Faisal

নগন্য একজন ব্যক্তি

Operating as usual

15/08/2023

আব্দুল্লাহ নামে এক গরীব ছেলে কলেজের ভর্তির টাকা জোগাড় করতে পারছিল না। তাই সে বিভিন্ন জিনিস-পত্র এর-ওর দরজায় বিক্রি করা শুরু করে। তার এমনই দুর্ভাগ্য যে একদিন তার একটিও জিনিস বিক্রি হল না। আবার এইদিকে তার প্রচণ্ড ক্ষিদে পেয়ে গেছে। সে ঠিক করে এবার সে যেই দরজায় যাবে তাদের বলবে তারা জিনিস না কিনলেও, তারা যেন তাকে একমুঠো খাবার দেয়।

একটি বাড়ির দরজায় গিয়ে যখন সে টোকা মারল, একজন মেয়ে এসে দরজাটি খুলে দিল। মেয়েটিকে দেখে ছেলেটি ঘাবড়ে গেল, সে খাবার চাওয়ার পরিবর্তে এক গ্লাস জল চেয়ে বসল। মেয়েটি বুঝল ছেলেটি ক্ষুধার্ত। তাই সে একটি বড় গ্লাসে ভর্তি দুধ এবং অন্য গ্লাসে জল নিয়ে আসে। ছেলেটি কিছু না বলে মেয়েটির হাত থেকে দুধের গ্লাসটি নিয়ে ধীরে ধীরে পান করে।

কত টাকা দিব? ছেলেটি মেয়েটিকে জিজ্ঞাসা করল।

টাকা! কিসের টাকা? মেয়েটি প্রত্যুতরে বলল। মা আমাকে শিখিয়েছেন যদি কখনও কারও সেবা করার সুযোগ হয়, তাহলে সেবা করতে হয় এবং বিনিময়ে তার কাছ থেকে কোনো অর্থ নেওয়া যায় না।

এই ঘটনার পর বেশ কয়েক বছর কেটে গেছে। সেই মেয়েটির ভীষণ অসুখ। পাড়ার ডাক্তার কি করবেন ভেবে পাচ্ছেন না। শেষে বাধ্য হয়ে কোনো বড় হসপিটালে মেয়েটিকে ভর্তি করানোর পরামর্শ দেন তিনি।

বাধ্য হয়েই মেয়েটির পরিবার তাকে একটি বড় হসপিটালে ভর্তি করায়। বিশেষজ্ঞ ডাক্তার এ.আই মাহমুদ কে রোগীকে পরীক্ষা করার জন্য ডাকা হল, যখন তাকে মেয়েটির নাম বলা হল তার নিজের অজান্তেই তার চোখে কেমন যেন একটা চমক খেলে গেল।

তিনি তাড়াতাড়ি নিজের কেবিন থেকে বেড়িয়ে সেই মেয়েটির বেডের কাছে গেলেন। মেয়েটিকে দেখে তিনি প্রথমবারেই চিনতে পাডরলেন। ডাক্তার সাহেব ঠিক করলেন, তিনি মেয়েটির জীবন বাঁচানোর জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন। তার সেবায় মেয়েটি কিছুদিনের মধ্যেই সুস্থ হয়ে গেল।

ডাক্তার হসপিটালের অফিসে গিয়ে সেই মেয়েটির বিল নিয়ে নিলেন। সেই বিলের নীচের একটি কোণে কিছু একটা লিখলেন। বিলটি যখন মেয়েটির হাঁতে পৌছাল সে চমকে গেল। কারণ অসুখ থেকে তো সে বেঁচে গেছে কিন্তু এত পরিমান বিল থেকে তার আর বাঁচার কোনো উপায় নেই।

বিলটি দেখতে দেখতে যখন সে বিলের একেবারে নীচের প্রান্তে চলে এসেছে সে দেখল বিলের একটি কোণায় লিখা আছে- “এক গ্লাস দুধের বিনিময়ে এই বিলটি মিটিয়ে দেওয়া হয়েছে।“ নীচে রয়েছে ডাক্তার এ.আই. মাহমুদের হস্তাক্ষর।

খুশিতে নিজের অজান্তেই সেই মেয়েটির চোখ দিয়ে দু-ফোঁটা জল বিলটির উপর পড়ল। মেয়েটি তার দুটি হাত উপড়ে তুলে দিয়ে বলল- “হে আল্লাহ আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ, আপনার ভালোবাসা মানুষের হৃদয় এবং হাতের মাধ্যমে পৃথিবীর সর্বত্র পৌঁছে গেছে।“

Photos from Faisal's post 19/11/2022

হাটহাজারী ইসলামিক একাডেমিতে সপ্তাহিক স্পোকেন ইংলিশ ক্লাসে উপস্থিত শিক্ষার্থীদের স্থিরচিত্র।

