Mirsarai,Chittagong

Mirsarai,Chittagong

Comments

মিরসরাই ট্র্যাজেডিতে ক্ষতিগ্রস্ত কমিউনিটি
মনোসামাজিক প্রতিবন্ধীর ভাগাড়ে
পরিণত হচ্ছে
==============================
মোস্তফা কামাল যাত্রা
স্বাস্থ্য বলতে শারীরিক, মানসিক ও সামাজিক সুস্থতাকে বুঝায়। যার কোন একটিতে ঘাটতি থাকলেই ব্যক্তির সামগ্রিক সুস্বাস্থ্য প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে পড়ে। অপর দিকে, সামাজিক ও মানসিক চাপ ব্যক্তির শারীরিক স্বাস্থের উপর যে নেতিবাচক প্রভাব বিস্তার করে; তা সব সময় দৃশ্যমান হয় না।
‘ওয়ার্ল্ড ফেডারেশন ফর মেন্টাল হেলথ’র মতে, ১৯ শতাংশ শারীরিক রোগের প্রাথমিক কারণ মানসিক সমস্যা। এ ছাড়াও মানসিক চাপ ও সমস্যার কারণে ব্যক্তির আচরণিক এবং সামাজিকরণ দক্ষতা সুসামঞ্জস্যপূর্ণ থাকে না। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত তথা সমস্যাগ্রস্ত ব্যক্তি একটা পর্যায়ে ব্যক্তিগত জীবন দক্ষতা এবং সামাজিক ক্রিয়াকর্মে একাত্ব হতে পারে না। এতে পারিবারিক সমস্যা যেমন হয়; তেমনি সৃষ্টি হয় সামাজিক প্রতিবন্ধকতা। যা পর্যায়ক্রমে মনোসামাজিক প্রতিবন্ধীতায় রূপ নেয়। এতে সমস্যাগ্রস্ত ব্যক্তি হয়ে পড়েন মনোসামাজিক প্রতিবন্ধী।
মানসিক সমস্যা সৃষ্টি হয় মূলত: আবেগগত ও আতংকগ্রস্ততাজনীত নানান সংকটের মাধ্যমে। যা সমস্যাগ্রস্ত বা ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি বা জনগোষ্ঠীর উপর ভর করে স্থবির পাথর খন্ডের মত। ভেঙে দেয় মনবল, কেড়ে নেয় স্বাভাবিক জীবনাচারের সক্ষমতা। ফলে তাদের মনে জন্ম নেয়- নানান মনোবৈকল্যতা এবং নষ্ট হয়ে যায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তির আন্ত:সম্পর্ক ও পারস্পরিক যোগাযোগ দক্ষতা। সর্বোপরি সমস্যাগ্রস্ত ব্যক্তি ও জন
গোষ্ঠীর হারিয়ে ফেলেন গ্রহণযোগ্য সামাজিক আচার আচরণ আর মতামত দেওয়ার যৌক্তিক অবস্থান।
উদাহরণ হিসাবে যদি 10 বছর পূর্বে অর্থাৎ ২০১১ সালে ১১ জুলাই সংঘটিত মিরসরাই ট্র্যাজেডি কমিউনিটির কথা চিন্তা করা যায়; তবে তার সত্য সত্যতা প্রমাণিত হবে। মাঠ পর্যায়ে আমাদের কর্ম অভিজ্ঞতা সেই পরিসংখ্যানই দৃশ্যমান করে। অথচ উপজেলা প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিদের সেই দিকে নেই কোন মানবিক দৃষ্টি। ফলে মানসিক স্বাস্থ্য সেবা বঞ্চিত হয়ে প্রায় এক হাজার সমস্যাগ্রস্ত বা ক্ষতিগ্রস্ত জনগোষ্ঠী পর্যায়ক্রমে বরণ করছেন স্থায়ী মনোসামাজিক প্রতিবন্ধিত্ব। যা অদূর ভবিষ্যতে মিরসরাই ট্র্যাজেডি কমিউনিটিকে পরিণত করবে এক মনোসামাজিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তির ভাগাড়ে।
মিরসরাই ট্র্যাজেডির পর জাতীয় ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে ঘটনার ভয়াবহতা এবং ক্ষতিগ্রস্ত প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ব্যক্তির এবং কমিউনিটির উপর দূর্ঘটনা পরবর্তী আঘাতজনিত মানসিক চাপ; যাকে ইংরেজিতে মনোবিজ্ঞানের ভাষায় বলা হয়ে থাকে ‘পোস্ট ট্রমাজিক স্টেস ডিজওর্ডার।’ এর নেতিবাচক প্রভাব যে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি ও সমাজে প্রকটভাবে পড়বেই; তা অনুধাবন করে ইংল্যান্ড ও পুর্তগাল থেকে দুই জন মনোবিশ্লেষক নাট্যবিজ্ঞানী ব্যক্তিগত উদ্যোগে বাংলাদেশে এসে সেবা দিয়ে যান। বাংলাদেশে একমাত্র মনোবিশ্লেষক নাট্যবিজ্ঞান অনুশিলক প্রতিষ্ঠান হিসাবে আমাদের কর্মপ্রতিষ্ঠান উৎসকে তাদের সেই মনোসামাজিক স্বাস্থ্য সেবা কর্মসূচির সাথে সম্পৃক্ত করেছিল।
