Sreemangal Govt. College

Hello Everyone

We created that page back in 2011 for providing information regarding our colleges. But time made us apart.

And now we are working around the world. So, it's hard to find any relative information now.

Operating as usual

01/09/2019

প্রথমত, এই পেজটা অফিশিয়াল পেজ না। ২০১০ এ আমরা যখন ভর্তি হই কলেজে তখনকার সময়ে খুলা হয় পেজটি।

সময়ের বিবর্তনে পেজের এডমিনগন দেশের একেক প্রান্তে নিজ নিজ শিক্ষা জীবনের শেষ প্রান্তে বা চাকরি জীবনে।

অনেকেই পেজে অনেক কিছু জানতে চায়। আমাদের দুর্ভাগ্য আমরা অনেকের প্রশ্নের উত্তর দিতে পারি না।

আমরা চেষ্টা করবো কলেজের দায়িত্বে আছেন এমন কাউকে পরবর্তীতে পেজের এডমিন প্যানেলের আনার।

আপাততো, অনেকে যেহেতু আমাদের কাছ থেকে সাহায্য চেয়েও পান নি আমরা আমাদের অনিচ্ছাকৃত এই কাজের জন্য দুঃখিত।

ভালো থাকুক প্রতিটা মানুষ। ভালো থাকুক এ কলেজের সকল ছাত্র ছাত্রী এবং তাদের পরিবার।

Timeline photos 12/08/2018

Campus♥♥

Photos from Sreemangal Govt. College's post 27/07/2018

Campus♥

19/07/2018

২০১৮ সালে শ্রীমংগল সরকারি কলেজের প্রাপ্ত রেজাল্ট-

INST: 129783 - SREEMANGAL GOVT. চোল্লেগে

BUSINESS STUDIES:
PASSED=211;
NOT PASSED=81;

HUMANITIES:
PASSED=348;
NOT PASSED=249;

SCIENCE:
PASSED=154;

Total GPA5=33

21/02/2018

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদদের প্রতি জানাই বিনম্র শ্রদ্ধা ও ভালবাসা 💜💜💜

Timeline photos 27/10/2017

শ্রীমংগল সরকারি কলেজের নির্বাচনী পরীক্ষার রুটিন☺☺☺

01/09/2017

A belated Eid Mubarak 2 all💜💜🌙

23/07/2017

2017 :Top 20 College in Bangladesh.
1. scored the highest 98.04 points under the ranking system of the inter-education board standard – which is based on the students, pass rate, and GPA 5 score.
2. Rangpur Cantonment Public School and College under the Dinajpur board with 96.23 points.
3. Narsinghdi’s Abul Quader Molla City College came second in the list of best college with 95.88 points. All its 388 examinees bagged GPA 5.
4. Rajshahi College, Boalia was adjudged the fourth best college in Bangladesh with 95.18 points.
5. Dhaka’s Adamjee Cantonment College is fifth position on the top 20 list with 94.99 points.
6. National Ideal College, Khilgaon secured the sixth place with 94.42 points
7. Viquarunnisa Noon College’s Raman branch came seventh with 93.09
8. Dhaka’s Notre Dame College and Demra’s Shamsul Haque Khan School & College jointly keep the eight positions with 93.04 points.
9. Jalalabad Cantonment Public School & College was adjudged in ninth with scored 92.96 points
10. Milestone College , Uttara with 92.62 points.
11. Mahbubur Rahman Mollah College, Demra, with 92.12 points.
12. King’s College, Gulshan, Dhaka 91.29 points.
13. Cambrian College, Gulshan, Dhaka 91.09 points.
14. Holy Cross College, Tejgaon, Dhaka 91.04 points.
15. Mirzapur Cadet College, Mirzapur, 91.00 points.
16. Dhaka City College, Dhanmondi, Dhaka 90.85 points.
17. Ideal School And College, Motijheel, Dhaka 90.36 points.
18. S O S Hermann Gmeiner College, Mirpur, Dhaka 90.33 points.
19. Residential Model College, Mohammadpur, Dhaka 89.68 points.
20. Mymensingh Girls’ Cadet College, Mymensingh, Mymensingh 89.43 points.

23/07/2017

শ্রীমঙ্গলে ২০১৭ সালের এইচ এস সি পরীক্ষার রেজাল্ট---

১. শ্রীমঙ্গল সরকারি কলেজঃ

শ্রীমঙ্গল সরকারি কলেজে থেকে এইচ এসসি পরীক্ষা দিয়েছিল ১১৪৩ জন, এর মধ্যে পাশ করেছে ১০৩০ জন। জিপিএ ফাইভ পেয়েছে ১২ জন। পাশের হার শতকরা ৯০.১১%।

২. দ্যা বাডস রেসিঃ মডেল স্কুল এন্ড কলেজঃ

শ্রীমঙ্গলে দ্যা বার্ডস রেসিঃ মডেল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এবারের এইচএসসি পরীক্ষ দিয়েছিল ১২২ জন। পাশ করেছে -১২০ জন, জিপিএ ফাইভ পেয়েছে ১জন।পাশের হার ৯৮.০৪%।

৩. দ্বারিকা পাল মহিলা ডিগ্রি কলেজ ঃ

শ্রীমঙ্গল দ্বরিকা পাল মহিলা ডিগ্রি কলেজ থেকে এইচ এস সি পরীক্ষা দিয়েছিল ২৮৩ জন। এর মধ্যে পাশ করেছে ১৯৫ জন। পাশের ৬৮.৯%।

৪. উপাধক্ষ্য আব্দুস শহীদ কলেজ ঃ

শ্রীমঙ্গল উপাধক্ষ্য আব্দুস শহীদ কলেজ থেকে এইচ এস সি পরীক্ষা দিয়েছিল ৩৬৫ জন। এর মধ্যে পাশ করেছে ১৩৬ জন। পাশের হার ৩৮.২০%।

