As-Suffah Foundation

As-Suffah Foundation

দেশ, জাতি ও উম্মাহকে একটি স্বার্থক প্রজন্ম উপহার দেবার প্রত্যয়ে, আমাদের আদিগন্ত পথচলা।

Operating as usual

09/05/2023

কাবা আল্লাহর ঘর। বিশ্বমুসলিমের সম্মিলনস্থল। প্রতিবছর বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে মুসলমানরা আল্লাহর নির্দেশ পালনে হজব্রতের উদ্দেশে এখানে এসে উপস্থিত হন। সৌদি আরবের মক্কা মুকাররমার মসজিদুল হারামে অবস্থিত পবিত্র কাবাঘর। ভৌগোলিকভাবে পৃথিবীর মধ্যস্থলে কাবার অবস্থান, যা পৃথিবীর নাভি হিসেবে বিবেচিত। এটি মুসলমানদের কাছে সবচেয়ে পবিত্র ও সম্মানের স্থান এবং নামাজের কেবলা।
কাবা শব্দের অর্থ উঁচু। আরবিতে উঁচু ঘরকে কাবা বলা হয়। এই ঘরটি যেহেতু উঁচু তাই এর নামকরণ করা হয়েছে কাবা। অন্য আরেকটি ব্যাখ্যা অনুযায়ী, কাফ-আইন-বা এই তিনটি মূল অক্ষর নিয়ে গঠিত হয়েছে ‘কাব’ বা ‘মুকাআব’ শব্দ, যার অর্থ চার কোণবিশিষ্ট। যেহেতু কাবাঘর চার কোণবিশিষ্ট তাই এর নামকরণ এভাবেই হয়েছে। কাবাকে আরও চার নামে যেমন আল বাইত, বাইতুল আতিক, মসজিদুল হারাম এবং বাইতুল মুহাররাম নামেও অভিহিত করা হয়।

কাবাঘরের আয়তন পশ্চিমে ১০ দশমিক ১৫ মিটার (২২ হাত), পূর্বে ৮ দশমিক ৪০ মিটার (১৮ দশমিক ৫ হাত), দক্ষিণে ৮ দশমিক ২৪ মিটার (১৮ হাত), উত্তরে ৫ দশমিক ৫০ মিটার (১২ হাত) এবং উচ্চতা ৮ দশমিক ২৪ মিটার (১৮ হাত)। ভেতরে প্রবেশ করার জন্য একটিমাত্র দরজা রয়েছে যা বছরে তিনবার খোলা হয় অভ্যন্তরভাগ পরিষ্কার করার জন্য।

কখন নির্মিত হয়েছিল কাবা—এ নিয়ে বিভিন্ন বর্ণনা এসেছে। সর্বাধিক গ্রহণযোগ্য মত অনুযায়ী, মহান আল্লাহর নির্দেশে ফেরেশতারাই সর্বপ্রথম কাবাঘরের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেছিলেন। বায়তুল মামুরের ঠিক নিচে কাবাকে স্থাপন করা হয়। পৃথিবীর সূচনা হয় কাবাঘর নির্মাণের মাধ্যমে। কোরআনের ভাষায়, ‘নিঃসন্দেহে সর্বপ্রথম ঘর, যা মানুষের জন্য নির্ধারিত হয়েছে, সেটিই হচ্ছে এই ঘর, যা বাক্কায় (মক্কা নগরীতে) অবস্থিত।’ (সূরা ইমরান: ৯৬)।
কাবার উপরে ৭ম আকাশে অবস্থিত ফেরেশতাদের কাবাকে বলা হয় বায়তুল মামুর। এটি দুনিয়ার কাবার ঠিক উপরে। এখানে ফেরেশতারা নামাজ পড়েন এবং তাওয়াফ করেন। তাফসিরে ইবনে কাসিরের বর্ণনামতে, বায়তুল মামুর কাবাঘরের এতই সোজাসুজি যে, যদি ভেঙে পড়ে যায় তাহলে কাবা ঘরের উপরেই পড়বে। এরপর আদিমানব হজরত আদম (আ.) কাবাঘরের পুনর্নির্মাণ করেন।
হজরত নূহ (আ.)-এর সময়ে মহাপ্লাবণে কাবাঘর প্রায় নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছিল। তখন আল্লাহ তাআলা ওহির মাধ্যমে হজরত ইবরাহিম (আ.)-কে কাবার স্থান দেখিয়ে দেন এবং পুনর্নির্মাণের নির্দেশ দেন। নির্দেশমতো হজরত ইব্রাহিম (আ.) ছেলে ইসমাইল (আ.)-কে সঙ্গে নিয়ে কাবাঘর পুনর্নিমাণ করেন। এক বর্ণনায় এসেছে, একটি মেঘখণ্ড বায়তুল্লাহ শরিফের স্থানে ছায়া ফেলে, যা দেখে দেখে হজরত ইবরাহিম (আ.) সে ছায়ার পরিমাপ মতো বর্তমান পবিত্র বাইতুল্লাহ নির্মাণ করেন। এরপর হজরত জিব্রাইল (আ.) জান্নাত থেকে হাজরে আসওয়াদ পাথর নিয়ে এসে এটিকে কাবাঘরে স্থাপনের নির্দেশ দেন। কাবা নির্মাণ সম্পন্ন হওয়ার পর ইবরাহিম (আ.)-কে হজের জন্য আহবান করতে আদেশ দেওয়া হয়।
হজরত ইব্রাহিম (আ.) এর মাধ্যমে কাবা পুনর্নির্মাণের ৩০ বছর পর এক মহিলা কাবাঘরে সুগন্ধি দানকালে আগর বাতির ধোঁয়া থেকে সৃষ্টি হওয়া অগ্নিকাণ্ডে কাবাঘরের ব্যাপক ক্ষতিসাধিত হয়। তাই কুরাইশরা কাবাঘরের সংস্কার সাধনের উদ্যোগ গ্রহণ করেন এবং ইব্রাহিম (আ.) কর্তৃক স্থাপিত ভিত্তির কিছুটা পরিবর্তন সাধন করেন।
কালক্রমে কাবাঘরে পৌত্তলিকতার চর্চা শুরু হয়। মক্কা বিজয়ের আগে এখানে ৩৬০টি দেবদেবীর মূর্তি ছিল। পরবর্তীতে মক্কা বিজয়ের পর হজরত মুহাম্মদ (স.) কাবাঘর থেকে সব মূর্তি অপসারণ করেন। এরপর জিয়ারতকারীদের সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে দ্বিতীয় খলিফা হজরত উমর ইবনুল খাত্তাব (রা.) মসজিদুল হারামের সংস্কার ও সম্প্রসারণ করেন। ফলে মাতাফ ও তাওয়াফের স্থান সম্প্রসারিত হয়।
ইতিহাসে সর্বপ্রথম নির্মাণ থেকে সর্বশেষ সময় পর্যন্ত মোট ১২ বার কাবাঘরের সংস্কার ও সম্প্রসারণ কাজের উল্লেখ আছে। ক্রমানুসারে তা হলো—
প্রথমে ফেরেশতাদের মাধ্যমে নির্মাণ। এরপর পুনর্নির্মাণ করেন যথাক্রমে হজরত আদম (আ.), হজরত শীষ (আ.), হজরত ইব্রাহিম (আ.), আমালিকা সম্প্রদায়, জুরহাম সম্প্রদায়, কুসাই বিন কিলাব, মোযার সম্প্রদায়, কুরাইশগণকে নিয়ে হজরত মুহাম্মদ (সা.)। এসময় তিনি হাজরে আসওয়াদকে বর্তমান স্থানে স্থাপন করেছিলেন।