10/11/2022

কিছুদিন ধরে কিছু নাস্তিক নামের ইসলাম বিদ্বেষীরা নারীদের পর্দার বিষয় নিয়ে বেশ লাফালাফি করছে।
তাদের অনেককে বলতে শুনা যাচ্ছে, ওমুক তো পর্দা করেছিল, তারপরেও কেন ধর্ষিত হলো। দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করুন, ধর্ষন কমে যাবে। আরে ভাই আমরাও মনে করি দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তনের কথা। কারণ এই কথাতো ইসলাম হাজার বছর পূর্বে বলেছে।

পর্দা আর দৃষ্টিভঙ্গি দুইটি আলাদা বিষয়। পর্দা করলেই ধর্ষিত হবেনা এমন কথা শরীয়তের কোথাও নেই। বরং পর্দা শরীয়তের একটি বিধান, যা নারীর উপর ইসলাম ফরজ করেছে ঠিক যেমনি করেছে পুরুষের উপরেও। লিঙ্গ ভেদে পর্দার বিধান ভিন্ন। নারীকে পর্দা করতে বলা হয়েছে, তার নিজেকে রক্ষা করার জন্য, পক্ষান্তরে পুরুষকেও চোখের, নিজের লজ্জা স্থানের পর্দা/হেফাজত করতে বলা হয়েছে। ইসলাম পরকালে বিশ্বাসী ধর্ম। এখন কেও যদি তার সীমা লঙ্গন করে, তার জন্য পরকালে কঠিন শাস্তির বিধান অনিবার্য।
কিন্তু বাংলাদেশে তথাকথিত কিছু নাস্তিক নামের ইসলাম বিদ্বেষীরা অযথাই পর্দার আইন না জেনে না বুঝে লাফালাফি করে, আর চেষ্ট করে কিভাবে মুসলমান মেয়েদের পর্দা থেকে দূরে সরানো যায়।
আল্লাহ আমাকে, আপনাকে ও সকলকে সঠিক বুঝ দান করুন। আমিন।

04/11/2022

শিশুর বুনিয়াদি শিক্ষা হিসেবে ইসলামিক শিক্ষার গুরুত্ব নিয়ে আমি অধমের ক্ষুদ্র আলোচনা।

01/11/2022

Power of Friendship.
এমন বন্ধু কার কার আছে?

27/10/2022

সাপ আর টাকি মাছের মাঝে খুব বন্ধুত্ব ৷ কিন্তু সাপ ছিলো বেজায় অহংকারী ৷ অহংকারের বশে সে কখনো ডানে, কখনো বাঁয়ে এভাবে হেলেদুলে চলত ৷ ভরা বর্ষায় দুই বন্ধু একদিন ঘুরতে বের হলো ৷ সাপ তার স্বভাব সুলভ রাজকীয় ভঙ্গিতে ডানে বাঁয়ে হেলে দুলে চলতে লাগল ৷ এতে সাপের টাকি মাছের সাথে চলতে সমস্যা হচ্ছিলো ৷

দু’জনের চলার পথের প্রতিবন্ধকতা দূর করার জন্য টাকি মাছ সাপকে বললো, “বন্ধু, তুমি একটু সোজা হয়ে হাঁটলেইতো পার ৷”

সাপ বললো, “বন্ধু, যারে দেখতে নারি তার চলন বাঁকা ৷ তুমি আসলে আমাকে দেখতে পারো না, তাই আমার চলন তোমার কাছে বাঁকা মনে হয় ৷”

টাকি মাছ বললো, “ব্যাপারটা আসলে তা নয় ৷ তোমার বাঁকা চলার কারনে আমি তোমার পাশাপাশি হাঁটতে পারছি না ৷”

সাপ বললো, “বাপ-দাদার চৌদ্দ পুরুষ ধরে আমরা এভাবে চলে আসছি, আর তুমি আসছো আমাকে পথ চলা শেখাতে?”

একেতো টাকি মাছের চেয়ে লম্বা বলে অহংকারে সাপের পা পড়ে না, তার উপর সাপের অন্তর ভরা বিষ ৷ টাকি মাছ যতই তাকে বোঝাতে চায় ততই সে ফোঁস ফোঁস করে ফুলেতে থাকে ৷ তর্ক- বিতর্কের এক পর্যায়ে তারা জেলের জালে ধরা পড়ে ৷ জেলে সাপকে মেরে সোজা করে ঝুলিয়ে রাখে ৷ টাকি মাছ তখন আফসোস করে বললো, “বন্ধু, সেইতো সোজা হইলি, তাও মরনের পর!”