৫. সিন্দুরখান আব্দুল ওয়াব স্কুল এন্ড কলেজে ঃ

শ্রীমঙ্গলে সিন্দুরখান আব্দুল ওয়াব স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এইচ এস সি পরীক্ষার্থী ছিল ৪২ জন। পাশ করেছে ১৮ জন। পাশের হার ৪২.৮৬%।

৬. রাজঘাট রানার স্কুল এন্ড কলেজ ঃ

শ্রীমঙ্গলে রাজঘাট রানার স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এইচ এস সি পরীক্ষা দিয়েছিল ৩৬ জন। পাশ করেছে ৯ জন। পাশের হার শতকরা ২৫%।

Timeline photos 06/07/2017

জরুরী বিজ্ঞপ্তি🙌🙌🙌
Game on👍👍👍

14/04/2017

সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা😍😍😍😍😍💜💜

05/04/2017

HSC - পরিক্ষা ২০১৭ -

রুটিন

বিভাগ - মানবিক।

:

(০১) বাংলা ১ম -

০২/০৪/২০১৭

(০২) বাংলা ২য় -

০৪/০৪/১৬

(০৩) ইংরেজি ১ম -

০৬/০৪/১৭;

(০৪) ইংরেজি ২য় -

০৮/০৪/১৭

(০৫) আইসিটি (ICT) -

১০/০৪/১৭

(০৬) পৌরনীতি ১ম -

১২/০৪/১৭

(০৭) পৌরনীতি ২য় -

১৫/০৪/১৭

(০৮) অর্থনীতি ১ম -

২৭/০৪/১৭

(০৯) অর্থনীতি ২য় -

২৯/০৪/১৭

(১০) ইতিহাস ১ম -

৩০/০৪/১৭

(১১) ইতিহাস ২য় -

০২/০৫/১৭

(১২) যুক্তিবিদ্যা ১ম -

০৩/০৫/১৭

(১৩) যুক্তিবিদ্যা ২য় -

০৪/০৫/১৭

:

[বিঃদ্রঃ- সবগুলো

পরিক্ষা সকাল

(১০-১.০০) টা পর্যন্ত

অনুষ্ঠিত হবে

অর্থনীতি পরিক্ষার

আগে ১২ দিন বন্ধ

কিন্তু ইতিহাস ১ম

এবং যুক্তিবিদ্যা (১ম

ও ২য়) এর পূর্বে কোন

বন্ধ নাই]

26/03/2017

সবাইকে মহান স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা😍

Timeline photos 08/10/2016

সবাইকে জানাই শারদীয় শুভেচ্ছা
ভাল কাটুক এবারের পুজো পরিবারের সাথে

28/08/2016

আজ থেকে সরকারি কলেজে শুরু হল সাংস্কৃতি অনুষ্ঠান 👌

12/07/2016

যারা যারা বি.এন.সি.সি তে ভর্তি হতে ইচ্ছুক তারা আগামিকাল কলেজে দুপুর ১২ টায় মোঃ আমির উদ্দিন সারের সাথে সাক্ষাৎ করুন
ধন্যবাদ

Timeline photos 06/07/2016
06/07/2016

Eid Mubarak To All..

01/07/2016

আজ শ্রীমংগল সরকারি কলেজের জন্মদিন।
so,Happy Birthday Srimangol Govt College...:-)

02/03/2016

কাল থেকে কলেজে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা _২০১৬ শুরু হবে।

15/12/2015

সবাই কে মহান বিজয় দিবস এর শুভেচ্ছা

Photos from Sreemangal Govt. College's post 20/03/2015

বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা 2015 এর কিছু মুহূর্ত

17/03/2015

Agami kalk19 march college e barshik kriyra protijugita anushthito hote jacche.so chatrochatrider protijugitay ongshogrohoner jonno amontron kora gelo .

25/10/2014

*নোটিশ বোর্ড*
*************************
।।শান্তি ও উন্নয়নে স্কাউটিং -¥- আলোকিত
জীবনের জন্য রোভারিং।।
এতদ্বারা "শ্রীমঙ্গল সরকারি কলেজ"-এ একাদশ
শ্রেণি, অনার্স ও ডিগ্রী ১ম বর্ষে অধ্যয়নরত সকল
ছাত্র-ছাত্রীদের অবগতির
জন্যে জানানো যাচ্ছে যে, 'শ্রীমঙ্গল
সরকারি কলেজ রোভার স্কাউট গ্রুপ'-এর নতুন
রোভার ও গার্ল ইন রোভারদের ভর্তি কার্যক্রম
ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে।।
আপনি/আপনারাও যদি 'শ্রীমঙ্গল সরকারি কলেজ
রোভার স্কাউট গ্রুপ' এর সদস্য হতে ইচ্ছুক হোন,
তাহলে আগামী সোমবার বেলা ১০:৩০
মিনিটে শ্রীমঙ্গল সরকারি কলেজ-এর
লাইব্রেরী কক্ষ-২ এ উপস্থিত থাকার
জন্যে নির্দেশ দেওয়া গেলো!!