এরপর ৬৪ হিজরিতে হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে যুবায়ের (রা.), ৭৪ হিজরিতে হাজ্জাজ ইবনে ইউসুফ এবং ১২তম বার ১০৪০ হিজরিতে ওসমানিয়া খলিফা চতুর্থ মুরাদ। এটাই আজ পর্যন্ত কাবাঘরের সর্বশেষ সংস্কার কাজ। এরপর ছোটখাট সংস্কার ছাড়া কেউ কাবাঘরে হাত দেয়নি।
ওসমানিয়া খেলাফতের সময় কাবাঘরে সর্বপ্রথম রৌপ্য নির্মিত কারুকার্যময় দরজা লাগানো হয়। বর্তমানে পবিত্র কাবাঘরের দরজাটি ২৮০ কেজি খাঁটি সোনা দ্বারা তৈরি করেন প্রয়াত সৌদি বাদশা খালিদ বিন আব্দুল আজিজ। দরজাটি তৈরি করতে মোট ব্যয় হয়েছে ১৩.৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। কাবাঘরের মেঝে মূল্যবান মার্বেল টাইলস দিয়ে তৈরি। ভেতরের চারপাশের দেয়ালগুলো মেঝে থেকে উপরে চার মিটার পর্যন্ত কারুকার্যময় মার্বেল টাইলস দ্বারা মোড়ানো।

তার উপর থেকে ছাদ পর্যন্ত বাকি পাঁচ মিটার দেয়াল কাবার প্রাচীন গিলাফ দিয়ে মোড়ানো। এই গিলাফটিতে রুপোর ক্যালিওগ্রাফি আঁকা। ২০ মিলিয়ন সৌদি রিয়াল বা ৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয়ে প্রতি বছর নতুন করে গিলাফ তৈরি করা হয়। প্রত্যেক বছর হজের দিন ৯ জিলহজ ফজরের পরপরই পরানো হয় নতুন গিলাফ। সতর্কতামূলকসহ মোট দুইটি করে গিলাফ তৈরি করা হয়। এ গিলাফগুলো হাতে তৈরিতে সময় লাগে মোট আট থেকে নয় মাস। অন্যটি মেশিনে মাত্র এক মাসে তৈরি করা হয়। মক্কার উম্মুদ জুদ নামক এলাকার বিশেষ কারখানায় তৈরি হয় গিলাফগুলো।