মিরসরাই ট্র্যাজেডিতে ক্ষতিগ্রস্ত কমিউনিটিতে মনোবিশ্লেষক নাট্যবিজ্ঞানী মার্ক ও ফিলিপের নেতৃত্বে উৎস’র তত্ত্বাবধানে পরিচালিত সেই সপ্তাহব্যাপী ‘মনোবিশ্লেষক নাট্যযজ্ঞ’ শেষে ২০১১ সালের ১০ অক্টোবর আবুতোরাব উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজন করা হয়েছিল এক ‘মনোবিশ্লেষক প্রীতি ফুটবল ম্যাচ।’ আয়োজিত সেই ফুটবল খেলায় ওই জনপদে ক্ষতিগ্রস্ত জনসমাজের প্রতিনিধিগণ অংশগ্রহণ করেছিলেন। যারা ২০১১ সালের ১১ জুলাইয়ের পর থেকে ফুটবল খেলা তো দূরে থাক; ফুটবল দেখলেও আতংকিত হয়ে উঠত। কারণ ফুটবল খেলা দেখে বাড়ি ফেরার পথেই ঘটছিল সেই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা।
ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি, শিক্ষক ও জনপ্রতিনিধিদের অনুরোধে উৎশ ২০১২ সালে ওই জনপদে আমেরিকা থেকে আগত মনোবিশ্লেষক নাট্যবিজ্ঞানী জেনী ক্রিস্টালের তত্ত্বাবধানে পুনরায় আয়োজন করেছিল প্লেবেক থিয়েটার প্রধান সাইকোথেরাপি সেবা। যার ইতিবাচক সংবাদ তৎকালীন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছিল। ওই সাইকোথেরাপি কার্যক্রম চলাকালে মিরসরাই উপজেলা থানা কর্মকর্তা আমাকে মোবাইল কলের মাধ্যমে কর্মক্ষেত্র আবুতোরাব উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মিরসরাই সদর উপজেলায় তাৎক্ষণিকভাবে সাক্ষাৎ করার জন্য নির্দেশ দেন।
স্থানীয় প্রশাসনের আহ্বানে সাড়া দিতে গিয়ে মাঠ পর্যায়ে আমাদের চলমান মানবিক সেবামূলক কাজ বন্ধ রেখে আমাকে সম্মানিত থানা নির্বাহী কর্মকর্তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে উপজেলা সদরে যেতে হয়েছিল। উপজেলায় অবস্থিত থানা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের কক্ষে প্রবেশ করতেই; তিনি আমাকে বললেন, ‘জানেন এ মুহূর্তে আমি আপনাকে গ্রেফতার করতে পারি? আমার মেজিস্ট্রেসি ক্ষমতা আছে?’ আমি জানতে চাই আমার অপরাধ কি? তখন তিনি বলেন, ‘আপনি এবং আপনার সংগঠন উৎস ‘নাটক-ফাটক’ করে মিরসরাই ট্র্যাজেডিতে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের আবেগকে উসকে দিচ্ছেন; তাদের মনের তকে খুঁছিয়ে জাগিয়ে তুলছেন। মিডিয়ায় এসব সংবাদ ছাপা হচ্ছে। আমার উপর উপর মহল থেকে চাপ আসছে। আজই আপনি সাইকোথেরাপির কাজ বন্ধ করে মিরসরাই ত্যাগ করবেন আপনার টিম নিয়ে। অন্যথায় আমি আপনার সংগঠনের নিবন্ধন বন্ধ করে দেব।’
আমি তখন থানা নির্বাহী কর্মকর্তাকে বললাম যে, সাইকোথেরাপি হিসাবে মনোবিশ্লেষক নাট্যক্রিয়া একটি চিকিৎসা মনোবিজ্ঞানের পদ্ধতি। আগামীকাল আমাদের পরিকল্পিত সেশন শেষ করেই আমি আমাদের আমেরিকান সুপারভাইজার এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লিনিক্যাল সাইকোলোজি বিভাগের সাইকোথেরাপিস্টদের নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত জনপদ ত্যাগ করব। এ মুহূর্তে সাইকোথেরাপি সেশন মাঝ পথে বন্ধ করে মাঠ থেকে চলে আসলে অংশগ্রহণকারী ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিবর্গ জটিল মানসিক বিপর্যয়ে পড়বেন। যাতে তাদের মানসিক স্বাস্থ্য পরিস্থিতি হয়ে পড়বে আরো ভয়াবহ।’ তখন তিনি উত্তেজিত হয়ে বললেন, ‘আজই আপনি আপনার দলের সদস্যদের নিয়ে মিরসরাই ত্যাগ করবেন; অন্যথায় আপনি ঘোরতোর বিপদে পড়বেন। আমি দেখে নেব আপনি আমার কর্ম এলাকায় কিভাবে ‘সাইকোথেরাপি-মাইকোথেরাপি’
দেন।’