অহংকার আর অন্তর ভরা বিষ নিয়ে যারা মানুষকে বাঁকা পথে পরিচালনা করেন, তারা আশা করি এবার একটু সোজা পথে চলবেন ৷ মরনের পর সোজা হলেও কোন লাভ হবে না।

26/10/2022

অনেক দিন আগে এক স্বার্থপর লোক ছিলো।অন্যের সম্পদে ভাগ বসানোর জন্যে সে সবসময় সুযোগ খুঁজতো। কিন্তু সে তার নিজের সম্পদের এক আনাও কারো সাথে শেয়ার করতে রাজি ছিলো না-তার বন্ধুদের সাথেও না,গরীবদের সাথেও না।

একদিন লোকটি রাস্তায় তার ত্রিশটি স্বর্ণ মুদ্রা হারিয়ে ফেললো।তার এক বন্ধু তার এই স্বর্নমুদ্রা হারানোর কথা শুনলো।সে আবার ছিলো খুব দয়ালু একজন মানুষ।

ঘটনাক্রমে বন্ধুটির মেয়ে রাস্তায় এই ত্রিশটি স্বর্নমদ্রা কুড়িয়ে পেল। সে বাড়িতে ফিরে এই কথা জানালে তার বাবা বলে যে এটা নিশ্চয় তার বন্ধুর হারিয়ে যাওয়া সেই স্বর্নমদ্রা।তাই সে লোকটির কাছে গেল তাকে মুদ্রাগুলো ফিরিয়ে দিতে।

কিন্তু তার স্বার্থপর বন্ধুটি যখন শুনলো যে তার মেয়ে এই মুদ্রা কুড়িয়ে পেয়েছে তখন সে বললো যে ‘আমার মোট চল্লিশটি স্বর্ণ মুদ্রা ছিলো।তোমার মেয়ে নিশ্চয়ই এখান থেকে দশটি মুদ্রা সরিয়েছে।আমাকে তোমার চল্লিশটি মুদ্রাই দিতে হবে।’

একথা শুনে লোকটি রেগে গেল এবং মুদ্রাগুলো সেখানে রেখে চলে গেল।কিন্তু স্বার্থপর বন্ধুটি ছিলো নাছোরবান্দা। সে বিচার নিয়ে আদালতে।

বিচারক তার অভিযোগ মন দিয়ে শুনলো এবং সেই বাবা ও তার মেয়েকে ডেকে পাঠালো।যখন তাদের নিয়ে আসা হলো তখন সে মেয়েটিকে জিজ্ঞেস করলো যে সে কতটি মুদ্রা পেয়েছিলো?মেয়েটি জানালো যে ত্রিশটি স্বর্ণমুদ্রা।বিচারক আবার স্বার্থপর লোকটিকে জিজ্ঞেস করলো সে কতটি মুদ্রা হারিয়েছিল?লোকটি জানালো যে ‘মোট চল্লিশটি স্বণ মুদ্রা’।

বিচারক এবার লোকটিকে জানালো যে মেয়েটি যে মুদ্রা কুড়িয়ে পেয়েছে সেগুলো তার নয় কারন মেয়েটি পেয়েছে ত্রিশটি মুদ্রা কিন্তু সে হারিয়েছে চল্লিশটি মুদ্রা। সে মেয়েটিকে এই মুদ্রাগুলো তার সাথে নিয়ে চলে যেতে বললো এবং জানালো যে যদি কেউ জানায় যে ত্রিশটি মুদ্রা হারিয়েছে তবে তাকে আবার ডেকে পাঠাবে।

বিচারক লোকটিকেও বললো যে কেউ যদি খবর দেয় যে সে চল্লিশটি স্বর্ণমুদ্রা পেয়েছে তবে তাকে ডেকে পাঠানো হবে।তখন সাথে সাথে স্বার্থপর লোকটি স্বীকার করলো যে সে মিথ্যা বলেছিলো এবং আসলে সে ত্রিশটি স্বর্ণমুদ্রাই হারিয়ছে।তাই তাকে সেগুলো ফিরিয়ে দেয়া হোক। কিন্তু বিচারক তার কোনো কথাই শুনলো না।

26/10/2022

হিরোন্দনাথ ঠাকুর

25/10/2022

স্বল্পভাষী কিংবা কম কথা বলা, মানুষের উত্তম গুণগুলোর অন্যতম। কম কথা বলার কারণে মানুষ বেশিরভাগ সময় বিভিন্ন ধরনের বিপদ থেকে বেঁচে যায়। পক্ষান্তরে বেশি কথা বলা কিংবা অহেতুক কাজের কারণে মানুষ বিভিন্ন বিপদে পড়ে। চুপ থাকার মাধ্যমে ইহকালীন কল্যাণ ও পরকালীন মুক্তি পাওয়া যায়। চুপ থাকাটা পরিশ্রমহীন এক উত্তম ইবাদত।

যদি সমাজের হানাহানি, মারামারি ও হিংসা-বিদ্বেষের কারণগুলো খুঁজতে যাই, তাহলে দেখা যাবে, অনর্থক কথা-বার্তা ও কাজে জড়ানোর কারণে এগুলো হয়। অনিয়ন্ত্রিত লাগামহীন কথাবার্তা ঝগড়াঝাটির মূল কারণ। জীবনে যারা অনর্থক কথা-বার্তা ও কাজ থেকে নিজেকে বিরত রেখেছে, তারা পেরেছে সব ধরনের ফেতনা থেকে নিজেকে নিরাপদে রাখতে।

