Putijuri S. C. High School

Putijuri S. C. High School

Comments

এই প্রভিশনাল মূল সার্টিফিকেটটা ভুলঃবসত সুনাগঞ্জের অন্য স্কুলের একটা ছেলে সিলেট বোর্ড থেকে উত্তোলন করে ফেলেছে, তার নাম এবং এই সার্টিফিকেটের মূল মালিকের নাম একই হবার ফলে এই ভুলটা সংঘটিত হয়েছে, মূল সার্টিফিকেটের স্টুডেন্ট যেহেতু পুটিজুরী এস সি হাই স্কুলের সেহেতু সে ঐ ছেলের সাথে যোগাযোগ করে সার্টিফিকেট সংগ্রহ করার অনুরোধ করা হলো।

নাম...জুবায়ের আহমেদ
জেলা সুনামগঞ্জ,
স্কুলঃ নারায়ন তলা মিশন উচ্চ বিদ্যালয়।
নাম্বারঃ +৮৮০১৯২৮১৩৮১২৮
স্কুল তোকে অনেক মিস করিরে।।
Md. Liton
সাকসেস মডার্ন স্কুল
কাশিগঞ্জ উওর বাজার 'তারাকান্দা"ময়মনসিংহ
যোগাযোগ:০১৯৫৪১১৫৬৮৪
আমাদের স্কুলে( Putijuri S. C. High School ) ২০১৮ সালে স্কাউটিং এ পিএস এওয়ার্ড এসেছে ২ টা, এস এস সি তে জিপিএ ফাইভ ও দুইটা 😑

১৯ এ পিএস আসেনি,কোনো জিপিএ ফাইভও আসেনি এস এস সি তে 😂

অতএব,স্কুলে জিপিএ ফাইভের পরিমাণ বাড়াতে আরো বেশি করে স্কাউটিং এ মনযোগী হতে হবে 🐸🐸

এই স্কুল থেকে এস এস েসি পরীক্ষা দিয়েছে এমন কোনো শিক্ষার্থী কি আছো এখানে??
আপনি মানুষকে কশট্রদেন কেন???
আগূন খান

আধুনিক মানসম্পন্ন একটি মাধ্যমিক শিক্ জ্ঞ্যানের জন্য প্রবেশ কর, সেবার জন্য বাহির হও

Operating as usual

26/06/2020

কার কার স্কুল পালানোর রেকর্ড আছে ?

01/06/2020

পুটিজুরী এস.সি. উচ্চ বিদ্যালয়ের

এস এস সি-২০২০ এর ফলাফল:
সর্বমোট পরীক্ষার্থী:২৮৭
সর্বমোট পাস:২০৩
জিপিএ-৫ প্রাপ্ত : ৪জন।

01/06/2019

Mention @ Your Partner

06/05/2019

এস এস সি ২০১৯ মার্কশিট সহ রেজাল্ট দেখুন।

See S.S.C-2010 result with mark sheet.

এখানে ক্লিক করো।
https://bit.ly/2J1qAHX

news.greencyclebd.com মার্কশিট সহ রেজাল্ট দেখুন এক নিমিষেই।

06/05/2019

এস এস সি ২০১৯ মার্কশিট সহ রেজাল্ট দেখুন।

নিমিষেই মার্কশিট সহ ssc 2019 রেজাল্ট.
https://bit.ly/2J1qAHX

news.greencyclebd.com মার্কশিট সহ রেজাল্ট দেখুন এক নিমিষেই।

20/02/2019

See the Genius! 🤔Who think first for Exam's system.....! 😠😠😠

11/10/2018

stay away from this ..

09/10/2018

নিকটস্থ হকারের কাছ থেকে আজকের লোকাল পত্রিকা "প্রতিদিনের বাণী " ও "দৈনিক প্রভাকর" পত্রিকাগুলো সংগ্রহ করতে পারেন।

09/10/2018

একজন রোমানার গল্প এবং অন্তরালে একটি সামাজিক চিত্র

shaistaganj.com বাহুবল প্রতিনিধি : বাহুবল উপজেলার পুটিজুরী ইউনিয়নের মেয়ে রোমানা আক্তার এবার ঢাকা মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ পেল। মের....

08/10/2018

একজন রোমানার গল্প এবং অন্তরালে একটি সামাজিক চিত্র |

প্রতিবেদনটি পড়ার আমন্ত্রণ রইলো।

dailybijoyerbarta.com বাহুবল উপজেলার পুটিজুরী ইউনিয়নের মেয়ে রোমানা আক্তার এবার ঢাকা মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ পেল। মেরিট লিস্টে যার অবস্.....