মেঝের সাদা মার্বেলের মাঝে একটি গাঢ় সবুজ রং-এর টাইলস দিয়ে মহানবী (স.)-এর নামাজ ও সেজদার স্থান চিহ্নিত করে রাখা আছে। একই সবুজ টাইলস দিয়ে দরজার পাশে মূলতাজিমেও একটি স্থান নির্দিষ্ট করা আছে। নবীজি (স.) এখানে ডান গাল ও পেট ঠেকিয়ে দীর্ঘক্ষণ ধরে দোয়া করতেন।
প্রত্যক্ষদর্শী সাহাবায়ে কেরামের মতে, আল্লাহ তাআলার কাছে চাওয়ার আকুতি ও পাওয়ার আনন্দে নবীজি (স.) সেদিন এত বেশি কেঁদেছিলেন যে, উনার দাঁড়ি মোবারক, বুক ও পেট ভিজে গিয়েছিল। এই ঘটনার পর থেকে হজরে আসওয়াদ ও দরজার মধ্যবর্তী স্থানটি মুলতাজিম বা দোয়া কবুলের স্থান হিসেবে স্বীকৃত।
প্রতি বছর হজের মওসুমের পূর্বে পবিত্র কাবাঘরের অভ্যন্তরভাগে জমজমের পানি দিয়ে ধৌত করার পর অতি মূল্যবান সুগন্ধি মেশক আম্বর ও উদ ছিঁটানো হয়। সৌদি সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে মক্কার সম্মানিত গভর্নরের নেতৃত্বে হারামাইনের ইমাম ও মুয়াজজিনের অংশগ্রহণে এই পুরো কার্যক্রমটি পরিচালিত হয়। মাঝে মাঝে সেখানে উপস্থিত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধানগণও এই মহতি কাজে অংশগ্রহণের সুযোগ পান।

পবিত্র কাবাঘরের বাইরের দিকের পূর্ব-দক্ষিণ কোণের দেয়ালে স্থাপিত রয়েছে হাজরে আসওয়াদ। এই কোণ থেকে তাওয়াফ শুরু এবং এখানেই শেষ করতে হয়। এই কোণকে রুকনে শারকি বলা হয়। শারকী শব্দের অর্থ হচ্ছে পূর্ব। এই কোণের ঠিক সামনেই রয়েছে যমযম কূপ। হাজরে আসওয়াদ থেকে তাওয়াফ শুরু করে প্রথম যে কোণটি অতিক্রম করতে হয় সেটাকে বলা হয় রুকনে ইরাকি। ইরাকের দিকে অবস্থিত বলে এটাকে রুকনে ইরাকি বলা হয়। তাওয়াফের ধারাবাহিকতায় রুকনে ইরাকির পরই অতিক্রম করতে হয় রুকনে গারবী। এটাকে রুকনে শামীও বলা হয়। কারণ ভৌগোলিকভাবে এটি শাম বা সিরিয়ার দিকে অবস্থিত। কাবাঘরের চতুর্থ কোণ হচ্ছে ইয়েমেনের দিকে অবস্থিত রুকনে ইয়ামানি। আবার এটি দক্ষিণ-পূর্ব দিকে অবস্থিত বলে এটিকে দক্ষিণ কোণও বলা হয়। প্রতিবার তাওয়াফ শেষে নবী করিম (স.) রুকনে ইয়ামানি স্পর্শ করতেন।
হাজরে আসওয়াদ ও মাকামে ইব্রাহিম সম্পর্কে নবীজি (স.) বলেছেন, নিশ্চয়ই হাজরে আসওয়াদ ও মাকামে ইব্রাহীম জান্নাতের দুটি অতি মূল্যবান ইয়াকুত পাথর। পৃথিবীতে প্রেরণের সময় মহান আল্লাহ তাআলা এই পাথর দুটির ঔজ্জ্বল্য ম্লান করে দিয়েছেন। তা নাহলে এদের আলোতে সমস্ত পৃথিবী এমনভাবে আলোকিত হয়ে থাকত যে দিন-রাত্রির পার্থক্য বোঝা যেত না। অন্য এক হাদিছে বলা হয়েছে যে, পৃথিবীতে প্রেরণের সময় হাজরে আসওয়াদ দুধের মতো সাদা ছিল। কিন্তু মানুষের পাপের স্পর্শে সেটা কালো রং ধারণ করেছে।

মাকামে ইব্রাহিম হচ্ছে জান্নাতের অতি মূল্যবান ইয়াকুত পাথর। হজরত ইব্রাহিম (আ.) এটির উপর দাঁড়িয়ে কাবাঘর নির্মাণ করেছেন। ছেলে হজরত ইসমাইল (আ.) পাথর সংগ্রহ করে এনে এগিয়ে দিতেন। আর তিনি এই পাথরের উপর দাঁড়িয়ে কাবাঘরের দেয়াল নির্মাণ করেছেন। এ সময় তার প্রয়োজন অনুযায়ী পাথরটি উঠানামা করত। হজরত ইব্রাহীম (আ.)-এর পায়ের ছাপ সংবলিত পাথরটি আজো কাবা চত্বরে সুরক্ষিত আছে।

নবী করিম (স.)-এর অসিয়ত অনুযায়ী, তার শাসনামল থেকে আজ পর্যন্ত বনি শায়রা গোত্রের কাছে কাবাঘরের দরজার চাবি সংরক্ষিত আছে। বংশ পরম্পরায় তারা আজো এর রক্ষক। কারণ, নবীজি স্বয়ং তাদেরকে এই সম্মানে ভূষিত করে গেছেন।
আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে পবিত্র কাবাঘর জিয়ারতের তাওফিক দান করুন। নবীজির স্মৃতিবিজড়িত প্রত্যেকটি স্থান দেখার তাওফিক দান করুন। আমিন।

30/04/2023

দাখিল ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের জন্য
শুভ কামনা রইলো।
As-Suffah Foundation

25/04/2023

সবাই এখন নতুন শিক্ষাবর্ষের ভর্তি নিয়ে ভাবছি। এটাকে এখন মৌলিক ব্যস্ততা বলা যায়।
শিক্ষা নগরী রাজশাহীতে যারা থেকে পড়শুনা করবে বা করতে চায় তাদের জন্য As-Suffah Foundation পরিচালিত প্রতিষ্ঠান একটি ভালো মানের প্রতিষ্ঠান হতে পারে।
কেন ?
উত্তর জানতে প্রতিষ্ঠানে আসুন জেনে বুঝে প্রতিষ্ঠান নির্বাচন করি।