চুপ থাকা মানে দুনিয়াবি কথা থেকে চুপ থাকা। জবান সবসময় আল্লাহর জিকির ও ফিকিরের মধ্যে রাখা। হজরত রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম অনেক বেশি চুপ থাকতেন। মনে রাখতে হবে, মুখ দিয়ে বের হওয়া কথাটা হয় সওয়াবের হবে না হয় গোনাহের হবে। সুতরাং হয়, ভালো কথা বলা, না হলে চুপ থাক। ইরশাদ হচ্ছে, ‘মানুষ যে কথাই উচ্চারণ করে, তা লিপিবদ্ধ করার কাজে সচেতন পাহারাদার (ফেরেশতা) তার নিকটে রয়েছে।’ –সুরা কাহাফ : ১৮

হাদিসে হজরত রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘যে আল্লাহ এবং আখেরাতের ওপর ঈমান রাখে, তার উচিত হলো- ভালো কথা বলা অথবা চুপ থাকা।’ –সহিহ বোখারি

হজরত রাসুলুল্লাহ (সা.) আরও বলেন, ‘যে চুপ থেকেছে, সে নাজাত পেয়েছে।’ –তিরমিজি শরিফ

হাদিসে হজরত রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘যে মানুষ তার জবান ও যৌনাঙ্গের জামিন হতে পারে, আমি তার জন্য জান্নাতের জামিন হবো।’ –সহিহ বোখারি

রাসুলুল্লাহ (সা.) আরও বলেন, ‘যে নিরাপদ থাকতে চায়, তার জন্য চুপ থাকাটা অতিব জরুরি।’ -মুসনাদ আবি ইয়ালা

হাদিসে আরও বলা হয়েছে, ‘জিহবা মানুষের অধিকাংশ পাপের মূল’, ‘চুপ থাকা একটা ইবাদত,’ তোমার ওপর নেকির কথা বলা ছাড়া (বাকি সময়ে) বেশি চুপ থাকা জরুরি করে নাও। কারণ, এটি শয়তানকে তোমার নিকট থেকে দূর করে দেবে আর ইসলামের কাজে তোমার সহায়তাকারী হবে।’ হিকমতের দশটি অংশ আছে, নয়টি অংশ একাকীতে আর একটি অংশ চুপ থাকাতে আছে। -মুসনাদুল ফিরদাউস

হজরত রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, চারটি বিষয় এমন, যা একজন মানুষের নিকট কমই থাকতে পারে, ক. চুপ থাকা যা ইবাদতের খুঁটি, খ. আল্লাহর নিকট মিনতি করা, গ. দুনিয়ার প্রতি অনাসক্তি ও ঘ. অল্পে তুষ্টি।

হজরত সোলায়মান (আ.) বলেন, ‘যদি কথা বলা রুপার মতো হয়, তাহলে চুপ থাকা হচ্ছে- সোনার ন্যায়।’ হজরত আবদুল্লাহ ইবনুল মোবারক (রহ.) বলেন, ‘যদি আল্লাহর কাজ করার কথা বলা রুপার মতো হয়, তাহলে তার নাফরমানিমূলক কথাবার্তা থেকে চুপ থাকা হলো- সোনার ন্যায়।’

হজরত সুফিয়ান সাওরিরী রহ. বলেন, দীর্ঘ চুপ থাকা ইবাদতের ভান্ডার। হজরত সুফিয়ান সাওরি (রহ.) বলেন, ‘ইবাদতের শুরু চুপ থাকা। অতঃপর ইলম হাসিল করা, এরপর তা মনে রাখা, তারপর তার ওপর আমল করা। সবশেষে তা শেয়ার করা।’

ইসলামি স্কলারদের মতে, ‘নারীর সৌন্দর্য লজ্জা আর বুদ্ধিমানের সৌন্দর্য হলো চুপ থাকা।’ ‘চুপ থাকা নেক লোকদের দোয়া ও ভদ্রতার ভিত্তি।’ চুপ থাকার ছোট ফায়দা হলো, ‘নিরাপদে থাকা, আর অযথা কথা বলার ছোট লোকসান হলো- লজ্জিত হওয়া।’

আদবের চারটি ভালো দিক- ১. তওবা, ২. নফসের বিপরীতে কাজ করা, ৩. চুপ থাকা ও ৪. একাকী থাকা।

মুমিনের চারটি ভালো দিক- ১. চুপ থাকা, ২. মিথ্যা বর্জন করা, ৩. পরহেজগারীতে একনিষ্ঠতা থাকা ও ৪. রিয়া থেকে বেঁচে থাকা।

মূলত অসংযত জিহ্বা সকল ইবাদত-বন্দেগি নষ্ট করে দেয়। কেননা চুপ থাকা হলো- উত্তম পরহেজগারী আর এর কারণে গোনাহ কম হয়। এ জন্যই তো বলা হয়, গীবত থেকে বেঁচে থাকার জন্য চুপ থাকা অত্যাবশ্যক।