উপজেলা থেকে আবুতোরাব ফিরে স্থানীয় ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের সাথে বিষয়টি শেয়ার করার পর তিনি বললেন, ‘আপনি পর দিন কাজ চালিয়ে যান, দেখি উনি কি ব্যবস্থা নেন।’ ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের অভিভাবক এবং স্থানীয় সেচ্ছাসেবকগণ সংবাদটি শোনার পর বিস্ময় প্রকাশ করেন। আমাদের আশ্বস্ত করেন নির্বিঘ্নে কাজ চালিয়ে যাওয়ার জন্য। কমিউনিটির আগ্রহ দেখে; ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের কথা ভেবে পরদিন সকালে আমরা আমাদের মাঠ পর্যায়ে কার্যক্রম পুনরায় শুরু করেছিলাম। কিন্তু বেলা বাড়ার সাথে সাথে উপজেলা শহর থেকে আশা বখাটে কিছু ছেলের উৎপাতে পঞ্চম দিনের মাথায় আমাদের দলের সদস্যদের নিরাপত্তার স্বার্থে আমরা তাৎক্ষণিকভাবে কাজ বন্ধ করে দিয়ে চট্টগ্রাম শহরে ফিরে আসি। বুঝতে বাকি থাকল না সেই বখাটেরা কার নির্দেশে আমাদের দলের নারী সদস্যদের নানাভাবে উত্তক্ত করছিলেন।
কমিউনিটির ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের আহাজারী এবং তাদের কেয়ার গিভারদের হতাশায় রেখে কর্ম এলাকা ত্যাগ করতে আমাদের দলের খুবই কষ্ট হয়েছিল। অপর দিকে ছিল; প্রতিষ্ঠানের নিবন্ধন বন্ধ করে দেওয়ার ঝুঁকি। এখন প্রশ্ন হল থানা নির্বাহী কর্মকর্তা কেন? কি কারণে এমন অমানবিক কাজটি করেছিলেন? মানসিক স্বাস্থ্য সেবাহীন রেখে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের মানসিক প্রতিবন্ধী বানিয়ে তার কি লাভ? লাভ অবশ্যই আছে। কারণ উনার পৈত্রিক বাড়ি ফেনী উপজেলায়। চাকরি ক্ষেত্র মিরসরাই উপজেলা হওয়ায় কম দূরত্বজনিত কারণে তিনি ব্যক্তিগত নানা লাভের সুযোগ ভোগ করতেন। যদি পুনরায় মিরসরাই ট্র্যাজেডি নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ ছাপা হয়; তবে উনাকে হয়তো উপর মহল মিরসরাই উপজেলা থেকে ট্রান্সফার করে দিতে পারেন। সেই ভয়ে থানা নির্বাহী কর্মকর্তা আগ্রহী করেছিল; আমাদের কাজ বন্ধ করে দেওয়ার মত সেই অমানবিক আচরণটি করতে। অর্থাৎ আমাদের সাইকোথেরাপি কর্মসূচি বন্ধ করে দিয়ে তিনি মিরশরাই ট্র্যাজেডি কমিউনিটির স্থায়ী ক্ষতি করেছিলেন।
পরবর্তী কৌশলগত কারণে মিরসরাই ট্র্যাজেডিতে ক্ষতিগ্রস্ত কমিউনিটির মানসিক স্বাস্থ্যসেবা প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে আমরা স্থানীয় প্রেস ক্লাবের সাথে যৌথভাবে গণমাধ্যমকর্মীদের নিয়ে একটি কর্মশালা আয়োজনের প্রস্তাব দিয়েছিলাম। যে কর্মশালার মাধ্যমে মনোবিজ্ঞানের শিক্ষার্থী না হয়েও; একজন গনমাধ্যমকর্মী হিসাবে মানসিক রোগের প্রাথমিক সাইন সিমট্রম বুঝতে পারবেন এবং ক্ষতিগ্রস্ত জনগণের মানসিক সমস্যার রূপ ও প্রকৃতি অবলোকন করে প্রকৃত সত্য গণমাধ্যমে তুলে আনতে সমর্থ হন। কিন্তু বিধি বাম; তাতেও বাঁধ সাধলেন থানা নির্বাহী কর্মকর্তা মহোদয়। ফোন করে জানালেন, ‘উপজেলায় অনুরূপ কর্মশালা করা যাবে না।’ ফলে তখন আমরা গণমাধ্যমকর্মীদের জন্য মিরসরাই প্রেস ক্লাবে আয়োজিত কর্মশালা স্থগিত করতে বাধ্য হয়েছিলাম। আমাদের সেই উদ্যোগে ক্ষুব্ধ হয়ে স্থানীয় তথাকথিত এক সাংবাদিককে দিয়ে থানা নির্বাহী কর্মকর্তা কিছু দৈনিকে আমাদের প্রতিষ্ঠান উৎস সম্পর্কে নেতিবাচক প্রতিবেদন চাপিয়ে আমি এবং আমাদের সংস্থাকে বিতর্কিত করার অপচেষ্টা চালালেন। একজন মনোসামাজিক স্বাস্থ্য সেবা কর্মী হিসাবে আমি ব্যক্তিগত এবং সাংগঠনিক ঝুঁকি নিয়ে চট্টগ্রাম শহরের কিছু সাংবাদিকদের অংশগ্রহণে সেই কর্মশালাটি সুসম্পন্ন করেছিলাম।
এতে কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী সাংবাদিকবৃন্দ স্ব-শরীরে ক্ষতিগ্রস্ত জনপদে গিয়ে মিরসরাই ট্র্যাজেডিতে সন্তানহারা পিতা-মাতা, নিহতদের ভাই-বোন, সহপাঠি, শিক্ষক এবং নিকট আত্মীয়দের সাথে সরাসরি কথা বলে তাদের মানসিক বিপর্যয়ের গতি প্রকৃতি পর্যবেক্ষণ করে পত্রিকায় প্রতিবেদন করতে থাকেন।