07/10/2018

পূটিজুরী এস. সি. উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রী রোমানা আক্তার ঢাকা মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে। মেরিটলিষ্টে ২০৩ । রোমানা একই সাথে এবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েও চান্স পেয়েছে।

রোমানা আক্তার বাহুবল উপজেলার পুটিজুরী এস.সি.উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০১৬ সালে জিপিএ ৫ পেয়ে এসএসসি পাশ করে। সে একই প্রতিষ্ঠান থেকে জেএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ পেয়েছিল। পরবর্তীতে সিলেট সরকারি মহিলা কলেজ থেকে এইচএসসি'তেও জিপিএ ৫ পায়।
রোমানা আক্তার উপজেলার বাঘের খাল গ্রামের মৃত শেখ মোঃ আব্দুল কাইয়ূমের কন্যা।

রোমানার জন্য পুটিজুরী এস. সি. উচ্চ বিদ্যালয় পেজের পক্ষ থেকে অভিনন্দন ও অফুরন্ত শুভ কামনা। বড় হয়ে দেশের কল্যাণে নিজেকে নিয়োজিত করবে; আজকের দিনে এটিই একমাত্র চাওয়া।

06/10/2018
03/10/2018

#ব্রেকিং_নিউজ

"সরকারি চাকরিতে (১ম ও ২য় শ্রেণি) কোটা সংস্কারের বিষয়ে বাতিলের প্রস্তাব মন্ত্রীসভায় অনুমোদন"
সূত্র : : ডিবিসি , এনটিভি , ইন্ডিপেন্ডেড টিভি।

01/10/2018

২০১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের খেলার সূচি। সুবিধার জন্য নিজের টাইমলাইনে শেয়ার করে রাখতে পারেন।
সূচিপত্রটি কালেক্ট করে দিয়েছেন আমাদের পেজের ফ্যান ও স্কুলের সাবেক ছাত্র Oli Hussain Ripon
পেজের পক্ষ থেকে উনাকে ধন্যবাদ।

30/09/2018

বাংলার ধাঁধা !! চেষ্টা করে দেখুন। আপনার উত্তর পোস্ট করুন কমেন্টে।

30/09/2018

শরীর কে সুস্থ রাখতে শারীরিক পরিশ্রমের বিকল্প নেই। শারীরিক কাজকর্ম করুন, ব্যায়াম করুন,প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময় হাটুন এবং শরীরকে সুস্থ রাখুন।

29/09/2018

সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করতে গিয়ে আমাদের জীবন,আমাদের চারপাশ যেন আন সোশ্যাল না হয়ে যায়।

26/09/2018

আশা করছি তোমরা সুখী মানুষের দলেই আছো।

25/09/2018

Tag your friends ❤

25/09/2018

আসো তোমাদের ( π) পাইয়ের গল্প শুনাই।

24/09/2018

ম্যানশন করুন সেই বন্ধুদের যারা শিক্ষকের সামনে এমন ইনোসেন্ট সাজে যেনো ভাজা মাছটি উল্টে খেতে জানেনা 🤓

24/09/2018

আমি তোমাদের স্কুল, তোমরা কি ভুলে গেছো শিক্ষকদের ফাঁকি দিয়ে স্কুল পালানোর গল্পগুলো? আমি খুব ভাল করেই জানি তোমাদের মধ্যে কারা কারা প্রায়ই পালাতে, তোমাদের কত কত স্মৃতি আমি বহুকাল ধরে লালন করে রাখছি, জানো? তোমরা আরো একটু মানুষ হয়ে পৃথিবীর বুকে মাথা উচু করে হাঁটো এই আমি চাই, আমিই তোমাদের আমার বুকে ডাকবো বলে ভাবছি, তোমাদের মধ্যে যারাই আমার পছন্দ বাটনে ইতিমধ্যে ক্লিক করেছো, তারা সবার জন্য নির্দেশ হলো, তোমাদের যারা বন্ধু আছে তাদেরকেও পছন্দ বাটনের জন্য ইনভাইট দাও, আমি ডাকবো তোমাদের, আমার অনেকদিনের স্বপ্ন তোমরা সবাই একটা দিন সারাদিন একসাথে আমার বুকে দাপিয়ে বেড়াবে।

পুটিজুরী এস.সি হাই স্কুল।

25/08/2018

আসসালামু আলাইকুম
Never Stop Learning.....

ইংরেজিতে কখন, কি বলবেন..!!

✪ কারো সাথে পরিচিত হলে- Hello, Nice to meet you.
✪ উৎসাহ দিতে - Good job/Well done – (সাবাশ!)
✪ কারো কথা বুঝতে পারলে - I see/ I understand/ I got it
✪ কারো কথা বুঝতে না পারলে - Sorry?
✪ গভীরভাবে দু:খ প্রকাশ - I'm extremely sorry, I regret – আমি অনুতপ্ত।
✪ অভিনন্দন জানাতে- Best wishes - (শুভ কামনা)
✪ ধন্যবাদ জানাতে - I am grateful to you – (আমি তোমার প্রতি কৃতজ্ঞ।)
✪ কেউ কুশল জিজ্ঞাসা করলে – I'm extremely well (আমি বেশ ভাল আছি)
✪ কারো দৃষ্টি আকর্ষণ করা- Excuse Me – শুনুন, Hey, got it? – এই, বুঝতে পেরেছো?
✪ কাউকে অপেক্ষা করতে বললে - Just a moment/Hang on a moment- (একটু অপেক্ষা করুন)
✪ মতামত প্রকাশ করতে-
In my point of view– আমার দৃষ্টিকোণ থেকে,
As far as I'm concerned – আমার মনে হচ্ছে যে।
✪ বিদায় জানাতে- See you later- (পরে দেখা হবে)
✪ কারো নাম জানতে - Can I have your name? - (আমি কি তোমার নাম জানতে পারি?)
✪ প্রস্তাব দেওয়া- Would you like something to drink? - আপনি কি কিছু পান করবেন?
✪ হতাশা প্রকাশ করা - What a pity - কি দুঃখজনক।
✪ সাহায্য চাওয়া - Could you give me a hand? - তুমি কি আমাকে সাহায্য করতে পারবে?
✪ কারো খোঁজ/খবর নেওয়া - What’s up - কি ব্যপার?, What’s going on – কেমন চলছে?
✪ বিরক্তি প্রকাশ করা- How disgusting/How absurd! (কি বিরক্তিকর/হাস্যকর)