21/04/2023
Photos from As-Suffah Foundation's post 30/03/2023

সদকায়ে জারিয়া। নেক আমলের চলমান সওয়াব। হায়াতের মধ্যেই করে যেতে হয়। পার্থিব জীবনে করতে না পারলে দ্বিতীয়বার আর সুযোগ দেয়া হয় না।

As-Suffah Foundation কর্তৃক পরিচালিত বায়তুর রহমান জামে মসজিদ ও মারকাযুল ফিকরিল ইসলামি রাজশাহীর ভবন নির্মাণের কাজ পুরোদমে চলছে।

সবাইকে এগিয়ে আসার অনুরোধ করছি।

27/03/2023

বায়তুর রহমান জামে মসজিদের নির্মাণকাজ আপনাদের সহযোগিতায় ধীরে ধীরে এগিয়ে যাচ্ছে।

মাহে রমজানের পবিত্র মাসে আপনাদের একান্ত সহযোগিতা কামনা করছি।

Photos from As-Suffah Foundation's post 20/03/2023

মাহে রমজানের ক্যালেন্ডার বিতরণ চলছে!
কারো প্রয়োজন হলে যোগাযোগ করতে পারেন।
As-Suffah Foundation সবসময় আছে।
আপনার পাশে!

Photos from As-Suffah Foundation's post 16/03/2023

দ্বীন দরদী ধর্মপ্রাণ মুসলিম ভাইদের আগমনে কানায় কানায় পূর্ণ হবে মাহফিল এরিয়া। ইনশাআল্লাহ
আপনি আসছেন তো!

Photos from As-Suffah Foundation's post 16/03/2023

হাদিসশাস্ত্র। ইসলামি জ্ঞানশাস্ত্র তো বটেই, বর্তমান বিশ্বে প্রচলিত জ্ঞানতাত্ত্বিক এপিস্টেমোলজিতে থাকা লিস্টের সবচেয়ে কঠিনতম বিষয়গুলোর একটি। এই শাস্ত্রের ফলেই নবিজির সাথে সংশ্লিষ্ট ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র বিষয়াশয় সংরক্ষিত হয়েছে। শুধু কি তাই, এই শাস্ত্রের ঝুলি থেকে আমরা পেয়েছি ওহির পূর্ণাঙ্গ ব্যাখ্যা, বিশুদ্ধ জীবনধারা, সভ্যতার প্রকৃত ইতিহাস, জীবন বদলে দেয়া উপদেশ, জ্ঞান ও প্রজ্ঞার অবারিত সমাহার, আইন ও বিধানের কাঠামো, পরলোকের ধারণা, ইহজাগতিক সমৃদ্ধির নানান তরিকা, পরকালীন জীবনের মুক্তির পথ। কী নেই এই শাস্ত্রে! সুবিস্তৃত এই শাস্ত্রকে সংরক্ষণ করতে গিয়ে একদল মানুষ নিজেদের সর্বস্ব লীন করে, আপন মেধা, শ্রম, অর্থ ও জীবনকে ব্যয় করেছিলেন, অকপটে অবলীলায়। এই শ্রেণির অক্লান্ত পরিশ্রম আর অকল্পনীয় ত্যাগের ফলেই এই শাস্ত্রের বিশুদ্ধরূপ আমাদের নিকট সংরক্ষিত অবস্থায় পৌঁছেছে। এঁদেরই আমরা মুহাদ্দিসিন বলে থাকি। ইমাম আযম থেকে ইমাম নববি, ইমাম শাহ ওয়ালিউল্লাহ থেকে শাইখুল ইসলাম মুহাম্মাদ তাকি, সকলেই এই মহান সিলসিলার অতন্দ্র প্রহরী সৈনিক হিসেবে বরিত, নন্দিত।

এই শাস্ত্রের সংরক্ষণে আমাদের এমাটি থেকেও জন্ম নিয়েছেন কিছু ব্যক্তিত্ব, যাদের কর্মসৌরভ সুবাসিত করে সারা জাহান। হাদিসের শুদ্ধাশুদ্ধি যাচাইয়ে অতুলনীয় প্রাজ্ঞতার অধিকারী আমাদের মাওলানা আব্দুল মালেক সাহেব হাফিজাহুল্লাহ তাদেরই একজন। মহান এই মুহাদ্দিস ব্যক্তিত্ব তৈরি করেছেন ঐতিহাসিক এমন এক বীজতলা, যেখান থেকে বেড়ে ওঠে উম্মাহর বুদ্ধিবৃত্তিক সৈনিকের দল।

এই বীজতলাতেই বেড়ে উঠেছেন একজন ব্যক্তিত্ব। শায়খের সম্মানে বিবাহ পরবর্তী জীবনে যিনি কিছুকাল বরণ করেছেন বৈরাগ্যের জীবন! প্রতিপক্ষের সাথে মতভেদ করলেও যিনি কখনো ব্যবহার করেন না অশোভন কোনো ভঙ্গি, অমূলক কোনো উচ্চারণ। বিরোধীরাও যার কথা মন দিয়ে শোনে। আলোচনাকালে মুক্তোদানা ঝরে যেন তার যবান থেকে। খোদ বিরোধীরাও যাকে সার্টিফাই করে—মানুষটার কথা ও দলিল আমাদের বিরুদ্ধে গেলেও তার উপস্থাপন ও বাচনভঙ্গি কখনো আমাদের বিদ্ধ করে না।