পর্যায়ক্রমে পত্র পত্রিকায় মিরসরাই ট্র্যাজেডিতে ক্ষতিগ্রস্ত কমিউনিটির মানসিক বিপর্যয় ও মনোরোগের কথা ছাপা হতে থাকলে; চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন উদ্যোগ নেয় ক্ষতিগ্রস্ত জনপদে মানসিক বিপর্যয় তথা ‘পোস্ট ট্রমাটিক স্ট্রেস ডিজওর্ডার’র অবস্থা ও অবস্থান কোথায় তার জানার জন্য একটি জরিপ কার্যক্রম পরিচালনার। মনোসামাজিক সেবা বঞ্চিত হয়ে ক্ষতিগ্রস্ত জনগণ কি ধরনের মানসিক সমস্যায় আছেন; যাতে এ জরিপের মাধ্যমে তা নিরুপণ করা যায়। কিন্তু সমাজসেবা অধিদপ্তরের মাধ্যমে জেলা প্রশাসক কর্তৃক নেয়া সেই জরিপের উদ্যোগ একই উপজেলা থানা নির্বাহী কর্মকর্তার অনাগ্রহের কারণে অধ্যাবদি আলোর মুখ দেখেনি। অর্থাৎ জেলা প্রশাসকের নির্দেশনাও উপজেলা কার্যালয়ে লাল ফিতার দৌরাত্বে শিকারে পরিণত হয়েছে!!!
গত বছর মিরসরাই ট্র্যাজেডির নয় বছর পূর্ণ হল। নানা পর্যায় থেকে ঘটা করে তা উদযাপিত হল। কিন্তু মানসিক স্বাস্থ্য সেবা হীনতায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ তথা মিরসরাই ট্র্যাজেডি কমিউনিটি পর্যায়ক্রমে যে মানসিক রোগিতে পরিণত হচ্ছেন, সে দিকে কারো দৃষ্টি নেই। যা তাদের অদূর ভবিষ্যতে স্থায়ী মনোসামাজিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিতে রূপান্তরিত করবে। নিজ বাড়ীর পাশের উপজেলায় চাকরি দীর্ঘস্থায়ী করার মানসে প্রকৃত সত্যকে গোপন করে মিরসরাই ট্র্যাজেডিতে ক্ষতিগ্রস্ত কমিউনিটিতে যে মানবিক বিপর্যয় ঘটাচ্ছেন বর্তমান মিরসরাই উপজেলা থানা নির্বাহী কর্মকর্তা। তার দীর্ঘ মেয়াদী ক্ষতি বহন করতে হবে- সেবা বঞ্চিত ব্যক্তি, পরিবার ও জনসমাজকে।
বিগত তিন বছরের স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকায় এ সংক্রান্ত প্রায় অর্ধশত প্রতিবেদন ছাপা হওয়ার পরও উপজেলা প্রশাসনের নির্লিপ্ততায় মানসিক স্বাস্থ্য সেবা বঞ্চিত হয়ে ক্ষতিগ্রস্ত মিরসরাই ট্রাজেডী কমিউনিটি পরিণত হচ্ছে মনোসামাজিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তির ভাগাড়ে।
এ প্রসঙ্গে ইতিবাচক পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য ক্ষমতা কাঠামোর উচ্চ পর্যায়ে থাকা প্রশাসক, সুশীল সমাজ, সংশ্লিষ্ট পেশাজীবী, জনপ্রতিনিধি এবং গণমাধ্যমকর্মীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, যাতে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষগুলো মানসিক স্বাস্থ্য সেবা পায়। কারণ মানসিক স্বাস্থ্য সেবা পাওয়া ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের মানবাধিকার। মানসিক ক্ষতিগ্রস্তদের সেবা বঞ্চিত রেখে; ক্ষতিগ্রস্তদের ন্যায্য মানবাধিকার লঙ্ঘনের দায় থেকে অন্যতায় আমরা নিজেদের মুক্ত রাখতে পারব না। ইতিহাস আমাদের ক্ষমা করবে না।
লেখক : অতিথি শিক্ষক, নাট্যকলা বিভাগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়
https://www.porombangladesh.com/%E0%A6%AE%E0%A6%BF%E0.../...
জব সার্কুলার!!!
আসসালামু আলাইকুম আমি এলিনা সুলতানা জন্ম মিরসরাই, বৈবাহিক সুত্রে মিরসরাই।তবে আমি থাকি চট্টগ্রামে জিইসি। আমি একটা অনলাইন বিজনেস শুরু করেছি মিরসরাইয়ে বাসিন্দা হয়ে সবাই আমার সাথে থাকবেন আর দোয়া করবেন আমার অনলাইন পেজ লাইক শেয়ার দিয়ে পাশে থাকবেন। আমি কাজ করছি ড্রেস,শাড়ি, শতরঞ্জি, টেবিল রানার, বেডশিট নিয়ে।
ওনার অফ Weman's handicraft nd fashion house