19/10/2014

****মাস্ট রিড****
এই মুহূর্তে আপনার সবচেয়ে বড় সমস্যা কী?
প্রশ্নটা করা হইলেই আপ্নে আকাশ পাতাল
ভাবতে শুরু করবেন। মানুষের নানাবিধ
সমস্যা থাকে। আর বাঙালী হইলে তো কথাই
নাই। সমস্যার অন্ত নাই। আচ্ছা এই
মুহূর্তে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সমস্যা কী?
আই মিন দেশের মেইন কনসার্ন কী?
লতিফ সিদ্দিকি? উনি কবে দেশে আসবেন
বা আদৌ আসবেন কি না? নাকি- পিয়াস
করিমের মরদেহ? নাকি পলিটিকাল ক্রাইসিস?
কোনটা?
অবাক হইয়া লক্ষ্য করলাম- এতো বড়
ঘটনা ঘইটা যাইতেছে পৃথিবীতে, অথচ দেশের
প্রধান পত্রিকার প্রথম
পেইজে এইটা নিয়া কোনো নিউজ হয় না।
নিউজ হয় ভিতরের পাতায়, তবু ফ্রন্ট
পেইজে আসে না। আন্তর্জাতিক
জরুরী অবস্থা কি এরা কেউ বোঝে না?
ইবোলা ভাইরাস মোকাবেলায় বাংলাদেশের
প্রস্তুতি কতোটুকু?
বাংলাদেশের প্রস্তুতি বলতে গেলে- নাই।
একেবারেই কিছু নাই। ইবোলা এর মতো জিনিস
এই দেশে ঢুকলে এই দেশ খালি করে দিতে তার
বেশি সময় লাগবে না।
WHO আন্তর্জাতিক
জরুরী অবস্থা ঘোষণা করছে ঠিক; নানা রকম
সতর্কতাও নিছে অনেক দেশ। কিন্তু
বাংলাদেশের অবস্থা তো অন্য দেশের মতোও
না। বাংলাদেশের পপুলেশন ডেনসিটি অনেক
বেশি। যে কোনো ডিজিজ
আউটব্রেকে বাংলাদেশ তেমন
কোনো স্ট্যান্ডার্ড ডিজিজ কন্ট্রোল মেজারও
নিতে পারে না। সেই
হিসেবে বাংলাদেশের সতর্ক হওয়া তো উচিৎ
ছিলো অন্য সব সব দেশের থেকে ১০০ গুণ বেশি।
অথচ এইদেশের মানুষ এখন পর্যন্ত
ভালো করে জানেই নাই ইবোলা সম্পর্কে।
লতিফ সিদ্দিকি কী কইলো, আর পিয়াস করিমের
মরদেহ কই গেছে, এইসবের চিন্তায়ই
তো বুদ্ধিজীবীদের ঘুম নাই।
অদৃশ্য শত্রুর
সাথে মোকাবেলা করা এতো সোজা না। এখন
পর্যন্ত ইবোলা এর কোনো ভ্যাকসিন বের হয়
নাই। রিপোর্টেড নাম্বার অফ কেস প্রায় ৯০০০।
তার মধ্যে মারা গেছে প্রায় ৫০০০।
ইবোলা পাওয়া গেছে কঙ্গো, গিনি,
লাইবেরিয়া, নাইজেরিয়া, সেনেগাল,
সিয়েরা লিওন, স্পেন, ইউএসএ তে।
সাস্পেক্টেড ইম্পোরটেড কেসের দেশগুলোর
নামের লিস্ট আরও লম্বা। তার
মাঝে সবচেয়ে বড় ঝামেলার কথা- সব
দেশে ইবোলা এর কেস ডিটেকশন পারফেক্ট
না। সব দেশে ইবোলা টেস্ট চালু হইছে কি না,
সেই দেশেও আমার যথেষ্ট সন্দেহ আছে। আমার
জানামতে,
বাংলাদেশে আফ্রিকা থেকে আগত
কয়েকজনকে কোনো রকম
পরীক্ষা নিরীক্ষা ছাড়াই ঢুকানো হইছে। তার
মাঝে একজন বর্তমানে খুলনায় অবস্থান
করতেছেন। এবং আমার জানা মতে খুলনা সদর
হাসপাতাল থেকে এক ধরণের সতর্কবার্তাও
প্রচার করা হইছে।
ইবোলা কেন এতো ভয়ংকর?
ইবোলা কীভাবে ছড়ায়?
ইবোলা প্রথম মানুষের মাঝে সংক্রমিত
হইছিলো বাদুড় থেকে। এই তথ্য এখন
ভুইলা যাইতে পারেন। এখন ইবোলা ছড়ায় মানুষ
থেকে মানুষে। এবং ছড়ানোর উপায়টাও ভয়াবহ।
অতি সংক্রামক। মানুষের শরীরের
যে কোনো ধরণের ফ্লুয়িড এবং সিক্রেশন।
সর্দি, কফ, লালা থেকে শুরু করে ঘাম। রক্ত, বীর্য।
ব্যবহৃত জিনিসপত্র, পোশাক। এই কারণে সংক্রমণ
অনেক বেশি।
শরীরে কাটা ছেড়া থাকলে সেটা আক্রান্ত
ব্যক্তির সংস্পর্শে আসলে সেখান
থেকে ভাইরাস ঢুকতে পারে।
কাছের মানুষজন, পরিবারের লোকজন, চিকিৎসক,
নার্সদের আক্রান্ত হবার
সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশী।