দীর্ঘদিন ধরে হাদিসে নববির পাঠ দিয়ে যাচ্ছেন তিনি সময়ের সেরা বিদ্যাপীঠ জামিয়াতুল উলুমিল ইসলামিয়ার দারুল হাদিসে। একইসাথে সমাজকে হাদিস ও সুন্নাহমুখী করতে বৈচিত্র্যময় নানান কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন তিনি। গণমানুষের আবেদন পূরণে নিয়মিত দেন সুন্নাহর সবক। বিভ্রান্ত হয়ে পড়া শিক্ষিত দীনদার শ্রেণিকে আলোর পথ দেখাতে ব্যবহার করেন প্রজ্ঞা ও হিকমাহর পথ। দিনরাত একাকার করে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন বরেণ্য ও নন্দিত এই তরুণ কর্মবীর মুহাদ্দিস। বারাকাল্লাহু ফীহ!

আচ্ছা, তিনি কে, জানেন? না জানলে বলছি,

⚡সিলেটের গর্ব, দেশের অহংকার, হযরত মাওলানা আব্দুল মালেক হাফিজাহুল্লাহর শাগরিদে রশিদ,

হযরত মাওলানা তাহমীদুল মাওলা হাফিজাহুল্লাহ।

🚅আগামী ১৮ই মার্চ, রাজশাহীতে আগমন ঘটবে তুখোর মেধাবী এই মুহাদ্দিস আলোচকের। আলোচনা করবেন স্থানীয় প্রেক্ষাপটে তৈরি হওয়া ধুম্রজালপূর্ণ জরুরি একটি বিষয়ে। আলিম-উলামা, শিক্ষিত দীনদার ও পেশাজীবি শ্রেণির প্রধান আকর্ষণ হতে পারেন তিনি।

সকলেই অংশ নেয়ার চেষ্টা করি, ইনশাআল্লাহ। করব তো?

Photos from As-Suffah Foundation's post 16/03/2023

ইতিহাসের শুরুকাল থেকেই মানবজাতির শিক্ষা ও দীক্ষার ভার বহন করে এসেছেন সমাজের জ্ঞানী সম্প্রদায় (অন্যকথায় নবি ও তাদের ওয়ারিশগণ)। ওহির জ্ঞানকে সামনে রেখে জীবনের প্রতিটি অধ্যায়ে দিয়েছেন তারা সমৃদ্ধির সবক। হোঁচট খেতে যাওয়ার আগ মূহুর্তে সমাজকে যারা সর্বদা খাদের কিনার থেকে তুলে আনেন, তারা আমাদের আলিমসমাজ। এই শ্রেণির সাথে মিলেমিশে একাকার হবার মাঝেই নিহিত জাতির অস্তিত্ব। প্রতিটি যুগে সমৃদ্ধির চূড়োয় থাকা মানবসভ্যতা ধ্বংস হয়েছে কেনো জানেন, এই শ্রেণির সাথে একাত্ম না থাকার কারনেই।

একজন মানুষ। একাধিক পরিচয় ধারণ করেন আপন চরিত্রে। একাধারে তিনি অধ্যাপনা সম্রাট, বরেণ্য শিক্ষাবিদ, চিন্তক, গবেষক, সংগঠক ও বুদ্ধিজীবী। সান্নিধ্য পেয়েছেন সময়ের শ্রেষ্ঠ ব্যক্তিদের। তত্ত্ব ও বাস্তবতার মাঝে সমন্বয় করা তার নেশা। কল্যাণময় অতীতকে যিনি সর্বদা উপকারী বর্তমানের মাঝে মিলন ঘটানোর প্রচেষ্টা চালান। মুসলিম সভ্যতার স্বর্ণালী শিক্ষাব্যবস্থার পুন:নবায়ন করার স্বপ্ন দেখেন তিনি। বর্তমান বাংলার আলিমসমাজের অন্যতম শ্রেষ্ঠ শিক্ষাবিদ এই মানুষটি। যার তত্বাবধানে পরিচালিত হচ্ছে দেশের সেরা কয়েকটি ধর্মীয় বিদ্যাপীঠ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান। একইসাথে তার পরামর্শে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে আধুনিক পাঠ্যক্রমের বেশ কটি স্কুল ও শিক্ষালয়।
আকাবিরদের স্বপ্নচারী এই মানুষটি আর কেউ নন,
বিখ্যাত তাফসিরগ্রন্থ তাওযীহুল কুরআনের বরেণ্য অনুবাদক, বিশ্বখ্যাত হাদিসগ্রন্থ রিয়াদুস সালেহিনের ভাষ্যগ্রন্থের পূর্ণাঙ্গ অনুবাদক,
হযরত মাওলানা আবুল বাশার মুহাম্মার সাইফুল ইসলাম সাহেব হাফিজাহুল্লাহ।

তার অসংখ্য পরিচয়ের মাঝে অন্যতম দুটি হলো-
★বিশ্বখ্যাত গবেষণা প্রতিষ্ঠান মারকাযুদ দাওয়াহ আল-ইসলামিয়ার জ্যোষ্ঠ শূরাসদস্য তিনি।
★দেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠ জামিয়াতুল উলুমিল ইসলামিয়া, মুহাম্মদপুর,ঢাকার—যে প্রতিষ্ঠান নিয়ে অনেক স্বপ্ন দেখি—বরেণ্য শাইখুল হাদিস তিনি।