Mirsharai Upazila(Update spelling is Mirsarai) (chittagong district) with an area of 482.88 km2, is

29/08/2022

গ্রাম বাংলা..

19/06/2022

দশ লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি, আর্তনাদ শুধুমাত্র আশ্রয়ের জন্য

16/06/2020

প্রতিবেশী দেশের পাহাড়ের পাদদেশ থেকে সূর্যোদয়ের নয়নাভিরাম দৃশ্য, যদিও আকাশটা মেঘলা ছিল কিছুটা..

Photos from BUETian - বুয়েটিয়ান's post 12/10/2019
30/05/2019

Breathe in. Breathe out.
A simple task for most, an impossible challenge for many.

Taking in smoke, be it active or passive, can take lives away in the cruelest of manners and the shortest of moments. To***co takes our breath away by poisoning one of the most incredible creations we possess - our lungs.

This World No To***co Day, let’s take a pledge to let our lungs live and breathe in the freshest of air by putting an end to to***co once and for all.

***coDay

30/04/2019
Photos from Our Chittagong - চট্টগ্রাম's post 25/03/2019
25/03/2019
15/03/2019
Do you like to travel? 01/11/2018

ঘুরতে আমরা কে না ভালোবাসি। নিজেদের শত ব্যস্ততার মাঝে বা প্রয়োজনে যারা ঘুরতে পছন্দ করেন তাদের জন্য কিছু প্রশ্ন।

Do you like to travel? This will only take a few moments!

12/07/2018
14/03/2018
Timeline photos 11/03/2018

#পাসপোর্টের_মেয়াদ_10_বছর_করা_হোক
সবাই শেয়ার করে এই দাবি তুলে ধরুন।

14/02/2018

বাংলা ফন্ট লাইব্রেরী এখন লাইভ। ভিসিট করুনঃ https://banglafontlibrary.com

নিজের একটা গল্প তৈরি করো 22/10/2017

নিজের একটা গল্প তৈরি করো জেফ বেজোস একজন মার্কিন উদ্যোক্তা। তিনি অ্যামাজন ডট কমের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী। যুক্তরাষ্ট্রের প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটির সমাবর্তন অনুষ্ঠানে তিনি বলেছিলেন তাঁর জীবনবোধের কথা। ছোটবেলায় আমার গ্রীষ্মের ছুটি কাটত দাদাবাড়িতে। টেক্সাসে দাদার সঙ্গে তাঁর খামারবাড়িতে কাজ করতাম। যন্ত্রপাতি...