কাছাকাছি যাওয়া ছাড়া সেবা শুশ্রূষা করা যায়?
এখন বাংলাদেশের অবস্থাটা একবার
কল্পনা করেন। কী মনে হয়? ইবোলা এই
দেশে ঢুকলে নিয়ন্ত্রণ সম্ভব?
আরও বড় সমস্যার কথা হইতেছে- আক্রান্ত হওয়ার
পর সর্বোচ্চ ২১ দিন পর্যন্ত এটা সুপ্ত অবস্থায়
থাকতে পারে। এই সময়ের
মধ্যে আপনি রোগীকে দেখবেন বেমালুম
ভালো মানুষ; আবার উপসর্গ দেখেও খুব
বেশী বোঝার উপায় নেই। কারণ উপসর্গ অন্যান্য
রোগের মতোই। জ্বর, শরীর ব্যাথা, গলা ব্যাথা-
কাশি। মাঝে মাঝে বমি- ডায়রিয়া। সব
শেষে পেট ব্যাথা। র্যাশ।
প্রিয়ড অফ ইনফেক্টিভিটি- মানে, কতোদিন
পর্যন্ত একজন আক্রান্ত ব্যক্তির শরীর থেকে অন্য
কেউ আক্রান্ত হতে পারে, সেইটা এখনও
নিশ্চিত না। বলা হয়, উপসর্গ শুরু হওয়া থেকে প্রায়
৭ সপ্তাহ পর্যন্ত এই ভাইরাস মানুষের
বীর্যে থাকতে পারে। যদি বাইচা যায় কেউ,
তবু।
আমি ভাই বাঙালী হিসেবে যতটুকু বুঝি-
ইবোলা যদি কোনোভাবে বাংলাদেশ পর্যন্ত
পৌছায়, তাইলে বাংলাদেশের
অবস্থা কতোটা ভয়াবহ হবে, এটা চিন্তাও
করতে পারবেন না। শুধু বাংলাদেশ না,
পুরো পৃথিবীই ভয়ংকর এক বিপর্যয়ের
মুখে আছে এখনই। WHO এর কর্মকর্তাদের ঘুম হারাম
হইয়া গেছে। ইবোলাকে এখনই কন্ট্রোল
না করা গেলে মানবজাতির ইতিহাস আবার নতুন
কইরা লেখা লাগতে পারে।
ভ্যাকসিন আবিষ্কার না হওয়া পর্যন্ত তাই
বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশী নজর
রাখা প্রয়োজন দেশে যে কোনো ফরেইন
এন্ট্রিতে। প্রয়োজন
বোধে যারা আফ্রিকা থেকে আসবেন, তাদের
২১ দিন কোয়ারান্টাইনে রাখা আবশ্যিক
বলে মনে হয়। প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধ
অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। পুঙ্খানুপুঙ্খ
ভাবে এটা করা সম্ভব হলে লাখ লাখ প্রাণ
বাইচা যাবে। আর উল্টোটা হইলে কি হবে,
সেইটা বলতে চাইতেছি না। তখন শত
আহাজারিতেও লাভ নাই।
WHO আন্তর্জাতিক ট্রান্সপোর্ট এবং ফ্লাইটের
উপরে নানা ধরণের সতর্ক
ব্যবস্থা জারি করছে ঠিক। তাদের
অর্গানাইজেশনে অনেক ব্রেনি ব্রেনি লোক
আছে, অনেক পলিসি মেকার আছে। নতুন
কইরা তাদের বুদ্ধি দেওয়াটা বোকামি। তবু বলি-
ইট ইজ দ্যা হাই
টাইম টু মেইক এ ফিল্টার জোন। এফেক্টেড
দেশগুলা থেকে যারাই বাইর হবে, তাদের
একটা নির্দিষ্ট সময় অন্য কোথাও রাখা হোক।
ধরা যাক, সেটা আলাস্কা। মনুষ্যবিহীন জায়গা।
সেখানে মনিটরিং টিম রাখা হোক, ডাক্তার
নার্স,
স্টাফ, সবকিছুই রাখা হোক। WHO এর ফিল্ট্রেশন
ইউনিট রাখা হোক। তারপর ২১ দিন পর সবকিছু ঠিক
থাকলে যার যার
গন্তব্যে পৌঁছাইয়া দেওয়া হোক।
কারণ এটা একটা পুরো দেশের জীবন-মরণ
ঝুকি হইয়া যাইতেছে দিন দিন।
সরকারীভাবে এই দেশেও অনেক জায়গায়
ইবোলার
জন্য আলাদা আলাদা ইউনিট খোলা হইছে। কিন্তু
সেইসব ব্যবস্থা দিয়া এতো ভয়ংকর দুর্যোগ
কীভাবে ম্যানেজ করা যাবে,
সেইটা নিয়া আরও
ভাবা প্রয়োজন। তবে এন্ট্রিতে কড়াকড়ি আর
স্ট্যান্ডার্ড টেস্ট
ব্যবস্থা থাকলে বাংলাদেশকে রক্ষা করা সম্ভব।
মিডিয়ার সাহায্য লাগবে, মানুষকে সতর্ক
করতে হবে। যদিও হেলথ সেক্টরের মানুষদের
ইবোলার
উপর কিছু ট্রেনিং দেয়া হইতেছে, সেই
ট্রেনিং এখনও পাই নাই।
এমন ভয়ংকর দিন বাংলাদেশে না আসুক।
হে খোদা,
তুমি পৃথিবীরে বাঁচাও।