আমাদের সামজিক জীবন বিশ্লেষণ করলে প্রতীয়মান হয়, কম কথা বলা বা অনর্থক কাজকর্ম থেকে বিরত থাকা দুনিয়া ও আখেরাতের কল্যাণ সাধনে সহায়ক।

25/10/2022

শত্রুও কখনো কখনো বন্ধুর মতো আচরণ করবে, তারমানে এই নয় যে, সে আপনার বন্ধু হয়ে গেছে, সে অবশ্যই তার স্বার্থ উদ্ধার করার জন্যে এই আচরণ করছে।
© Tann xim Hasan

24/10/2022

রূপকথার এক গ্রামের নদীর ধারে একটি ঘর ছিল যার নাম ছিল "এক হাজার আয়নার ঘর"।

সেই গ্রামে সুন্দর হাসি মাখা মুখের একটি ছোট্ট মেয়ে ছিল।মেয়েটি একদিন তার বাবা মা'র মুখে শুনতে পায়, তাদের গ্রামের "আয়না ঘর" এর কথা। এর আগে মেয়েটি কোন দিন ঘর থেকে বের হয় নি। সে প্রকৃতি দেখেনি,দেখেনি কোনও বাস্তবতা।তো সে একদিন চিন্তা করলো যে সে ঐ আয়নার ঘর দেখতে যাবে।কিন্তূ একা একা যেতে সাহস না হওয়াই সে তার সমবয়সী আরেকটি মেয়েকে সাথে নিয়ে গেলো। আয়নার ঘরের সামনে হাজির হয়ে প্রথম মেয়েটি ভাবলো যে আগে সে ঐ ঘরে ঢুকবে আর সব কিছু দেখে এসে বাইরে এলে তবেই ঐ দ্বিতীয় মেয়েটি ঢুকবে।

..

কথামতো প্রথম মেয়েটি ঐ ঘরের ভেতর ঢুকলো।ঘরে ঢোকার সাথে সাথে আশ্চর্য সব রঙ্গিন কারুকাজ দেখে মেয়েটির মুখ আনন্দে ভরে উঠলো।সে আস্তে আস্তে এগোতে এগোতে সেই একহাজার আয়নার ঘরে প্রবেশ করলো।ঘরে ঢুকেই তার চোখ ছানাবড়া। মেয়েটি দেখলো সেখানে ঠিক তারই মতো দেখতে আরও একহাজার মেয়ে হাস্যোজ্জল মুখে তার দিকে তাকিয়ে রয়েছে। সে যা করছে বাকিরাও ঠিক তাই তাই করছে।

মেয়েটি এবারে সব কিছু দেখে অনেক মজা পেয়ে বাইরে চলে এল এবং তার সাথীকে সব ব্যাপারে খুলে বলল এবং বলল যে "এমন সুন্দর জায়গা আমি আগে কখনো দেখেনি।সুযোগ পেলেই এবার থেকে আমি এই জায়গায় চলে আসবো।"

সব কথা শুনে এবারে দ্বিতীয় মেয়েটি কিছুটা ভয় ভয় মন নিয়ে ঘরের ভেতর ঢুকলো। ঘুরতে ঘুরতে আতংকিত মনে সেও এবারে সেই "এক হাজার আয়নার" ঘরে প্রবেশ করলো। ঘরে ঢোকার সাথে সাথে মেয়েটি ভয় পেয়ে উঠলো। ভয়ে মুখ ফ্যাকাশে হয়ে গেলো, আতঙ্কিত হয়ে উঠলো চোখ। সে খেয়াল করলো ঠিক তারই মতো দেখতে আরও এক হাজার মেয়ে আতঙ্কিত আর ভয়ার্ত চোখ তার দিকে তাকিয়ে রয়েছে। মেয়েটি যেই ভয়েতে দুই হাত তুলে বলছে -তোমারা কারা- সাথে সাথে বাকী এক হাজার মেয়েও দুই হাত তুলে ওর দিকে নজর দিচ্ছে। এবারে মেয়েটি প্রচণ্ড ভয় পেয়ে ঘর থেকে দৌড়ে বেরিয়ে এল এবং প্রথম মেয়েটিকে বলল,"শীগগিরই বাড়ি চল,এটা খুব বাজে জায়গা।আমি আর কোনওদিন এই জায়গায় আসব না"

শিক্ষাঃ জীবনটাও একটা আয়না স্বরূপ। আপনি যেভাবে জীবনকে দেখবেন, সেও ঠিক সে ভাবেই আপনার কাছে ধরা দিবে। যারা সাহসিকতা, ভালোবাসা, উৎসাহ, জয় করার অদম্য ইচ্ছা নিয়ে সামনে এগিয়ে যায়, জীবন তাদের কাছে অনেক সহজ ও আনন্দ ময় হয়ে ধরা দেয়। কিন্তু যারা, হতাশা, ভয়, মানসিক অবসাদ নিয়ে সামনে এগুতে চায়, তাদের চোখে সাফল্য যেন মরীচিকা । জীবন হয়ে উঠে ক্লান্তিকর, বিষণ্ণময়। বাস্তবতাকে আপনি যেভাবে দেখবেন, আপনার সামনে তা সেভাবেই ধরা দিবে।

23/10/2022

🇧🇩 have won 2 matches out of 3 T20Is against 🇳🇱.