তার আগমনে রাজশাহীর শিক্ষিত সমাজ ঋদ্ধ হবে, এই আশাবাদ রাখাই যায়।

আগামী ১৮ই মার্চ, ২০২৩, রোজ শনিবার, (সকাল ১০:০০-দুপুর ২:০০) আস-সুফফাহ ফাউন্ডেশনের নির্মাণাধীন স্থাপনায় অনুষ্ঠিতব্য মহাসম্মেলনে হযরত উপস্থিত হবেন।
আমার মনে হয়, প্রতিটি শিক্ষিত দীনদার, পেশাজীবি ও শিক্ষক শ্রেণির এই মহতি আয়োজনে অংশ নেয়া উচিত।
আল্লাহ আমাদের সবাইকে তাউফিক দিন।

ঈমানী জীবন আনে অনাবিল প্রশান্তি : মাওলানা তাহমীদুল মাওলা 15/03/2023

আলহামদুলিল্লাহ!
আমাদের পরমপ্রিয় উস্তায মাওলানা তাদমিদুল মাওলা।

ঈমানী জীবন আনে অনাবিল প্রশান্তি : মাওলানা তাহমীদুল মাওলা ঈমানী জীবন আনে অনাবিল প্রশান্তিমাওলানা তাহমীদুল মাওলা হাফিজাহুল্লাহ এর আলোচনার একটি ক্লিপ

বিবাহে স্বচ্ছলতা আসে। মাওলানা আবুল বাশার মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম 15/03/2023

আলহামদুলিল্লাহ!
জ্ঞান ও প্রজ্ঞার অতুলনীয় ব্যক্তিত্ব আমাদের উস্তায মাওলানা আবুল বাশার মুহাম্মাদ সাইফুল ইসলাম।

বিবাহে স্বচ্ছলতা আসে। মাওলানা আবুল বাশার মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বিবাহের গুরুত্ব ও উপকারিতা অপরিসীম। বিয়ে-শাদী মানুষের জীবনে শৃংখলা, স্বচ্ছলতা ও মনের প্রশান্তি বয়ে আনে। এজন্য কু...

15/03/2023

আলহামদুলিল্লাহ!

14/03/2023

ক্যাপশন নিস্প্রয়োজন।

14/03/2023

মনে আছে তো সবার ? মাহফিল কিন্তু দিনে হচ্ছে!
আপনাদের বরণ করে নিতে আমাদের ফটক প্রস্তুত।
রেডি হচ্ছে শামিয়ানা। প্রস্তুত হচ্ছে মঞ্চ।
আসছেন তো প্রিয়!

Photos from As-Suffah Foundation's post 14/03/2023

As-Suffah Foundation কর্তৃক পরিচালিত বায়তুর রহমান জামে মসজিদ ও মারকাযুল ফিকরিল ইসলামি রাজশাহীর ভবন নির্মাণের কাজ পুরোদমে চলছে। আলহামদুলিল্লাহ! আলহামদুলিল্লাহ!!

মহান আল্লাহর মদদে ও শুভাকাঙ্খীদের দানেই এগিয়ে যাচ্ছে আমাদের কাজ। আলহামদুলিল্লাহ!!!
শুভানুধ্যায়ীদের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে আমরা আশা রাখি।

13/03/2023

সময়ের অগ্রসরমান প্রজ্ঞাবান উলামায়ে ইসলাম, বিশ্বখ্যাত স্কলার, জ্ঞান ও প্রজ্ঞার সমুচ্চ ব্যক্তিত্ব, সর্ববৃহৎ আয়তনের প্রতিষ্ঠান জামিয়া ইসলামিয়া পটিয়ার সুযোগ্য ও সম্মানিত মহাপরিচালক হযরতুল উস্তায আল্লামা উবাইদুল্লাহ হামযাহ।

আগামী ১৮ মার্চের ইসলামি মহাসম্মেলন - এ আপনাদের সকলের উপস্থিতি একান্তভাবে কামনা করছি।
As-Suffah Foundation

13/03/2023

সময়ের অগ্রসরমান প্রজ্ঞাবান উলামায়ে ইসলাম, প্রথিতযশা শিক্ষাবিদ, বিদগ্ধ গবেষক, কথা সাহিত্যিক শাইখুল হাদিস হযরতুল উস্তায মাওলানা আবুল বাশার মুহাম্মাদ সাইফুল ইসলাম।

আগামী ১৮ মার্চের ইসলামি মহাসম্মেলন - এ আপনাদের সকলের উপস্থিতি একান্তভাবে কামনা করছি।
As-Suffah Foundation

13/03/2023

সময়ের অগ্রসরমান প্রজ্ঞাবান উলামায়ে ইসলাম, তারুণ্যের আইডল, সুমিষ্ট ভাষী,খ্যাতিমান আলোচক হযরতুল উস্তায মাওলানা তাদমিদুল মাওলা।

আগামী ১৮ মার্চের ইসলামি মহাসম্মেলন - এ আপনাদের সকলের উপস্থিতি একান্তভাবে কামনা করছি।
As-Suffah Foundation

13/03/2023

আমরা অপেক্ষায় আছি। আসছেন তো আপনি!