18/08/2018

সেনাবাহিনীতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি - Dainikshiksha

dainikshiksha.com -------------------------

06/08/2018

নোয়াখালী বিমানবন্দরের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলারের সাথে পাইলটদের ভবিষ্যত কথোপকথন! 😉
পাইলট- ফাটা ০০৭ হেভি: আমরা অবতরণের জন্য অনুমতি চাচ্ছি!
নোয়াখাইল্যা এটিসি: : ওমাগো! আন্নেরা চলি অাইছেন নি? এক্কানা খাঁড়ান! রানওয়ে হরিষ্কার করি লই!
(এরই বাতেনের মারে যাই ক চাই, হেতির গরুডারে বাইত লই যাইতে, হেতি গরু রানওয়েতে বান্দি কুনায় গেছে? বেক্কল মেয়ে ছেলে! )
পাইলট- কেষ্ট ৪২০: আমরা অবতরণ করতে চাচ্ছি!
নোয়াখাইল্যা এটিসি: মামু বাড়ির আবদার ক্যান? আগে হাডা নাইমব ইয়ার হরেদি তোরা কেষ্ট নাইমবি! হাডারা আগে আঁইছে! তোরা ওগ্যা চক্কর মারি আয়!
পাইলট-ফাটা ০০৭ হেবি: রানওয়ে কী ক্লিয়ার হয়েছে?
নোয়াখাইল্যা এটিসি: টেনশন লইয়েন ন, বাতেনের মা গরু লই গেলেই আন্নেরা নাইমতে হাইরবেন!
(স্যার বাতের মা গরু লই চলি গেছে! হেতাগো নাইমতে কন)
নোয়াখাইল্যা এটিসি: এরই আন্নেরা এক এক করি চলি আসেন! কোন কাবযাব করিয়েন ন! রানওয়ে হরিষ্কার করি দিছি! হয়লা হাডা ০০৭ নাইমবো!
পাইলট- ফাটা ০০৭ হেভি: রানওয়ের কোনদিক দিয়ে নামবো?
নোয়াখাইল্যা এটিসি: জলিলের মার নাইল গাছের উপর দি নামেন! সাবধান, নাইল গাছে ঢুস মারিয়েন ন! হেতির কচি কচি ডাবগুলা হরি যাইতে হারে! ওগ্যা ডাব হইরলে জলিলের মা অক্করে খাই দিব!
পাইলট- কেষ্ট ৪২০: আমরা চক্কর খেয়ে আসছি। কোনদিক দিয়ে নামবো?
নোয়াখাইল্যা এটিসি: আন্নেরা আবার হিছ কিনার দি এক্কানা ঘুরি আইয়েন! অওন হাডা নামের! হাডার হরে আন্নেরা!
(রানওয়েতে ফুচুৎ করে একটা শব্দ হয় )
পাইলট- ফাটা ০০৭ হেভি: একটা দুর্ঘটনা ঘটে গেছে! রানওয়েতে একটা ছাগল ছিলো! বিমানের ধাক্কা লেগে কোরবান হয়ে গেছে!
নোয়াখাইল্যা এটিসি: কোন কালারের বকরি মাইচ্ছেন?
পাইলট- ফাটা ০০৭ হেভি: সাদা কালার!
নোয়াখাইল্যা এটিসি: ওরে হুমন্দির পুত তোরা কইচ্ছত কী? আর বকরি মারি ফালাইছস! ও মনুর মা, হিছাগা লই আও চাই! হুমুন্দির পুত গুলারে বাইড়্যাইয়া দেই!
পাইলট- কেষ্ট ৪২০: আমরা হিছ কিনার দিয়ে ঘুরে আসছি! এখন কী নামতে পারবো?
নোয়াখাইল্যা এটিসি: আঁর বকরি মরি গেছে! হ্যারলাই রানওয়ে আইজ বন্ধ করি দিছি! তোরা হিরি যা!
(স্যার হাডা ০০৭ এর দুই ডেরাইবররে নাইল গাছের লগে বান্ধি ফালাইছি! আন্নে হিছা লই জলদি আইয়েন!)😂😂😜collected

31/05/2018

২০১৮ সালের JSC পরীক্ষার পরিবর্তিত সিলেবাস -

19/05/2018

রোজার গুরুত্ব ও তাৎপর্য

news.greencyclebd.com ভাল লাগলে শেয়ার করে সবাইকে জানান রোজা শব্দটি ফারসি শব্দ এর আরিবি পরিভাষা সাওম। সিয়ামের বহুবচনের সাওম। আভিধানিক অ...