Who will win on Monday?

Math Time: 24th October 10 AM.

23/10/2022

অনেক বড় এক কোম্পানী হঠাৎ করে ব্যবসায় লোকসান করে বসলো।এক দুপুরে সেই কোম্পানীর কর্মচারীরা বাইরের ক্যান্টিনে লাঞ্চ করে ফেরার সময় অফিসের প্রবেশমুখে একটি নোটিশ দেখতে পেল।নোটিশে লেখা ছিল,

'আমাদের কোম্পানীর লোকসানের জন্য যে ব্যক্তিটি দায়ী যে গতকাল মারা গেছে।সেমিনার রুমে একটি কফিনে তার লাশ রাখা হয়েছে।যে কেউ তা দেখতে চাইলে আমন্ত্রিত।'

একজন সহকর্মীর মত্যুর খবর শুনে প্রথমে লোকেরা দুঃখ পেল।তবে এরপর তারা কৌতুহলী হয়ে উঠলো এই ভেবে যে আসলে কে হতে পারে সেই ব্যক্তি।

তারা সবাই সেমিনার রুমে এসে একত্রিত হলো,সবাই ভাবতে লাগলো,'আসলে কে সেই লোক যে আমাদের সাফল্যের পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল? তবে সে যেই হোক, এখন অন্তত সে আর বেঁচে নেই।

একে একে তারা যখন কফিনের কাছে গেল এবং ভেতরে তাকালো হঠাৎ তারা কেমন যেন বাকশূন্য হয়ে গেল, হতভম্ভ হয়ে গেল। যেন তাদের খুব আপন কারো লাশ সেখানে রাখা ছিল।

কফিনের ভেতর আসলে রাখা ছিল একটা আয়না।যেই ভেতরে তাকিয়েছিলো সে তার নিজে চেহারাই দেখতে পাচ্ছিলো।আয়নার একপাশে একটা কাগজে লেখা ছিল,

তোমার সাফল্যের পথে বাধা দিতে সক্ষম শুধুমাত্র একজনই আছে গোটা পৃথিবীতে, আর সে হচ্ছো 'তুমি' নিজে।

তুমিই সেই একমাত্র ব্যক্তি যে তোমার জীবন পরিবর্তন আনতে পারে, তোমাকে সুখী করতে পারে, তোমাকে সাহায্য করতে পারো,সুখী করতে পারো।তোমার জীবন তখন বদলে যায় না যখন তোমার অফিসের বস বদলায়,যখন তোমার অভিভাবক বদলায়,তোমার বন্ধুরা বদলায়, তোমার জীবন তখনই বদলায় যখন তুমি নিজে বদলাও।তোমার সক্ষমতা সম্পর্কে তোমার নিজের বিশ্বাসের সীমাটা যখন তুমি অতিক্রম করতে পারো, শুধু তখনই তোমার জীবন বদলায়,পূরন হয় জীবনের লক্ষ্য গুলো।। নিজের আলোয় আলোকিত করো চারপাশ।।

19/10/2022

একবার এক ইঁদুর লক্ষ্য করল যে বাড়িতে ইঁদুর মারার ফাঁদ পাতা রয়েছে। সে খুবই ভয় পেল। ফাঁদটি অকেজো করার জন্য সে ওই বাড়িতে থাকা মুরগির সাহায্য চাইল। মুরগি ঘটনা শুনে জবাব দিল-

“ ফাঁদটি আমার কোন ক্ষতি করতে পারবেনা। অতএব আমি এখানে কোন সাহায্য করতে পারবনা”।

মুরগির কাছ থেকে এই উত্তর শুনে ইঁদুর খুব দুঃখিত হল এবং ছাগলের কাছে গিয়ে সাহায্য চাইল। ছাগল ফাঁদের কথা শুনে বলল-

“ওই ফাঁদ বড়দের জন্য নয়। আমি এখানে তোমাকে কোন সাহায্য করতে পারবনা”।

ইঁদুর ছাগলের কাছ থেকে একই উত্তর শুনে দুঃখিত হয়ে গরুর কাছে এলো। সব কথা শুনে গরু বলল-

“ইদুরের ফাঁদ আমার মত বড় প্রাণীর কোন ক্ষতিই করতে পারবেনা। যা আমার কোন ক্ষতি করতে পারবেনা- তাতে আমি সাহায্য করতে পারবনা”।

ইঁদুর শেষ পর্যন্ত নিরাশ হয়ে তার ঘরে ফিরে এলো।

রাতের বেলা বাড়ির কর্ত্রী অন্ধকারের ভিতর বুঝতে পারলেন যে ফাঁদে কিছু একটা ধরা পরেছে। অন্ধকারে ফাঁদের কাছে হাত দিতেই উনি হাতে কামড় খেলেন এবং দেখলেন ফাঁদে ইঁদুরের বদলে সাপ ধরা পরেছে।