আল্লাহ পাকের তাওফীক হলে কিছু ব্যতিক্রমী উদ্যোগ থাকবে। যা আপনাকে অবশ্যই আনন্দিত করবে। আপনার মধ্যে অসম্ভব ভালো লাগা কাজ করবে। ইনশাআল্লাহ

13/03/2023

আসছেন তো আপনি!
আর মাত্র ৫ দিন।

12/03/2023

A humble effort to preserve the historic and blessed heritage of our beloved elders.....
May Allah grant them and us lowly...Ameen

Photos from As-Suffah Foundation's post 11/03/2023

আগামী ১৮ মার্চ ২০২৩ । শনিবার
সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ২.০০ টা পর্যন্ত।

সময়ের অগ্রসরমান প্রজ্ঞাবান উলামায়ে ইসলাম।
একটি জ্ঞানগর্ভ আলোচনা মাজলিস।
আপনারা স্ব-বান্ধব আমন্ত্রিত।

নির্মাণাধীন আস- সুফ্ফাহ কমপ্লেক্স।
তেরখাদিয়া কলেজ পাড়া ৬ নং লেন।
সেনানিবাস রোড রাজশাহী।

10/03/2023

ছবির ক্যাপশন নিষ্প্রয়োজন,
সকলের সবান্ধব আমন্ত্রণ!

গবেষণামুলক জ্ঞানগর্ব আলোচনা দ্বীনের শিক্ষার গুরুত্ব | Full waz 2022 | আল্লামা ওবায়দুল্লাহ হামজা 04/03/2023

আগামী ১৮ মার্চ ২০২৩। শনিবার।
আমরা তাঁকে পাচ্ছি। আলহামদুলিল্লাহ
আপনাদের শীঘ্রই তাঁর উপস্থিতির সময় জানাব। আপনারা আসবেন, তাঁর মূল্যবান নসীহত শুনবেন। আমাদের পাশে থাকবেন। ইনশাআল্লাহ

গবেষণামুলক জ্ঞানগর্ব আলোচনা দ্বীনের শিক্ষার গুরুত্ব | Full waz 2022 | আল্লামা ওবায়দুল্লাহ হামজা Lecturer: Moulana Obaid Ullah Hamzah Islamic Waz: গবেষণামুলক জ্ঞানগর্ব আলোচনা দ্বীনের শিক্ষার গুরুত্Record Level: Sumaiya TV সুপ্রিয় দর্শক → ইসলাম সম্পর...

Photos from As-Suffah Foundation's post 04/03/2023

১৪৪৩/১৪৪৪ হিজরী মোতাবেক ২০২২/ ২০২৩ শিক্ষাবর্ষের বার্ষিক পরীক্ষা।

Photos from As-Suffah Foundation's post 02/03/2023

পানি...
বিশুদ্ধ পানি...
জীবনের অপরিহার্য একটি বিষয়। সুপেয় বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা আল্লাহ তুমি করে দাও।

আমাদের সহযোগীদের অন্যতম দু'জন।
তাদের আল্লাহ ভালো রাখুন।

02/03/2023

মাটির উপরে
যতটা ভালো কাজ করবেন মাটির নিচে
ততটাই ভালো থাকবেন।
As-Suffah Foundation

Photos from As-Suffah Foundation's post 01/03/2023

০২/০৩/২০২৩ । রোজ বৃহস্পতিবার।
১৪৪৩/১৪৪৪ হিজরী মোতাবেক ২০২২/২০২৩ শিক্ষাবর্ষের বার্ষিক পরীক্ষা শুরু হচ্ছে।
সকল বিভাগে একসাথে। আজ প্রবেশপত্র হাতে পেয়ে ওরা সবাই আনন্দিত।
তোমরা বড় হও। জ্ঞানীগুণী হও।
গোটা উম্মাহ কিন্তু তোমাদের অপেক্ষায়......

পরীক্ষা শেষে ০৯/০৩/২০২৩ থাকছে আনন্দ ভ্রমণ।

Photos from As-Suffah Foundation's post 28/02/2023

ভালো কিছুর জন্যই নিত্য দিন পথ চলা।
সবার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় কাজ দ্রুতই এগুচ্ছে।
আলহামদুলিল্লাহ

22/02/2023

কওমি মাদরাসা ঐশী চেতনা ও বিশ্বাসের বাতিঘর।
হেরা গুহায় রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ওপর নাজিলকৃত যে নুর আসহাবে সুফ্ফার মাঝে বণ্টন হয়েছিল, বক্ষমান কওমি মাদরাসা হচ্ছে সে নুর অর্থাৎ ইলমের ধারক-বাহক।
কওমি মাদরাসায় রাত-দিন তাওহিদ ও রিসালাতের সুমহান বাণী উচ্চারিত হয়।
আলহামদুলিল্লাহ, এ মাদরাসাগুলোতে এক এক করে হাতে-কলমে চারিত্রিক নৈতিকতার অর্জনীয় ও বর্জনীয় সিফাতগুলোর বাস্তব প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

21/02/2023

মানুষ চেষ্টা করে। আল্লাহ তায়ালা পূর্ণতা দেন, সফলতা দান করেন। জীবনের সব অর্জন প্রাপ্তিতে আল্লাহ তায়ালার তাওফিক সবার একান্ত সঙ্গী।
তাই সব অর্জনের পর বান্দার কর্তব্য হলো আল্লাহ তায়ালার শুকরিয়া আদায় বা কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করা।