13/05/2018

২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে অনলাইনে ভর্তির পদ্ধতি

news.greencyclebd.com ভাল লাগলে শেয়ার করে সবাইকে জানান ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয় ও শিক্...

10/05/2018

অঘ্রাণের কবিতা

(y)

যেভাবে উৎক্ষেপণ করা হবে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট

দেশের জাতীয় জীবনের একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় সৃষ্টি হতে যাচ্ছে আজ। যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা থেকে স্থানীয় সময় বিকাল সোয়া চারটার দিকে উৎক্ষেপণ করা হবে বঙ্গবন্ধু ১ স্যাটেলাইট।
স্পেসএক্সের উৎক্ষেপণ কেন্দ্র থেকে স্পেসএক্স ফ্যালকন-৯ রকেটের মাধ্যমে স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপণ করা হবে। উৎক্ষেপণের দৃশ্য সরাসরি দেখানো হবে ফ্লোরিডার স্থানীয় সময় বিকাল ৪টা ১২ মিনিট থেকে সন্ধ্যা ৬টা ২২ মিনিট পর্যন্ত।
বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট প্রকল্পের পরিচালক মোহাম্মদ মেজবাহুজ্জামান দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, “গত বছর এই উৎক্ষেপণ কেন্দ্র থেকেই কোরিয়ার একটি স্যাটেলাইট কক্ষপথে পাঠানো হয়েছিল।”
এখান থেকেই ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের তৈরি করা বাংলাদেশের প্রথম ন্যানো স্যাটেলাইট ‘ব্র্যাক অন্বেষা’-ও উৎক্ষেপণ করা হয়েছিল।
ফ্লোরিডার পথে রওনা দেওয়ার আগে বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ এবং প্রকল্প পরিচালক মেজবাহুজ্জামান দ্য ডেইলি স্টারকে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের বিষয়টি বিশদভাবে ব্যাখ্যা করেন।
বিটিআরসি চেয়ারম্যান মাহমুদ বলেন, উৎক্ষেপণ প্যাড থেকে পাঁচ কিলোমিটারের মধ্যে থেকে দর্শকরা দেখতে পারবেন স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের দৃশ্যটি। সাত মিনিটের মতো এটি আকাশে দেখা যাবে।
প্রকল্প পরিচালক মেজবাহুজ্জামান বলেন, “প্রায় সাত টন ওজনের এই স্যাটেলাইটটির বহনকারী রকেট সোজা আকাশে উঠে যাবে। কক্ষপথে যাওয়ার আগে এটিকে ৩৬ হাজার কিলোমিটার যেতে হবে। এ জন্যে সময় লাগবে ১০ দিন।”
উৎক্ষেপণের দুইটি পর্যায় উল্লেখ করে জানানো হয়, প্রথম পর্যায়ে রয়েছে উৎক্ষেপণ এবং প্রাক কক্ষপথ (এলইওপি) এবং দ্বিতীয় পর্যায়ে রয়েছে কক্ষপথে স্যাটেলাইটটিকে বসানোর কাজ। প্রথম পর্যায়টি সম্পন্ন হতে সময় লাগবে ১০ দিন এবং দ্বিতীয় পর্যায়টি সম্পন্ন হতে সময় লাগবে ২০ দিনের মতো।
মেজবাহুজ্জামান জানান, স্যাটেলাইটটি কার্যকর হওয়ার পর এর নিয়ন্ত্রণ যাবে যুক্তরাষ্ট্র, ইতালি এবং কোরিয়ায় অবস্থিত তিনটি গ্রাউন্ড স্টেশনে। “এই তিনটি গ্রাউন্ড স্টেশন স্যাটেলাইটটি নিয়ন্ত্রণ করে একে ৩০০ কিলোমিটার দূরে কক্ষপথের ১১৯.১ পূর্ব দ্রাঘিমায় নির্দিষ্ট স্থানে স্থাপন করবে।”
স্যাটেলাইটটিকে সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ করতে ২০ দিন সময় লাগবে উল্লেখ করে মাহমুদ বলেন, যখন এটি সম্পূর্ণভাবে কার্যকর হবে তখন এর নিয়ন্ত্রণ ভার হস্তান্তর করা হবে বাংলাদেশে অবস্থিত গ্রাউন্ড স্টেশনগুলোতে।
ফ্যালকন রকেটের চারটি অংশ রয়েছে উল্লেখ করে জানানো হয়, প্রথম অংশে থাকবে স্যাটেলাইট এবং এরপর অ্যাডাপটর। অ্যাডাপটরের নিচের অংশটিকে বলা হয় স্টেজ-২ এবং শেষের অংশকে বলা হয় স্টেজ-১।
“উৎক্ষেপণের প্রাক-মুহূর্তে আগুন দেখা যাবে। এরপর প্রচণ্ড গতিতে রকেটটি আকাশের দিকে ছুটে যাবে,” যোগ করেন প্রকল্প পরিচালক মাহমুদ। একটি নির্দিষ্ট দূরত্বে যাওয়ার পর রকেটের স্টেজ-১ খসে পড়বে।
তিনি জানান, এরপর, স্টেজ-২ রকেটটিকে নিয়ে যাবে ৩৫,৭০০ কিলোমিটার পর্যন্ত। কক্ষপথে পৌঁছানোর আগে একটি নির্দিষ্ট দূরত্বে রাখা হবে স্যাটেলাইটটিকে। কয়েকদিন সময় লাগবে স্যাটেলাইটটিকে গাজীপুরের জয়দেবপুর এবং রাঙ্গামাটির বেতবুনিয়ায় গ্রাউন্ড স্টেশনের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করতে।
বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটে রয়েছে ৪০টি ট্রান্সপন্ডার। এগুলোর মধ্যে ২০টি ট্রান্সপন্ডার বাংলাদেশ ব্যবহার করবে। বাকিগুলো বিভিন্ন দেশের কাছে ভাড়া দেওয়া হবে। বিশেষ করে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার ফিলিপাইন এবং ইন্দোনেশিয়ার মতো কয়েকটি দেশের কাছে।
— The Daily Star
সংগ্রহ : সাইফুল ইসলাম