২৪০০ কোটি টাকার চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেলপথ নির্মাণ চুক্তি কাল 22/06/2017

২৪০০ কোটি টাকার চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেলপথ নির্মাণ চুক্তি কাল

২৪০০ কোটি টাকার চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেলপথ নির্মাণ চুক্তি কাল চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেলপথ নির্মাণে বাংলাদেশকে ৩০ কোটি ডলার ঋণ দিতে যাচ্ছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। যা বাংলাদেশি টাকায় দাঁড়ায় দুই হাজার ৪০০ কোটি টাকা...

রাউটারও নিরাপদ নয়! 20/05/2017

রাউটারও নিরাপদ নয়! শুধু কম্পিউটার বা স্মার্টফোন নয়, সাইবার হামলা হতে পারে রাউটার বা ইন্টারনেট অব থিংস (আইওটি) যন্ত্রে [...]...

‘রামপালে ৬০ বছরে ৩.৮ কোটি টন ছাই উৎপাদন হবে’ 18/05/2017

‘রামপালে ৬০ বছরে ৩.৮ কোটি টন ছাই উৎপাদন হবে’ বন্যা ও সাইক্লোনে পুরো সুন্দরবনজুড়ে ছাই ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে যা এই উপকূলীয় বনের ভেতর দিয়ে বয়ে চলা নদীর মাছসহ জলজ পরিবেশের ওপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলবে।

নাস্তায় বিস্কুট নয়, মুড়ি খান 11/05/2017

নাস্তায় বিস্কুট নয়, মুড়ি খান বেশি বিস্কুট খেলে মোটা হওয়া থেকে শুরু করে ডায়াবেটিস পর্যন্ত হতে পারে। তাহলে উপায়? বদলাতে হবে চায়ের সঙ্গে টায়ের সংজ্ঞা।...

Timeline photos 09/05/2017

টেলিটক মোবাইলের মাধ্যমে ‎২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষের কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির আবেদন করুন খুব সহজেই।

বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুনঃ http://bit.ly/2pf5PiM
#টেলিটক #স্বপ্নহাসিমুখের

Timeline photos 26/02/2017

যে কারনে সূর্য- চন্দ্র গ্রহনের সময় নবী (সা.) এর চেহারা বিবর্ণ হয়ে যেত

প্রেসবিডি টুয়েন্টিফোরডটকম
২৬ ফেব্রুয়ারি রবিবার বছরের প্রথম সূর্যগ্রহণ। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিট এদিন কেন্দ্রীয় গ্রহণ শুরু হবে। সর্বোচ্চ গ্রহণ হবে বাংলাদেশ সময় রাত ৮টা ৫৩ মিনিট ২৪ সেকেন্ডে। কেন্দ্রীয় গ্রহণ শেষ হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১০টা ৩০ মিনিট ৫৪ সেকেন্ডে এবং গ্রহণ শেষ হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১১টা ৩৬ মিনিটে ০০ সেকেন্ডে।

বিভিন্ন শাস্ত্র অনুযায়ী, সূর্যগ্রহণের সময় সাবধানতা অবলম্বন করতে হয়, অন্যথায় বিপদ ঘটতে পারে। যদিও অনেকে এই তথাকথিত শাস্ত্রে বিশ্বাস করেন না।

অধিকাংশ সময়েই আমাদের দেশের মানুষেরা অত্যন্ত আনন্দ আর কৌতুহল নিয়ে সূর্যগ্রহন এবং চন্দ্রগ্রহন প্রত্যক্ষ করে থাকে। সূর্য ও চন্দ্র যখন গ্রহনের সময় হয় তখন আমাদের প্রিয় নবী (সা.) এর চেহারা ভয়ে বিবর্ণ হয়ে যেত। তখন তিনি সাহাবীদের নিয়ে জামাতে নামাজ পড়তেন। কান্নাকাটি করতেন। আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করতেন।