17/10/2014

তোমরা যারা সিলেট বিরোধী....
(সিলেটকে সংক্ষেপে সবার
সামনে তুলে ধরার ক্ষুদ্র প্রয়াস।সবার রেসপন্স
আশা করছি)
গত বছরেরর কথা।বিপিএল চলছে।খেলা ছিল
সিলেট রয়ালস এবং বরিশাল বানার্সের।ক্লাস
ে স্যার প্রশ্ন করলেন,সিলেটের সমর্থক কারা?
আমি লম্বা করে হাত তুললাম।
-বরিশালের সাপোর্টার কারা?
বাকি সবাই একযোগে হাত তুলল।
স্যার আমাকে বললেন,তুমি সিলেটি?
-জ্বি স্যার।
-এ জন্যই সিলেট সাপোর্ট করছ।
আমি আশ্চর্য হলাম এবং একটা জিনিস বুঝলাম
সিলেটি না হলে সিলেট সাপোর্ট
করা যাবেনা।
সেমি ফাইনালের দিন একই অবস্থা।মেসের
দশজনের মাঝে নয়জনই ঢাকাকে সাপোর্ট করল।
আমি একাই সিলেট।অথচ ঢাকা বিভাগের ছিল
মাত্র তিনজন।
যে কোন তর্কে সবাই নিজ এলাকার
পক্ষে না গেলেও সিলেটের
বিপক্ষে যাবে এটা নিশ্চিত।
কিন্তু কেন?
জাস্ট ঈর্ষা।
কেন ঈর্ষা?
আমরা সবাই জানি।আসুন তবু আরেকবার
জেনে নিই।
প্রথমেই নামকরণে আসি।
সিলেটের নামকরনের ইতিহাস অনেক প্রসিদ্ধ।
হিন্দু মিথ মতে সতী সীতার কাটা হস্ত
এখানে এসে পড়ে তাই এর নাম শ্রী হস্ত ছিল।
খ্রিষ্টপূর্ব ৪র্থ শতকে এরিয়ান
গ্রন্থে সিলেটকে সিরিওট নামে অভিহত
করা হয়। ২য় খ্রিষ্টাব্দে এলিয়েন
গ্রন্থে সিরটে এবং পেরিপ্লাস অব দ্য
এরিথ্রিয়ান গ্রন্থে সিসটে বলা হয়।
৬৪০ সালে বিখ্যাত হিউয়েন
সাং সিলেটকে শিলিচল
হিসেবে বর্ণনা করেন।বখতিয়ার
খলজি বাংলা বিজয়ের পর সিলেটের নাম
দেয়া হয় সিলাহেট।
১৩০৩ সালে হযরত শাহ জালাল সিলেট বিজয়ের
পর তাঁর নামানুসারে নাম জালালাবাদ করা হয়।
এভাবেই নানা বিবর্তের মাধ্যমে এ পবিত্র ভূমির
নাম সিলেট হয়েছে।(তথ্য সূত্রঃJournal of the Royal
Aiastic Society,part 1 by Yuan Chwang)
সিলেটের আরেকটি অনন্য বৈশিষ্ট্য
সিলেটি ভাষা।
বাংলাদেশে অনেকগুলো উপভাষা থাকলেও
সিলেটেরই রয়েছে নিজস্ব লিখন
পদ্ধতি "নাগরী"।(এ ব্যাপারে বিস্তারিত
লিখে আরেকটি পোস্ট অতীতে করেছি।)
যারা সিলেটি ভাষা নিয়ে নাক সিটকান
তাদের বলছি,শুধু নাগরী সাহিত্যের উপর
গবেষণা করে ৩ জন ডক্টরেট ডিগ্রি পান।
তাঁরা হলেন ড.গোলাম কাদির,ড.মুছব্বির
ভূইয়া এবং ড.মুহাম্মদ সাদিক।
আবার অনেকে বলেন সিলেটিরা সাহিত্যচর্চায়
দুর্বল।তাদের জন্য তথ্য,ইতিহাসবিদ সৈয়দ
মোস্তফা কামালের মতে সিলেটই
হচ্ছে উপমহাদেশের সাহিত্যের পথপ্রদর্শক।কারণ
সিলেটিরা সাতটি ভিন্ন ভাষায়
সাহিত্যচর্চা করেছে যা ইতিহাসে বিরল।শুধু
সাহিত্যচর্চার জন্য তারা একটি লিখিত
ভাষা আবিষ্কার করেছে।
আমাদের হয়ত রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
নেই,তবে মুজতবা আলীর মত সাহিত্যিক আছেন।
মহাভারত এর প্রথম বাংলা অনুবাদকও সিলেটের-
মহাকবি সঞ্চয়।
তাছাড়া কে না জানে হুমায়ূন আহমেদ
এবং জাফর ইকবালের সাহিত্যচর্চার
পেছনে সিলেটের কতটুকু প্রভাব।
রাজনীতির প্রসঙ্গে আসি।
সিলেটের রাজনীতি সব সময়ই শান্তির।
এখানে আ.লীগ,বিএনপি সমযোজাতা করে কর্মসূচি পালন
করে।যুদ্ধপরাধ নিয়ে অনেক বিতর্ক।আমি শুধু
একটা কথাই বলব,অনেক শীর্ষস্থানীয়
নেতা থাকলে সিলেটের কোন জামায়াত
নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়নি।
আপনি অর্থমন্ত্রীকে যতই রাবিশ বলুন,শি্যক্ষামন
্ত্রীকে যতই টাকলা বলুন,গত সরকারে যে ৪ জন
মন্ত্রীর সম্পদ কমেছে তাদের মধ্যে এ দুজন
অন্যতম।তারা কখনই মারমার বলে চেচাননা।
একবার একজন আমাকে বলেছিল সিলেটে আবুল
মাল আছে।আমি বলি,সিলেটের একজন আবুল
মালকেও
অর্থমন্ত্রী করা হয়,সিলেটিরা ছাড়া বাজেট
পেশ হয়না,তাহলে আসল মালদের
অবস্থা চিন্তা করেন।
আসুন এবার আসল মালদের পরিচয় দেই।
প্রথম বাংলাদেশী মার্কিন সিনেটর হাশিম
ক্লার্ক,প্রথম বাংলাদেশী বৃটিশ
এমপি রোশনারা আলী,হ্যামলেট শহরের মেয়র
আব্দুস সালিক,লুৎফর রহমান,মেয়র সাঈদ
আহমেদ,বৃটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার
চৌধুরী,রাণীর শেফ টমি মিয়া,লন্ডন কেন্দ্রীয়