06/05/2018

২০১৮ এস এস সি পরীক্ষার বাহুবল কেন্দ্রের ফলাফল________

পুটিজুরী এস সি উচ্চ বিদ্যালয় মোট পরীক্ষার্থী ৩১০ জন
পাস করেছে ২৩৬জন
পাসের হার ৭৬.১৩ %
জি পি এ ৫ দুইজন।

দীননাথ মডেল হাই স্কুল মোট পরীক্ষার্থী ৩১৫জন
পাস করেছে ২১৯জন
পাসের হার ৬৯.৫২ %
জি পি এ ৫ দুইটি।

ছদরুল হোসেন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মোট পরীক্ষার্থী ৮২ জনে
পাস করেছে ৪২ জন
পাসের হার ৫১.২২%।

ফতেহপুর মোট পরীক্ষার্থী ১২৬জন
পাস করেছে ৮১ জন
পাসের হার ৬৪.২৯%।

বি সি মোট পরীক্ষার্থী ২২জন
পাস করেছে ২২জন।
পাসের হার শতভাগ ।

স্বস্তিপুর মোট পরীক্ষার্থী ৪৭জন
পাস করেছে ৪০ জন
পাসের হার ৮৫.১১%।

জগতপুর উচ্চ বিদ্যালয় মোট পরীক্ষার্থী ৬৩ জন
পাস করেছে ৩০ জন
পাসের হার ৪৭.৬২%।

মানব কল্যান উচ্চ বিদ্যালয় মোট পরীক্ষার্থী ২৩৫ জন
পাস করেছে ১৫৬ জন
পাসের হার ৬৬.৩৮%।

ফয়জাবাদ উচ্চ বিদ্যালয় মোট পরীক্ষার্থী ১৯৪জন
পাস করেছে ৮১জন
পাসের হার ৪১.৭% ।

06/05/2018

মাধ্যমিকে পাস ৭৭.৭৭%

news.greencyclebd.com শেয়ার করতে ভুললে হবে ? মাধ্যমিকে পাস ৭৭.৭৭% মাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষায় এবার ৭৭ দশমিক ৭৭ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছ.....

05/05/2018

এস.এস.সি রেজাল্ট জানুন সহজেই। - গ্রীন E-ফিডস- Updates for next Generation

news.greencyclebd.com শেয়ার করতে ভুললে হবে ?৬ই মে দুপুর দু’টায় এস এস.এস.সি, দাখিল ও সমমান পরীক্ষা ২০১৮ এর রেজাল্ট প্রকাশিত হবে, রেজাল্ট জা.....