আরবীতে সূর্যগ্রহণকে 'কুসূফ' বলা হয়। আর সূর্যগ্রহণের নামাজকে 'নামাজে কুসূফ' বলা হয়। দশম হিজরীতে যখন পবিত্র মদীনায় সূর্যগ্রহণ হয়, ঘোষণা দিয়ে লোকদেরকে নামাজের জন্য সমবেত করেছিলেন। তারপর সম্ভবত তার জীবনের সর্বাদিক দীর্ঘ নামাজের জামাতের ইমামতি করেছিলেনন। সেই নামাজের কিয়াম, রুকু, সিজদাহ মোটকথা, প্রত্যেকটি রুকন সাধারণ অভ্যাসের চেয়ে অনেক দীর্ঘ ছিল।

অবিশ্বাসী বিজ্ঞানীরা প্রথমে যখন মহানবী (সা.) এর এ আমল সম্পর্কে জানতে পারল, তখন তারা এটা নিয়ে ব্যঙ্গ করল (নাউযুবিল্লাহ)। তারা বলল, এ সময় এটা করার কি যৌক্তিকতা আছে? সূর্যগ্রহণের সময় চন্দ্রটি পৃথিবী ও সূর্যের মাঝখানে চলে আসে বলে সূর্যগ্রহণ হয়। ব্যাস এতটুকুই! এখানে কান্না কাটি করার কি আছে? মজার বিষয় হল, বিংশ শতাব্দীর গোড়ার যখন এ বিষয় নিয়ে গবেষণা শুরু করল, তখন মহানবী (সা.) এই আমলের তাৎপর্য বেরিয়ে আসল।

আধুনিক সৌর বিজ্ঞানীদের মতে, মঙ্গল ও বৃহস্পতি গ্রহ দু'টির কক্ষপথের মধ্যবলয়ে রয়েছে এস্টিরয়েড (Asteroid), মিটিওরিট (Meteorite) ও উল্কাপিন্ড প্রভৃতি ভাসমান পাথরের এক সুবিশাল বেল্ট, এগুলোকে এককথায় গ্রহানুপুঞ্জ বলা হয়। গ্রহানুপুঞ্জের এই বেল্ট (Belt) আবিষ্কৃত হয় ১৮০১ সালে। এক একটা ঝুলন্ত পাথরের ব্যাস ১২০ মাইল থেকে ৪৫০ মাইল।

বিজ্ঞানীরা আজ পাথরের এই ঝুলন্ত বেল্ট নিয়ে শঙ্কিত। কখন জানি এ বেল্ট থেকে কোন পাথর নিক্ষিপ্ত হয়ে পৃথিবীর বুকে আঘাত হানে, যা পৃথিবীর জন্য ধ্বংসের কারণ হয় কিনা?

গ্রহানুপুঞ্জের পাথর খন্ডগুলোর মাঝে সংঘর্ষের ফলে অনেক ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র পাথরখন্ড প্রতিনিয়তই পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসে। কিন্তু সেগুলো পৃথিবীর বায়ুমন্ডলে এসে জ্বলে ভস্ম হয়ে যায়।

কিন্তু বৃহদাকার পাথখন্ডগুলো যদি পৃথিবীতে আঘাত করে তাহলে কি হবে? প্রায় ৬৫ মিলিয়ন বছর আগে পৃথিবীতে এমনই একটি পাথর আঘাত হেনেছিল। এতে ডাইনোসরসহ পৃথিবীর তাবৎ উদ্ভিদ লতা গুল্ম সব ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। উত্তর আরিজন (Arizon) এ যে উল্কাপিন্ড এসে পরেছিল তার কারণে পৃথিবীতে যে গর্ত হয়েছিল তার গভীরতা ৬০০ ফুট এবং প্রস্থ ৩৮০০ ফুট।

বিজ্ঞানীরা বলেন, সূর্য অথবা চন্দ্রগ্রহণের সময় ঝুলন্ত পাথরগুলো পৃথিবীতে ছুটে এসে আঘাত হানার আশংকা বেশী থাকে। কারণ হচ্ছে,এসময় সূর্য,চন্দ্র ও পৃথিবী একই সমান্তরালে,একই অক্ষ বরাবর থাকে।

ফলে তিনটির মধ্যাকর্ষণ শক্তি একত্রিত হয়ে ত্রিশক্তিতে রুপান্ত্রিত হয়। এমনি মুহূর্তে যদি কোন পাথর বেল্ট থেকে নিক্ষিপ্ত হয় তখন এই ত্রিশক্তির আকর্ষণের ফলে সেই পাথর প্রচন্ড শক্তিতে, প্রবল বেগে পৃথিবীর দিকে আসবে, এ প্রচন্ড শক্তি নিয়ে আসা পাথরটিকে প্রতিহত করা তখন পৃথিবীর বায়ুমন্ডলের পক্ষে অসম্ভব হয়ে দাড়াবে। ফলে পৃথিবীর একমাত্র পরিণতি হবে ধ্বংস।