রবের দান ও দয়া তো অপরিসীম।
বান্দার কি সাধ্য আছে মালিকের সেই অফুরন্ত দান ও দয়ার বিন্দুমাত্র শোকর আদায়ের ?
আল্লাহ! বান্দার অক্ষমতা ক্ষমা করো। তোমার কৃপা ও অনুগ্রহ আরও বাড়িয়ে দাও।
আলহামদুলিল্লাহ! আলহামদুলিল্লাহ!!
আল্লাহুম্মা লাকাল হামদু কুল্লুহু!
আল্লাহুমা লাকাশ শুকরু কুল্লুহু!
শুকরিয়া ও কৃতজ্ঞতা আদায়ের ফলে আল্লাহ তায়ালা জীবনে আরও বেশি সফলতা দান করেন।

21/02/2023

মালিক!
তুমি জান্নাতে তোমার কাছে আমার
একটি ঘর বানিয়ে দিও।

20/02/2023

কোনও দ্বীনি মারকায প্রতিষ্ঠায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাওয়া যে কোনো ব্যক্তির জন্যই আল্লাহ জাল্লা শানুহুর বিরাট মেহেরবানী।

As-Suffah Foundation

আল্লাহ তাআলা আমাদের অংশগ্রহণের তাওফীক দান করুন। আমীন।

Want your school to be the top-listed School/college in Rajshahi?

Click here to claim your Sponsored Listing.

Videos (show all)

A humble effort to preserve the historic and blessed heritage of our beloved elders.....May Allah grant them and us lowl...
কওমি মাদরাসা ঐশী চেতনা ও বিশ্বাসের বাতিঘর।হেরা গুহায় রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ওপর নাজিলকৃত যে নুর আ...
মানুষ চেষ্টা করে। আল্লাহ তায়ালা পূর্ণতা দেন, সফলতা দান করেন। জীবনের সব অর্জন প্রাপ্তিতে আল্লাহ তায়ালার তাওফিক সবার একান্...
মালিক! তুমি জান্নাতে তোমার কাছে আমারএকটি ঘর বানিয়ে দিও।
কোনও দ্বীনি মারকায প্রতিষ্ঠায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাওয়া যে কোনো ব্যক্তির জন্যই আল্লাহ জাল্লা শানুহুর বিরাট মেহেরবানী।As-Su...
মসজিদ নির্মাণে সওয়াব মেলে অনন্তকাল।মসজিদ নির্মাণ এমন একটি পুণ্যময় কাজ, যার সওয়াব মৃত্যুর পরও অব্যাহত থাকে।তাই তো পৃথিবীজ...
একটি দরস বাড়ি হতে যাচ্ছে। আলহামদুলিল্লাহ আসুন দেখুন এবং পাশে থাকুন।
সকল প্রশংসা মহান মালিকের। তিনি ব্যতীত কোনো ইলাহ নেই। তাঁর নিকটেই আমরা সাহায্য চাই। তাঁর হুকুমেই এগিয়ে যায় দীনের কাফেলা। ...
নতুন করে বলার কিছু নেই। .তুর্কিয়ে এবং সিরিয়ায় কী ভয়াবহভাবে পৃথিবীর বুক কেঁপে উঠেছে, তা আমাদের সকলের সামনে। সর্বশেষ ফিতনা...
বেইজগুলো ধারণ করবে আল্লাহর ঘর, ইলম ও তালিবদের ভার। কত সৌভাগ্যবান তোমরা! উম্মাহর বিনির্মাণে উম্মাহমুখী হওয়া শর্ত। আপনাদের...

Location

Category

Telephone

Address


Terokhardia College Para
Rajshahi
Other Education in Rajshahi (show all)
Rajshahi Collegiate School Rajshahi Collegiate School
Shaheb Bazar
Rajshahi, 6000

First "modern" school in Bangladesh

IEEE RUET Student Branch IEEE RUET Student Branch
Rajshahi University Of Engineering & Technology
Rajshahi, 6204

IEEE RUET Student Branch is one of the dynamic student branches of IEEE BDS under IEEE Region 10. An

English World English World
Rajshahi

This is an English learning platform.

Engineering and Survey Institute, Rajshahi Engineering and Survey Institute, Rajshahi
Rajshahi, SAPURA-6203

Welcome students. Keep touch with us.

Rakib's English Care Rakib's English Care
Binodpur Bazar
Rajshahi, 6206

Assalamu Alaikum Warahmatullah. Welcome to Rakib's English Care page. Almost all of us have fear and

Dharampur College Dharampur College
Rajshahi

Official page for online activities of Dharampur College

Sahin’s Chemistry Sahin’s Chemistry
Nafi Tower 2nd Floor(In Front Of City College)
Rajshahi

Imran Math Care -IMC Imran Math Care -IMC
Rajshahi, 6100

Welcome everyone to our page. This is a very important page for all classes. We hope you all find

Best One Varsity & Nursing Admission Coaching Best One Varsity & Nursing Admission Coaching
Rajshahi, 6200

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কোচিং শুধুমাত্র মানবিক বিভাগ (খ+ঘ)। নার্সিং ভর্তি কোচিং ডিপ্লোমা ও মিডওয়াইফারি।

Dreamer IT School Dreamer IT School
Rajshahi
Rajshahi, 6340

Since in 2021 Biggest Freelancing Campaign Visit: https://dreameritschool.com Contact Us: 01305750206

IQRA Private Center IQRA Private Center
পুরাতন কৃষি ব্যাংক ভবন, খড়খড়ি বাইপাস, মতিহার, রাজশাহী।
Rajshahi, 6204