03/05/2018

একটা টিউশনি করবে?
: কোথায়?
: ষোলশহর।
: ছাত্র না ছাত্রী?
: ছাত্র। অষ্টম শ্রেণিতে পড়ে।
: ছাত্র পড়াব না।
: বিরাট পুলিশ অফিসারের ছেলে। বাবা ডিআইজি। ভালো বেতন দেবে। ভালো নাস্তা পাবে। আরে এতো বড়ো পুলিশের ঝাড়ুদার হতে পারাও ভাগ্যের। সুপারিশে চাকরিও হয়ে যেতে পারে। দুদিন পর আইজিপি হবেন।
টিউশনি শুধু টাকা নয়, টাকার চেয়ে বড়ো কিছু। এটি বিসিএস-প্রস্তুতির একটি মোক্ষম কৌশল, টাকা তো আছেই। রাজি হয়ে যাই রাজীবের প্রস্তাবে।
রাজীব বলল : বেতন মাসে আটশ টাকা।
সে সময় আটশ অনেক মোটা অঙ্কের টাকা। এত আকর্ষণীয় বেতনের টিউশনিটা রাজীব নিজে না-করে কেন যে আমাকে দিচ্ছে বুঝতে পারছিলাম না। কিছু সমস্যা তো আছেই!
: তুমি করছ না কেন?
: আমার সময় নেই।
ডিআইজি সাহেবের ছেলের নাম ওমর। ফর্সা, তবে ধবধবে নয় কিন্তু বেশ মায়াময়। বিশাল বাসা, বারান্দায় দামি ফুলের টব। চারিদিকে সমৃদ্ধির ছড়াছড়ি। রাজীব আমাকে পরিচয় করিয়ে দিয়ে চলে গেল।
ওমর সালাম দিয়ে বলল : স্যার, বিড়াল প্রথম রাতেই মেরে ফেলা উচিত। আমার কথা নয়, আমার ডিআইজি বাবার কথা, ঠিক না?
: ঠিক। কিন্তু বিড়াল কোথায়?
: আছে স্যার, আছে। অনেক বড়ো বিড়াল।
: আমি বিড়াল মারব কেন?
: একটা কথা বলব?
: বলো।
: আগের কথা আগে বলে দেওয়া ভালো। রাখলে আমারও লাভ আপনারও লাভ। নইলে দুজনেরই ক্ষতি। আমি চাই না আপনার ক্ষতি হোক।
: কী কথা বলে ফেল।
ওমর বলল : আপনার বেতনের চল্লিশ পার্সেন্ট আমাকে দিয়ে দিতে হবে। আপনার বেতন আটশ টাকা। চল্লিশ পার্সেন্টে হয় তিনশ বিশ টাকা। তবে আমাকে তিনশ টাকা দিলেই হবে, বিশ টাকা আপনার বখশিস। কী বলেন স্যার?
প্রথমে মাথাটা ঝিম ঝিম করে ওঠে। ইচ্ছে করছিল ঘুরিয়ে একটা চড় দিই। হাত এগিয়ে নিয়েই থামিয়ে ফেলি। মুহূর্তের মধ্যে স্বাভাবিক করে ফেলি আমাকে। তারপর সহজ গলায় আদর মেখে বললাম : কম নেবে কেন বাবা?
: এমনি।
: না, আমি পুরো তিনশ বিশ টাকাই দেব।
: তাহলে স্যার ভাংতি দিতে হবে। আমি একশ টাকার নিচে ভাংতি রাখি না।
: তাই হবে।
বিচিত্র অভিজ্ঞতার আশায় আমার মনটা ফুরফুরে হয়ে ওঠে। মজার হবে টিউশনিটা, দেখি কতদূর যেতে পারে ওমর। মাস শেষ হওয়ার কয়েক দিন আগে আমি একটি খামে করে তিনশ বিশ টাকা ওমরের হাতে তুলে দিই।
ওমর যথাসময়ে টাকা পেয়ে খুশি।
হাসি দিয়ে বলল : স্যার, আপনি খুব ভালো মানুষ।
আমি বললাম : তুমি আমার কাছ থেকে শিখছ আর আমি শিখছি তোমার কাছ থেকে। পরস্পরের বেতন যথাসময়ে দিয়ে দেওয়া উচিত। তাহলে শ্রমের মর্যাদা মাসের প্রথমদিকে হাসার সুযোগ পায়।
ওমর বলল : থ্যাংক ইউ স্যার। সব মানুষ যদি আপনার মতো হতো!
চার মাস পর ডিআইজি সাহেব পড়ার রুমে এলেন। এতদিন তাকে একবারও দেখিনি, বেশ গম্ভীর চেহারা, দেখলে সমীহ আসে। চোখের চশমায়, দামটা পুলিশের পোশাকের মতো ঝিলিক মারছে, হাতের ঘড়িতে আরও বেশি।তিনি ওমরের একটি খাতা হাতে তুলে নিয়ে দেখতে দেখতে বললেন : মাস্টার সাহেব, আপনার বেতন চারশ টাকা বাড়িয়ে দিলাম।
: কেন স্যার?
আমরা পুলিশের লোক। গুণীর কদর করতে জানি। এ পর্যন্ত কোনো শিক্ষক আমার ছেলের কাছে দুই মাসের বেশি টিকেনি। প্রত্যেকে আমার ছেলেটাকে বকা দিয়েছে, মেরেছে, অশ্রাব্য কথা বলেছে। ছেলে কেবল আপনারই প্রশংসা করেছে। আপনি নাকি অনেক ভালো পড়ান।
তিনি একটা কলম ও একটা ডায়েরি আমার হাতে দিয়ে বলেন : এগুলোর আপনার উপহার।
: থ্যাংক ইউ স্যার।