একজন বিবেকবান মানুষ যদি মহাশূন্যের এ তত্ব জানে, তাহলে তার শঙ্কিত হবারই কথা। এই দৃষূকোণ থেকে সূর্য কিংবা চন্দ্রগ্রহণের সময় মহানবী (সা.) এর সেজদাবত হওয়া এবং সৃষ্টিকূলের জন্য পানাহ চাওয়ার মধ্যে আমরা একটি নিখুঁত বাস্তবতার সম্পর্ক খুঁজে পাই। মহানবী (সা.) এর এ আমলটি ছিল যুক্তিসঙ্গত ও একান্ত বিজ্ঞানসম্মত।

Mobile uploads 02/02/2017

Surfing Now

Timeline photos 08/01/2017

. 🌳🌲🌴🌱🌿🌾🍃🌺
⛅☺

Timeline photos 24/12/2016

কাকিলা বা 'কাখলে' একটি বিলুপ্তপ্রায় মাছ। এর দেহ সরু,ঠোট লম্বাটে এবং ধারালো দাঁতযুক্ত। বাংলাদেশে
যে জাতটি পাওয়া যায় সেটি মিঠা পানির জাত।
এগুলি লম্বায় ২৫ থেকে ৩০ সেন্টিমিটার হয়।
বাংলাদেশ ছাড়াও থাইল্যান্ড ও ভারতেও এই মাছ পাওয়া যায়। তবে রং ও আকারে কিছু পার্থক্য থাকে।
বৈজ্ঞানিক নাম Xenentodon cancila । মাছটিকে
ইংরেজিতে Freshwater garfish বলে। এটি
Belonidae পরিবার (family) এর অন্তর্গত। এটি বাংলাদেশ এর স্থানীয় (Native) মাছ।আমরা এটা সেন্টমার্টিন এলাকা থেকে আজ সন্ধ্যায় ধরেছিলাম।

Timeline photos 20/12/2016

ছবির মত গ্রাম..
১৬ নং সাহেরখালী দইজ্জ্যার কূল,মীরসরাই, চট্রগ্রাম

Want your school to be the top-listed School/college in Chittagong?

Click here to claim your Sponsored Listing.

Videos (show all)

দশ লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি, আর্তনাদ শুধুমাত্র আশ্রয়ের জন্য

Location

Category

Telephone

Website

Address


Mirsarai
Chittagong
4326
Other Education in Chittagong (show all)
CHITTAGONG CANTONMENT PUBLIC COLLEGE CHITTAGONG CANTONMENT PUBLIC COLLEGE
Chittagong Cantonment , Biozid
Chittagong, 4209

ALLAH AMAaY GYAAN DAaO.....This is the most prestegious college in chittagong .....

Innovative Learning Innovative Learning
Jamal Khan
Chittagong

Online tuition for classes 9-12 (National Curriculum). One-to-one care on Higher Mathematics & Physi

Bangla &BD.Studies care. Bangla &BD.Studies care.
Panchlish
Chittagong

A Coaching For O'Level & SSC Bangla & BD.Studies/BGS

Khan Safety Academy Khan Safety Academy
Chittagong

“Teaching the world to be careful is a constructive service worthy of God’s great gift of life.

Target School Target School
Chittagong

Hi,Am here to show you just enlighteing way to be unique in your life.

EDU ECON Acumen Society EDU ECON Acumen Society
EAST DELTA UNIVERSITY
Chittagong, 4209

Provide students with a platform to develop their understanding of economic and business issues

Way To Jannah Academy Way To Jannah Academy
East Rampur, Halishahar
Chittagong

Way To Jannah Academy is an online educational institution. Our ultimate goal is to enter Jannah.

Learn English with Pervez Islam Learn English with Pervez Islam
Chittagong

This page will definitely help you learn English with fun. Let's learn English in the easiest way.

Science & Technology  Bangla Science & Technology Bangla
Dohazari, Chandanaish, Chittagong
Chittagong

It is a very helpful page.you can know many educational contant,news,product etc.For Learning & know

Arfin's Academy Arfin's Academy
Bacha Mia Road, Pahartali
Chittagong, 4202

Subject for students class:- 9-10 (G.math,H.math,Physics,Chemistry,Biology) and for Inter 1st and 2n

Amran's Teaching Home Amran's Teaching Home
Badurtala Jonghi Shah Majar Lane
Chittagong

Amran's Teaching Home is a non profitable educational institute in Chittagong. Owner & Director: Amr

Perfect Coaching Kutubdia Perfect Coaching Kutubdia
Kutubdia, Cox’s Bazar
Chittagong

"If you are not willing to learn,no one can help you.If you are determined to learn,no one can stop u