মসজিদের ইমাম আজমল মাশরর,প্রথম মুসলিম
এবং প্রথম এশিয়ান হিসাবে হাউস অব
লর্ডসে বসা পোলা মিয়া,বারনেস
মিয়া এরা সবাই সিলেটি।
কয়েকদিন আগে একজন তরুণ
যাকে নিয়ে মিডিয়ায় ব্যাপক হইচই হয়,সাবেরুল
ইসলাম-বিশ্বের সেরা দশজন উদ্যক্তার একজন,তার
বাড়িও সিলেট।
বাংলাদেশে বোন মেরু রিপ্লেস
করে যিনি ইতিহাস গড়েছেন তিনিও
সিলেটের।
সিলেটের মানুষদের আঞ্চলিক
প্রীতি বেশি,তাই দেশপ্রেম কম এটা একটা কমন
অভিযোগ।
দেখুন,মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক সিলেটের,প্রথম
স্বাধীন হওয়া উপজেলা(জকিগঞ্জ)সিলেটের।
তাছাড়া আরোকটা ঐতিহাসিক
তথ্য,আমরা গণভোট
দিয়ে বাংলাদেশে এসেছি।চাইলে ভারতেও
যেতে পারতাম।এটা কি প্রমাণ করে?
আমাদের দেশপ্রেম কম?
আর স্বাধীন হওয়ার পর শুধু সিলেটের
একটা জায়গা (জকিগঞ্জ)নিয়েই ভারতের
সাথে যুদ্ধ করে সিলেটিরা বিজয় এনেছে।
আমাদের অভিনেতা,গায়ক নেই।তাই না?
সালমান শাহর নাম শুনছেন তো?
তার মত নায়ক আরেকটা আসবে বলে মনে হয়?
আর যে সুবীর নন্দীর গান শুনেনি সে গান
কি বুঝবেই না।
রুনা লায়লাকে তো বাংলাদেশের একমাত্র
আন্তর্জাতিক মানের শিল্পী হিসাবে ধরা হয়।
আর গুডলাক বাংলাদেশ খ্যাত শুভ্রদেবের নাম
শুনেনি এমন লোক বিরল।
সিলেটের আব্দুল করিম,হাসন
রাজা,রাধা রমন,শিতালং শাহ যত গান
লিখেছেন আগামী একহাজার বছরেও তত গানন
কোন অঞ্চলের কেউ লিখতে পারবে না।
আমাদের শিবলী মোহাম্মদের মত
নৃত্যশিল্পী নাই তবে আকরাম খানের মত নৃত্য
শিল্পী আছে।এই ভদ্রলোক লন্ডন অলিম্পিকের
উদ্ভোধনী অনুষ্টানের নৃত্য পরিচালনা করেন।
ক্রিকেটে আমাদের সাকিব নাই তবে এনামুল
জুনিয়র আছে।তার কল্যানে বাংলাদেশ প্রথম
টেস্ট সিরিজ জয় করে।এছাড়া বাংলাদেশ
হ্যাট্রিক করা শেখানো,আইসিএল
মাতানো কাপালীকে কে চেনে না?
ফুটবলে কায়সার হামিদের নাম যে শুনেনি তার
ফুটবল জ্ঞান নিয়ে প্রশ্ন তুলা যায়।
আর দাবার কিংবদন্তী রাণী হামিদও আমাদের
সিলেটের।
আমাদের নোবেলজয়ী নেই কিন্তু একমাত্র নাইট
উপাধী প্রাপ্ত বাংলাদেশী ফজলে হাসান
আবেদ আছেন।
আমাদের হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী জাতিসংঘের
সাধারণ অধিবেশনের সাবেক সভাপতি।আর এই
কীর্তি কেউ গড়তে পারবে?
আর ইসলামিস্টরা তো সবাই সিলেটেরই।
বাংলাদেশের আলেম সমাজের বড় অংশই
সিলেটের।আপনি বলবেন,কই নাম তো শুনিনি।
আসলে তাঁরা রাজনীতি করেন না তো,তাই
জানেন না।তারপরও বাংলাদেশের জাতীয়
মসজিদের সবচেয়ে দীর্ঘ সময়ের
খতিব,অবিসাংবাদিত আলেম উবায়দুল
হককে এখনও মানুষ শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে।
সিলেটের প্রকৃতি,সিলেটের সম্পদ
তা নিয়ে নাই আলোচনা করলাম।
শেষ করব।
হযরত শাহজালাল (র.)
উড়ে এসে সিলেটে জুড়ে বসেননি।আরবের
মাটির সাথে সিলেটের মাটির মিল
আছে বলেই এসেছেন।
আমরা তাঁর উত্তরসূরী।
অতীতে একটা কথা ছিল
"শ্রীহট্টে মধ্যমা নাস্তি।"
মানে সিলেটের লোক হয় উত্তম নয় অধম।
মাঝামাঝি নেই।আর
আমরা তো জানি,মাঝামাঝিরাই
সমস্যা করে বেশি।
আমরা বিশ্বাস করি,দু একজন অধম ছাড়া আমরা সবাই
উত্তম।
পচনশীল রাজনীতির মাঝেও সিলেটের ফরিদ
গাজী,আব্দুস সামাদ আজাদ,সাইফুর রহমান
তাঁরা স্বমহীমায় উজ্জ্বল ছিলেন।
আমরা ১২৫৯৫.৯৫ বর্গকি.মি. এলাকার প্রায়
এককোটি মানুষ আমাদের
সিলেটকে গভীরভাবে ভালোবাসি।
আমরা সিলেট নিয়ে গর্ব করি।
আপনারা যারা সিলেট
নিয়ে বিরোধীতা করেন
তারা ভেবে দেখুন,আমরা যদি হবিগঞ্জ,সুনামগঞ
্জের সীমানায় বিদ্যুৎ গ্যাসের লাইন
কেটে দিয়ে,৯২%রেমিটেন্স
নিয়ে বাংলাদেশ থেকে আলদা হই
তাহলে কি খারাপ থাকব?
তবে আমরা আলাদা হবনা।কারণ এদেশ
ভালোবাসি বলেই গণভোট
দিয়ে এদেশে এসেছি।
সবশেষে একটা কথাই
বলি,জ্বি ভাইজান,আমি একজন গর্বিত সিলেটি।
যারা কষ্ট করে এ দীর্ঘ লেখা পড়েছেন
আপনাদের ধন্যবাদ।আর
আপনি সিলেটি হলে আপনার কাছ
থেকে শেয়ার আশা করছি।
তথ্যগত কোন ভুল থাকলে ধরিয়ে দেবেন প্লিজ।