তার চিৎকারে কর্তার ঘুম ভাঙল। তাড়াতাড়ি ডাক্তার ডাকা হল। চিকিৎসা শুরু হয়ে গেল। কিন্তু অবস্থা মোটেই ভালো না।

পথ্য হিসেবে ডাক্তার মুরগির সূপ খাওয়াতে বল্লেন। সুপের জন্য কর্তা মুরগিকে জবাই করে দিলেন।

অবস্থা আস্তে আস্তে আরও খারাপ হতে লাগলো। দূরদূরান্ত থেকে আরও অনেকে আত্মীয় স্বজন আসতে লাগলো। বাধ্য হয়ে কর্তা ছাগলকে জবাই করলেন তাদের আপ্যায়ন করার জন্য।

আরও ভালো চিকিৎসার জন্য অনেক টাকার দরকার হতে লাগলো। অবশেষে বাড়ির কর্তা তাদের গরুটিকে কসাইখানায় বিক্রি করে দিল।

একসময় বাড়ির কর্ত্রী সুস্থ হয়ে উঠল। আর এই সমস্ত কিছু ইঁদুরটি তার ছোট্ট ঘর থেকে পর্যবেক্ষণ করল।

সংগৃহীত

18/10/2022

ছোট্ট এক ছেলে ছিলো প্রচন্ড রাগী। তাই দেখে বাবা তাকে একটা পেরেক ভর্তি ব্যাগ দিল এবং বললো যে, যতবার তুমি রেগে যাবে ততবার একটা করে পেরেক আমাদের বাগানের কাঠের বেড়াতে লাগিয়ে আসবে। প্রথমদিনেই ছেলেটিকে বাগানে গিয়ে ৩৭ টি পেরেক মারতে হলো। ....

পরের কয়েক সপ্তাহে ছেলেটি তার রাগকে কিছুটা নিয়ন্ত্রনে আনতে পারে তাই প্রতিদিন কাঠে নতুন পেরেকের সংখ্যাও ধীরে ধীরে কমে এলো। সে বুঝতে পারলো হাতুড়ী দিয়ে কাঠ বেড়ায় পেরেক বসানোর চেয়ে তার রাগকে নিয়ন্ত্রন করা অনেক বেশি সহজ।

শেষ পর্যন্ত সেই দিনটি এলো যেদিন তাকে একটি পেরেকও মারতে হলো না। সে তার বাবাকে এই কথা জানালো। তারা বাবা তাকে বললো এখন তুমি যেসব দিনে তোমার রাগকে পুরোপুরি নিয়ন্ত্রন করতে পারবে....

সেসব দিনে একটি একটি করে পেরেক খুলে ফেলো। অনেক দিন চলে গেল এবং ছেলেটি একদিন তার বাবাকে জানালো যে সব পেরেকই সে খুলে ফেলতে সক্ষম হয়েছে।তার বাবা এবার তাকে নিয়ে বাগানে গেল এবং কাঠের বেড়াটি দেখিয়ে বললো..

'তুমি খুব ভাল ভাবে তোমার কাজ সম্পন্ন করেছো,এখন তুমি তোমার রাগকে নিয়ন্ত্রন করতে পারো কিন্তু দেখো, প্রতিটা কাঠে পেরেকের গর্ত গুলো এখনো রয়ে গিয়েছে। কাঠের বেড়াটি কখনো আগের অবস্থায় ফিরে যাবে না।...

যখন তুমি কাউকে রেগে গিয়ে কিছু বলো তখন তার মনে ঠিক এমন একটা আচড় পরে যায়। তাই নিজের রাগতে নিয়ন্ত্রন করতে শেখো।মানসিক ক্ষত অনেক সময় শারীরিক ক্ষতের চেয়েও অনেক বেশি ভয়ংকর......
সংগৃহীত

17/10/2022

মৃত্যু শয্যায় মহাবীর আলেকজান্ডার তার

সেনাপতিদের ডেকে বলেছিলেন,'আমার মৃত্যুর

পর আমার তিনটা ইচ্ছা তোমরা পূরণ করবে।

আমার প্রথম অভিপ্রায় হচ্ছে,শুধু আমার

চিকিৎসকরাই আমার কফিন বহন করবেন।

আমার ২য় অভিপ্রায় হচ্ছে, আমার কফিন যে পথ

দিয়ে গোরস্থানে যাবে সেই পথে আমার

অর্জিত সোনা ও রুপা ছড়িয়ে থাকবে |

আর শেষ অভিপ্রায় হচ্ছে, কফিন বহনের সময়

আমার দুইহাত কফিনের

বাইরে ঝুলে থাকবে।'