কলমটা ছিল সম্ভবত পার্কার। তখন তো আর মোবাইল ছিল না, ওই সময় পার্কার ছিল আমাদের কাছে স্মার্ট ফোনের মতো লোভনীয়।
ডিআইজি সাহেবে চলে যেতে ওমর বলল : স্যার।
তুমি কী কলম আর ডায়েরি হতেও ভাগ চাইছ?
ওমর হেসে বলল : না স্যার। বস্তুতে আমার আগ্রহ নেই। টাকা হলে সব বস্তু পাওয়া যায়।
: তবে?
: আমার পাওনা এখন চারশ আশি টাকা। আমি আশি টাকা নেব না, একশ টাকা নেব। তার মানে পাঁচশ টাকা।
: ঠিক আছে। খুব বেশি না হলে আমার বেশি দিতে কষ্ট লাগে না। তুমি আমার শিক্ষক, তোমাকে বিশ টাকা বেশি দিতে না-পারলে আমার জ্ঞান অর্জন হবে কীভাবে?
ওমরের হাসিটা আরও বিস্তৃত হলো। কমিশন নিলেও পড়াপাড়ি বেশ ভালোই হচ্ছে।আরও তিনি মাস কেটে যায়। এরমধ্যে, আমার বেতন আরও দুইশ টাকা বেড়ে গেছে। ওমরকে এখন টাকা দিতে কষ্ট হচ্ছে না। জীবনে প্রথম শেখলাম-- দেওয়া- নেওয়ার মাহাত্ম্য। ওমর একটা জীবন্ত স্মার্ট ফোন।
সেদিন বাইরে খুব বৃষ্টি হচ্ছিল। ওমরকে অন্যদিনের চেয়ে বেশ আনমনা মনে হচ্ছে।
বললাম : কী হয়েছে?
: স্যার, আমাকে একটা কাজ করে দিতে হবে।
: কী কাজ?
: একটা চিঠি লিখে দিতে হবে।
: চিঠি তো লিখেই দিই।
: স্কুলের চিঠি নয়।
: কোন চিঠি?
: আমার প্রেমিকা, সরি স্যার বান্ধবীকে দেওয়ার জন্য।
: কী লিখব?
: আপনার মতো করে আপনি লিখে দেবেন। আমি তাকে ভালোবাসি। তাকে না- দেখলে বুকটা কেমন মোচড় খায়। কিছু ভালো লাগে না। সে খুব সুন্দর।
চিঠি লিখে দিলাম গভীর ভাষায়, প্রেমের মমতায়।
রাস্তায় এসে ইচ্ছেমতো হাসলাম। ওমর আর রেহাই পাচ্ছে না। বাসে উঠতে গিয়ে দেখি, ফারহাদ। আমার ক্লাসম্যাট এমদাদের ছোট ভাই। বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম বর্ষে। সাবজেক্টটা ঠিক মনে পড়ছে না।
আমাকে সালাম দিয়ে বলল : ভাইজান, আমাকে একটা লজিং দেবেন?
: আমি তো লজিং নিয়ে থাকি না। এমদাদের কাছে অনেকগুলো লজিং আছে। আমাকেও বলেছে, কাউকে পেলে খবর দেওয়ার জন্য। তাকে গিয়ে বলো।
: বলেছিলাম, দেবে না।
: কেন?
: সে আমাকে লজিং দেবে না।
ফরহাদকে বিদায় করে নিজের রুমে চলে যাই। শুক্রবার বন্ধুদের নিয়ে বেড়াতে যাবার কথা কিন্তু যাওয়া হলো না। ওমর খবর পাঠিয়েছে, শুক্রবার তাদের বাড়ি যেতে হবে। তার শুভ জন্মদিন।
কী নিয়ে যাই?
অনেক চিন্তাভাবনা করে ওমরের বান্ধবী& নিহা নিশিতাকে দেওয়ার জন্য একটা চিঠি লিখি। ওমর চিঠি পড়ে এত খুশি হয় যে, সে মাসের পুরো কমিশনটাই আমাকে ফেরত দিয়ে দেয়।
অবাক হয়ে বললাম : ফেরত দিলে যে?
ওমর আমাকে আরও অবাক করে দিয়ে বলল : আপনার লেখার সম্মানি। স্যার, চিঠিটা একদম ফাটাফাটি হয়েছে।
লেখার সম্মানি! আমি চমকে উঠি। লেখার প্রথম আয়, এ তো বিশাল কারবার! তাহলে কেন এতদিন লিখিনি! ওমরের উৎসাহে উৎসাহিত হয়ে পত্রিকায় লেখা শুরু করি। তারপর আস্তে আস্তে লেখা আমার নেশা হয়ে যায়।
যতই গল্প করি, যতই প্রেমপত্র লিখে দিই না কেন, লেখপড়ায় ওমরকে এমন কৌশলে ব্যস্ত রাখি যে, সে ধীরে ধীরে বইয়ে ঝুঁকে পড়ে, তার সব আনন্দ অন্যান্য জায়গা হতে বইয়ের পাতায় এসে ভীড় করতে শুরু করে। আগে তার বাবাকে বলত চকলেটের কথা, এখন বলে বইয়ের কথা। আগে ইলেকট্রনিক্স সামগ্রীতে তার আলমিরা ছিল ভর্তি; এখন সেখানে ঠাঁই পেয়েছে এনসাইক্লোপেডিয়া ব্রিট্রানিকা, পৃথিবীর বিখ্যাত লেখকদের নানা বই। আমার কাছ থেকে নাম নিয়ে যায় বইয়ের, নিয়ে আসে তার বাবাকে দিয়ে। দেশে না পেলে বিদেশ থেকে। কত দামি দামি বই, আমার কাছে মনে হতো : সামর্থ্যবানদের ইচ্ছাই প্রাপ্তি।
