাঁর প্রতি অত্যন্ত শ্রদ্ধাশীল। বিশ্বব্যাপী একজন অসাধারণ ব্যক্তিত্ব হিসেবে নিজেকে তিনি নিয়ে গেছেন অন্যরকম উচ্চতায়। শান্তির স্বপক্ষে কাজ করা এবং আফ্রিকার নবজাগরণে ভূমিকা রাখার জন্য গত চার দশকে তিনি ২৫০টির বেশি আন্তর্জাতিক পুরস্কার।
এছাড়াও মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদ ও সিনেট সদস্যদের সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে মর্যাদাপূর্ণ কংগ্রেশনাল স্বর্ণপদক বিশ্ববরেণ্য এই নেতাকে প্রদান করা হয়।
১৯৯৩ সালে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সম্মান ‘নোবেল শান্তি’ পুরস্কারে ম্যান্ডেলাকে ভূষিত করা হয়। ২০১৩ সালের ৫ ডিসেম্বর তাঁর বর্ণাঢ্য কর্মময় জীবনের পরিসমাপ্তি ঘটে।

আজ তাঁর জন্মদিনে জানাই আমাদের শ্রদ্ধা ও সম্মান ।

Posted by : Aniruddha Pradhan

15/04/2017

Quiz Barta এর পক্ষ থেকে সকলকে জানাই শুভ নববর্ষের প্রীতি ও শুভেচ্ছা।

08/03/2017

❑ যে মেয়েটি আরশোলা টিকটিকি দেখে ভয় পেতে সে মেয়েটি আজ ডাক্তার । তার দিন গুলো আজ পার হয় কাঁটাছেড়া, রক্ত মাংস, আর ডোম ঘরের বিভৎস লাশ গুলো দেখে ।

❑ যে কিশোরী মেয়েটি পায়জামায় সামান্য রক্তের দাগ দেখে ভয়ে আতঙ্কিত হতো সে মেয়েটি আজ তিন সন্তানের জননী । প্রতিবার প্রসবের সময় তীব্র যন্ত্রণা আর রক্তের সাগর পারি দিয়ে একটি করে সন্তানের জন্ম দেয় ।

❑ যে মেয়েটি এক কাপ চা বানাতে গিয়ে কাপ পিরিচ ভেঙে ফেলতো সে মেয়েটি আজ পুরো সংসারের দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিয়েছে । তাকে আজ বড় বড় পাত্রে রান্না চড়াতে হয় ।

❑ যে মেয়েটি লজ্জায় ঘর থেকে বের হতো না, কারো সাথে কথা বলতো না । সে মেয়েটি আজ প্রতিদিন যুদ্ধ করে পাবলিক বাসে চড়ে অফিসে যায় । সবার মন রক্ষার্থে সুন্দর করে হেসে হেসে কথা বলে ।

❑ যে মেয়েটি পড়া বলার ভয়ে ক্লাসের শেষ ব্যাঞ্চে বসতো সে মেয়েটি আজ কলেজের লেকচারার। তার মুখ দিয়ে জ্ঞানের কথা গুলো আজ শ্রুতি মধুর হয়ে বেরিয়ে আসে ।

❑ যে মেয়েটি এক সময় পাঁচ কেজি ওজন বহন করতে পারত না সে মেয়েটি আজ শতো কেজি ওজন বহন করে ভার উত্তোলেনে বিজয়ের মালা ছিনিয়ে আনে ।

❑ যে মেয়ে আলতা পায়ে নূপুর পড়ে গ্রামের মেঠো পথে হেঁটে যেত । সে মেয়ের পায়ে আজ শক্ত বুট জুতো । Left Right, Left Right শব্দে মুখরিত হয় সেনানিবাস ।

❑ যে মেয়েটি এক সময় ইভটিচিং এর স্বীকার হতো । ভয়ে, লজ্জায় যার মুখ লাল হয়ে যেত সে মেয়েটি আজ আদালতের কাঠ গড়ায় অর্ডার অর্ডার বলে ইভটিচারের ছয় মাসের শাস্তি দেয় ।

❑ যে মেয়েটি সন্ধ্যা হলেই ঘুমিয়ে যেত । শত ডেকেও যার ঘুম ভাঙ্গনো যেত না সে ময়েটি আজ রাত্রি জাগে সদ্য ভূমিষ্ঠ হওয়া নিজ সন্তানের কান্না থামাতে ।

☞ আসলে মেয়েরা পারে মেয়েদের পারতে হয় । সময়ের প্রয়োজনে তারা বদলায় । কোমল হাত হয়ে উঠে শক্ত, স্নিগ্ধ হৃদয় হয় কঠিন। চোখের অশ্রু গুলো হয়ে উঠে প্রতিবাদের ভাষা । আবেগ উচ্ছ্বাস হয়ে উঠে কর্তব্য । কিন্তু কয় জনই বা তাদের পরিবর্তন গুলো কে সম্মান জানায় । কয় জনই বা পারে তাদের সাহস জুগিয়ে বলতে তুমি মা, তুমি বোন, তুমি কন্যা সামনে এগিয়ে যাও আছি তোমার পাশে ।
Happy women's day to all the women...

24/02/2017

Our annual sports....

Interested teams may contact.....

11/02/2017

Urukku macher desh kake bola hoy?????????

03/02/2017

Timeline Photos

01/02/2017

Aj sarberiya te quiz er kichu part

Want your school to be the top-listed School/college in Daspur?

Click here to claim your Sponsored Listing.

Location

Category

Telephone

Website

Address

Beliaghata
Daspur
721211
Other Education in Daspur (show all)
Open Your Mind Open Your Mind
Vill+PO Radhakantapur ; Ps Daspur ; Dist Paschim Medinipur
Daspur

Attitude is everything. Change your attitude, change your life!

Bhagwanchak Patiram Sikshaniketan Bhagwanchak Patiram Sikshaniketan
Bhagwanchak, P. S-Daspur, Dist-Pashim Medinipur
Daspur, 721153

ESTD-1950

Gangaprasad high School Gangaprasad high School
Gangaprasad
Daspur, 721146

DASPUR PASCHIM MEDINIPUR

Brahma Kumaris  Sagarpur Brahma Kumaris Sagarpur
Sagarpur Main Road
Daspur, SAGARPUR

Learn Free RajYoga Meditation Nearest Your BrahmaKumaris.com centre

Gangaprasad High School Gangaprasad High School
Gangaprasad Sekendari Daspur Paschim Medinipur
Daspur, 721146

we provide a great education in India

Narajole Raj College Official Narajole Raj College Official
Narajole
Daspur, 721211

"Education is the most powerful weapon which you can use to change the world...” proclaimed the great visionary, Nelson Mandela.