13/09/2014

aj theke sreemangal govt clg e hsc porikharthider pre test exm suru hoieche....sokol porikharthi der roilo suvo kamona

07/09/2014

====================
==>অবশেষে শুভ-সমাপ্তি।।

"শ্রীমঙ্গল সরকারি কলেজ রোভার স্কাউট গ্রুপ" যে উদ্যোগটি নিয়েছিল, তা অবশেষে অনেক বাধা বিপত্তির পর সৃষ্টিকর্তার অশেষ রহমতে সুন্দর ভাবেই শেষ হলো।।

যে ১০জন রোভার গিয়ছিলো, তাঁরা তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করেছে।।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী, তাঁরা লালমনিরহাট এর কোলাঘাট গ্রামে ৫৭০+ বর্ন্যাতদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ ও বিনামূল্যে প্রাথমিক চিকিত্‍সা প্রদান করেন।।

আশা করি আগামী কয়েকদিন সেইসব লোকের কিছুটা হলেও কষ্ট লাঘব হবে।।

হ্যাঁ লাখ লাখ মানুষের সাহায্য করতে পারি নি তা ঠিক, সামর্থ্যও নেই বটে।। কিন্তু যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি।। সেই চেষ্টাতে কিছু মানুষের মুথে হাসি ফুটেছে, এই প্রাপ্তিটাই অনেক যা শারীরিক শ্রান্তিকে ছাপিয়ে মানসিক প্রশান্তি যোগ করেছে।।

আগামীকাল সেই ১০জন রোভাররা শ্রীমঙ্গল ফিরে আসবেন।। আপনাদের জন্যে শুভ কামনা, আপনাদের শুভ প্রত্যাগমন কামনা করছি।।

পরিশেষে বলবো, জয় হোক মানবতার।।

হ্যাপি স্কাউটিং।।

10/03/2014

বাংলাদেশে সিলেটিদের অবদানঃ

১. ৩৬০ আউলিয়া, শাহজালাল রহঃ, শাহপরান রহঃ পূণ্যভূমি সিলেট ।

২. ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের পুরোধা ব্যাক্তিত্বদের অন্যতম ছিলেন সিলেটের সন্তান বিপিন চন্দ্র পাল।

৩. ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে সেনাবাহিনীর সর্বাধিনায়ক ছিলেন সিলেটের সন্তান এম এ জি ওসমানী ।

৪. সিলেটি লন্ডন প্রবাসীরা বাংলা টাউন গঠন করে ব্রিটেনের বুকে গড়েছেন
এক টুকরো ছোট্ট বাংলাদেশ ।

৫. স্বাধীন বাংলাদেশের ধ্বংসপ্রাপ্ত অর্থনীতিকে জাগিয়ে তোলার রুপকার
সিলেটের সন্তান এম সাইফুর রহমান । সর্বাধিক সংখ্যক বাজেট ঘোষণা করেন তিনি।
সিলেটের আরও দুই কৃতি অর্থনীতিবিদ
শাহ এম এস কিবরিয়া ও আবুল মাল আব্দুল মুহিত।

৬. বাংলা সাহিত্যের যাদুকর সৈয়দ মুজতবা আলী, সিলেটের সন্তান।

৭. বাংলাদেশে নিযুক্ত একমাত্র ব্রিটিশ-বাংলাদেশী হাইকমিশনার ছিলেন সিলেটের সন্তান আনোয়ার চৌধুরি ।

৮. ব্রিটেনের পার্লামেন্টের প্রথম বাংলাদেশী এমপি সিলেটি বংশদ্ভূত রুশনারা আলী।

৯. আমেরিকার পার্লামেন্টের প্রথম বাংলাদেশী সিনেটর সিলেটি (বিয়ানীবাজার) বংশদ্ভূত হাসি্ম ক্লার্ক ।

১০. ব্রিটেনের টাওয়ার হ্যামলেটসের মেয়র সিলেটের সন্তান লুৎফুর রহমান ।

১১. একমাত্র বাংলাদেশী হিসেবে ব্রিটেনের রাণীর কাছ থেকে নাইট উপাধি নেন সিলেটের সন্তান স্যার ফজলে হাসান আবেদ।

১২. ব্রিটেনের রাণীর অফিশিয়াল শেফের দায়িত্ব কৃতিত্বের সাথে পালন করেছেন সিলেটের সন্তান টমি মিয়া ।

১৩. বিশ্বের সবচেয়ে বড় এনজিও সংস্থা ব্র্যাক এর প্রতিষ্ঠাতা সিলেটের সন্তান স্যার ফজলে হাসান আবেদ।

১৪. পৃথিবীর শ্রেষ্ঠজীন সাইন্টিস্টদের অন্যতম সিলেটের সন্তান ডঃ আবেদ ।

১৫. চিকিৎসা বিজ্ঞানী ফ্লোরা-ভাইরাসের আবিষ্কারক সায়মা আমিন সিলেটের (বিয়ানীবাজার) সন্তান ।

১৬. সিলেটিদের পাঠানো রেমিটেন্স গত ৪০ বছর ধরে রুগ্ন বাংলাদেশের অর্থনীতিকে বাঁচিয়ে রেখেছে ।

১৭. বাংলাদেশের সংসদ নির্বাচনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আসন সিলেট ১ আসন। বলা হয় এ আসনে নির্বাচিতের দলই সরকার গঠন করে ।

১৮. জাতিসংঘে প্রথম ও একমাত্র বাংলাদেশি স্পিকার সিলেটের সন্তান হুমায়ুন রশিদ।

১৯. বাংলাদেশের প্রথম চীফ অব প্রটোকল পাওয়া কূটনীতিক হলেন
সিলেটের সন্তান ফারুক চৌধুরী ।

১৫. বাংলা রেপ সংগীতের জনক সিলেটের সন্তান ফকির লাল মিয়া।

১৬. লন্ডন ওলিম্পিক ২০১২ তে অফিশিয়াল ফুড সার্ভ করার দায়িত্ব ছিল
লন্ডনে অবস্থিত সিলেটি রেস্টুরেন্টের।

১৭. বাংলাদেশের প্রথমটেস্ট জয়ের নায়ক সিলেটের সন্তান এনামুল হক জুনিয়র। বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম বল করেন সিলেটের সন্তান হাসিবুল হোসেন শান্ত। ভারতের বিপক্ষে প্রথম ওডিআই হান্ড্রেড করেন সিলেটের সন্তান অলক কাপালি।

১৮. বাংলাদেশের প্রথম আন্তর্জাতিক মানের সংগীত শীল্পি ধরা হয় সিলেটের সন্তান শুভ্র দেবকে।