আরও তিন মাস পর আমার বেতন হয় পনেরশ টাকা। বিশাল অঙ্ক, অনেক সরকারি অফিসারও তখন এত বেতন পেতেন না। এখন ওমরের পাওনা গিয়ে দাঁড়ায় ছয়শ টাকায়।
মাসের শেষদিন ওমরকে ছয়শ টাকা দিতে যাই। লজ্জায় চোখটা নিচু করে ফেলে সে। আগের মতো দ্রুত হাত এগিয়ে দিচ্ছে না : সরি স্যার।
: নাও তোমার টাকা।
: লাগবে না স্যার।
: আরে নাও। আমি অত টাকা দিয়ে কী করব?
: স্যার, একমাসে যতটাকা আপনাকে দিই, আমি একদিনে তার চেয়ে অনেক বেশি দামের চকলেট খাই। একটা চকলেটের দাম একশটাকা, দিনে বিশটা চকলেট আমি একাই খাই। বাবার হুকুমে সুইজারল্যান্ড থেকে আসে।
তারপরও আমি বললাম : নাও।
: লাগবে না স্যার।
: আগে লাগত কেন?
তাস খেলতাম, নিহা নিশাতকে দিতাম। এখন তাস খেলা সময় নষ্ট মনে হয়, বই পড়ি। নিহা নিশাতকে যতক্ষণ দিই ততক্ষণ খুশী থাকে, শুধু চায় আর চায়। বই শুধু দিয়ে যাই, কিছুই চায় না।
আমি সাফল্যের হাসি নিয়ে বের হয়ে আসি।
বার্ষিক পরীক্ষার পর ওমরদের বাসায় যাওয়া বন্ধ হয়ে যাই। ডিআইজি সাহেব বলেছেন এক মাস পর থেকে আবার পড়ানো শুরু করতে। আমার মতো ভালো মাস্টারকে তিনি ছাড়বেন না। বদলি হলে সেখানে নিয়ে যাবেন।
পনের কী বিশদিন পর দেখি আমার মেস-বাসার সামনে একটা বিরাট গাড়ি দাঁড়িয়ে। দেখলে বোঝা যায় বড়ো পুলিশ অফিসারের গাড়ি।
হন্তদন্ত হয়ে বের হয়ে আসি।
ওমর আর তার বাবা গাড়ি হতে নামছেন।
ডিআইজি সাহেব বললেন : মাস্টার সাহেব, আমার ছেলে বার্ষিক পরীক্ষায় তৃতীয় হয়েছে। এর আগে কোনোদিন পঞ্চাশেও ছিল না। এক বছরের মধ্যে আপনি আমার ছেলেটাকে পরিবর্তন করে দিয়েছেন। এটি আমার কাছে অলৌকিক মনে হয়।
প্রশংসা আমার মনে অদ্ভুত এক আনন্দ বইয়ে দিল।
ডিআইজি সাহেব আমার হাতে একটা ঘড়ি তুলে দিয়ে বললেন : আমার ছোট ভাই আমার জন্য সুইজারল্যান্ড থেকে এনেছেন। আপনাকে দিলাম। এটি কোনো বিনিময় নয়, উপহার; ভালোবাসার নিদর্শন।
আনন্দে আমার চোখ ঝাপসা হয়ে আসে। এমনভাবে কেউ আমাকে কোনোদিন এমন উপহার দেননি।
ওমর আমার পায়ে ধরে সালাম করে বলল : স্যার, আপনি আমাকে বদলে দিয়েছেনে।
ডিআইজি সাহেব ওমরের এমন আচরণে আবেগপ্রবণ হয়ে আমাকে জড়িয়ে ধরেন : মাস্টার সাহেব, ওমর আমাকেও পাত্তা দিত না। এ পিচ্চি ছেলের কাছে আমি ছিলাম কেবল টাকার-ঝুড়ি। আপনি তাকে জানোয়ার থেকে মানুষ করে দিয়েছেন। বলুন কীভাবে সম্ভব হয়েছে?
বললাম : ভালোবাসা, শুধুই ভালোবাসা।
: আপনি আমার কাছ থেকে কী চান?
: ভালোবাসা, শুধুই ভালোবাসা।

টিউশনি এবং ভালোবাসা
ঘটনার সময়কাল : জানুয়ারি ১৯৮৬।...

-collected

02/05/2018

জানা-অজানা মজার কিছু তথ্য

news.greencyclebd.com ১। একটা কম্পিউটারের অন্তত দশ লক্ষাধিক শক্তিশালী হ্ওয়া লাগবে মানব মস্তিস্কের সমান কাজ করতে হলে । ২। একটা নয়া মডেল.....

Want your school to be the top-listed School/college in Habiganj?

Click here to claim your Sponsored Listing.

Videos (show all)

আশা করছি তোমরা সুখী মানুষের দলেই আছো।
আসো তোমাদের ( π) পাইয়ের গল্প শুনাই।

Location

Category

Website

Address


P. O : Putijuri, P. S : Bahubal
Habiganj
3310
Other Middle Schools in Habiganj (show all)
Haji Abdul Wahid Chowdhury High School Haji Abdul Wahid Chowdhury High School
Kalapur
Habiganj

Haji Abdul Wahid Chowdhury High School set up for all especially the poorest set up in 2012 with 1 b