১৯. সুবীর নন্দী, হাসন রাজা, শাহ আব্দুল করিম, রাধা রমন, দূরবীন
শাহ সকলেই সিলেটের সন্তান ।

২০. পর্যটনে বাংলাদেশের একমাত্র স্বকীয়তা ধরে রাখতে পারা ভূমি সিলেট।
সিলেটের চা, জলঢুপি-আনারস, কমলার খ্যাতি বিশ্বজোড়া।

আরও আছে। পরে লিখব। সিলেটিরা মাথা উঁচু করে বাঁচো। গর্ব করে বাঁচো।
সংগৃহীত-

17/02/2014

অ্যান্ড্রয়ডের আকর্ষণীয় দিকগুলোর একটি হলো- এর শক্তিশালী নিরাপত্তা ব্যবস্থা। তিন ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা আছে অ্যান্ড্রয়েডে- পিন লক, প্যাটার্ন লক ও পাসওয়ার্ড লক। এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় নিরাপত্তা পদ্ধতি হলো ‘প্যাটার্ন লক’।

প্যাটার্ন লক পদ্ধতিটির জনপ্রিয়তার মূল কারণ হলো একেবারে নতুন ধরনের ধারণা। এ পদ্ধতির মাধ্যমে আঙুলের ছোঁয়ায় নির্দিষ্ট ছক আঁকলেই খুলে যায় স্মার্টফোন।

কিন্তু কোনো কারণে যদি ছক ভুলে যান, তবেই সমস্যায় পড়তে হবে আপনাকে। ফোনটি ঠিকভাবে চালানোর জন্য প্রয়োজন হবে রিসেট করার। যে জন্য টাকাও খরচ করতে হতে পারে আপনাকে। কিন্তু ছোট্ট একটি পদ্ধতি জানা থাকলে আপনিও পারবেন লক খুলতে।

লক খুলতে যে কাজগুলো আপনাকে করতে হবে:

১. প্রথমে এক সাথে ভলিউম কি দু’টি এবং পাওয়ার বাটন একসাথে চেপে ধরুন, যতক্ষণ না ফোনটি চালু হয়। কোনো ডিভাইসের ক্ষেত্রে শুধুমাত্র ভলিউম কি’র আপ বা ডাউন বাটন চাপলেও এই পদ্ধতিটি কাজ করে।

২. ফোনটি চালু হওয়ার পর দেখবেন চারটি অপশন আসবে। সেগুলোর মধ্য থেকে রিসেট ফ্যাক্টরি সেটিংস- অপশনটি নির্বাচন করুন। এটি করার সময় অপশন নির্বাচনের জন্য ভলিউমের বাটনগুলো এবং অন-অফ করার বাটনটি ‘ওকে’ করার জন্য ব্যবহার করতে হবে ।

৩. এরপর ফোনটি রিস্টার্ট হওয়া পর্যন্ত কিছুক্ষন অপেক্ষা করতে হবে। মনে রাখবেন, এভাবে ফোন রিস্টার্ট করার পর ফোন মেমোরিতে থাকা কন্টাক্ট নম্বর, এসএমএস এবং ইন্সটল করা অ্যাপ্লিকেশনগুলো হারাতে হতে পারে।

Want your school to be the top-listed School/college in Moulvi Bazar?

Click here to claim your Sponsored Listing.

Videos (show all)

Location

Address


Srimangal
Moulvi Bazar
3210
Other Colleges & Universities in Moulvi Bazar (show all)
The Buds' Residential Model School & College The Buds' Residential Model School & College
College Road, Sreemangal
Moulvi Bazar, 3210

The Buds Residential Model School & College is one of the best institutions in the Sylhet division, Bangladesh. We all feel so proud of our school.

সুজানগর পাথারিয়া কলেজ সুজানগর পাথারিয়া কলেজ
রতুলি, বড়লেখা, মৌলভীবাজার
Moulvi Bazar, DAKSHINBHAG(3252)

M.K.A M.K.A
Kormodha, Kulaura
Moulvi Bazar, 3233

Jamia Hussainia Islamia Kotarkuna Jamia Hussainia Islamia Kotarkuna
Kotarkuna, Hazipur, Kulaura
Moulvi Bazar

Jamil Ahmed Jamil Ahmed
Moulvibazar
Moulvi Bazar

কমলগঞ্জ সরকারি কলেজ - Kamalganj Government College কমলগঞ্জ সরকারি কলেজ - Kamalganj Government College
Kamalganj Govt Gano College, Nasaratpur, College Road, Kamalganj Upazila, Moulvibazar Zila
Moulvi Bazar, 3220

কমলগঞ্জ সরকারি গণ মহাবিদ্যালয় ESTD.1972| Sylhet Board: 2300| National University: 2005| HSC. BM. Department: 62011| EIIN: 129615.

Kashinath Alauddin High School and College Kashinath Alauddin High School and College
Court Road
Moulvi Bazar, 3200

Official Page of Kashinath Alauddin High School and College, Moulvibazar.

তৈয়বুন্নেছা খানম সরকারি কলেজ তৈয়বুন্নেছা খানম সরকারি কলেজ
Juri
Moulvi Bazar, 3251

ভার্সিটি ওয়েবসাইট লিঙ্কঃ- http://tnkadc.edu.bd

Moulvibazar Govt Women's College Moulvibazar Govt Women's College
Court Road
Moulvi Bazar, 3200

BAF Shaheen College, Shamshernagar BAF Shaheen College, Shamshernagar
Shamshernagar
Moulvi Bazar, 3223

Welcome to BAF Shaheen Collge, Shamshernagar.

শেখবাড়ী জামিয়া-Sheikh Bari Jamia শেখবাড়ী জামিয়া-Sheikh Bari Jamia
Sheikhbari Jamia
Moulvi Bazar, 3210

শেখবাড়ী জামিয়া Sheikhbari Jamia ঐতিহ্যবাহী ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্টান৷

Moulvibazar Polytechnic Institute Moulvibazar Polytechnic Institute
Matharkapon , Moulvibazar
Moulvi Bazar, 3332