তার সেনাপতি তখন তাঁকে এই বিচিত্র

অভিপ্রায় কেন করছেন প্রশ্ন করলেন। দীর্ঘ

শ্বাস গ্রহণ করে আলেকজান্ডার বললেন,

'আমি দুনিয়ার

সামনে তিনটি শিক্ষা রেখে যেতে চাই।

*আমার চিকিৎসকদের কফিন বহন করতে এই

কারনে বলেছি যে যাতে লোকে অনুধাবন

করতে পারে যে চিকিৎসকেরা কোন

মানুষকে সারিয়ে তুলতে পারে না।

তারা ক্ষমতাহীন আর মৃত্যুর

থাবা থেকে রক্ষা করতে অক্ষম।'

*'গোরস্হানের পথে সোনা-

দানা ছড়িয়ে রাখতে বলেছি মানুষকে এটা বোঝানোর জন্য যে

সোনা-দানার একটা কণাও আমার

সঙ্গে যাবে না।এগুলো পাওয়ার

জন্য সারাটা জীবন ব্যয় করেছি কিন্তু নিজের

সঙ্গে কিছুই নিয়ে যেতে পারছি না।মানুষ

বুঝুক এসবের পেছনে ছোটা সময়ের অপচয়।'

* 'কফিনের বাইরে আমার হাত

ছড়িয়ে রাখতে বলেছি মানুষকে এটা জানাতে

খালি হাতেই পৃথিবী থেকে চলে যাচ্ছি. . . .

16/10/2022

শুভকামনা টিম টাইগার্স❤️❤️❤️

26/08/2022

গ্রামীণ রাস্তা গুলো এখন অনেক সৌন্দর্য বহন করে। যারা ভ্রমন পিপাসু তাদের জন্য দারুন একটি স্থান। চট্টগ্রাম জেলার রাউজান উপজেলার হলদিয়া গ্রাম।

01/07/2022

এবার কোরবানির হাঁটে চড়া দামে মিলবে হিরো আলম

30/06/2022

মুফতি মমতাজুল বেগম আযহারী।
ওয়াজটি মনযোগ সহকারে শুনে আমল করুন।

29/06/2022

সবুজে হারিয়ে যেতে চাই..

09/06/2022

যখন ইসলামের সার্বভৌমত্বে আঘাত আসে, নবী (দঃ) এর সম্মানের উপর আঘাত করা হয় তখন দেখা যায় বিভিন্ন ইসলামি দলগুলোই শুধু আন্দোলনের ডাক দেয়। স্কুল/ কলেজ/ বিশ্ব বিদ্যালয়ে পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা কিংবা কোন রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকে সাধারণত কোন আন্দোলনতো দূরের কথা, কোন বিবৃতিও দিতে দেখা যায় না।
স্কুল/কলেজ/বিশ্ববিদ্যালয় কিংবা রাজনৈতিক দলগুলোতে কি মুসলমানের সন্তান নেই?
⏭️এই উদাসীনতার দায়ভার কার?
⏭️আলেমদের নয় কি?
⏭️ইসলামী সংগঠনগুলোর নয় কি?
আজ যদি আলেমরা, একে অন্যের বিরুদ্ধে না লেগে, ওয়াজ মাহফিলে তামাশা না করে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঠিকভাবে মোটিভেট করতে পারতো, তাহলে হয়তো ব্যাপারটা ভিন্ন হতে পারতো।
কোন বাতিলের বাচ্চার সাহস হতো না, আমাদের প্রাণের স্পন্দন হুজুর (দঃ) কে নিয়ে কোন বাজে মন্তব্য করার। ইসলাম নিয়ে কটূক্তি করার পূর্বে হাজার বার ভাবতে হতো, মুসলমানের বাচ্চারা প্রতিক্রিয়া দেখাবে। এমনকি গর্দানও যেতে পারে। আজ আমরা ছিন্ন বিচ্ছিন্ন হওয়ার কারণে কোন কিছুই হাসিল হচ্ছে না।

সব দল মত নির্বিশেষে একটি ব্যানারে আন্দোলনের ডাক আসুক, যেখানে থাকবে সব আকিদা-মাসলকের অনুসারীরা, যেখানে থাকবে স্কুল/কলেজ/বিশ্ববিদ্যালয় সহ সকল রাজনৈতিক দলের অনুসারীরা। ✊✊✊
সেই সোনালী দিনের অপেক্ষায়।
© Faisal

05/06/2022

চট্টগ্রামের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সকলকে অনুরোধ করবো চট্টগ্রাম মেডিকেলে অবস্থান করার জন্য। সীতাকুণ্ডের কন্টেইনার ডিপোতে ভয়াবহ বিস্ফোরণ হয়েছে। হতাহতের সংখ্যা অনেক, প্রচুর পরিমাণ রক্তের প্রয়োজন হচ্ছে।

দয়া করে যে যেখানে আছেন সাধ্যের মধ্যে থাকলে এক্ষুনি ছুটে যান, আপনার এক ব্যাগ রক্ত হয়তো বাঁচিয়ে দিতে পারে একটি প্রাণ। আপনার পরিচিত রক্তযোদ্ধা বন্ধুদেরও আসার জন্য অনুরোধ করুন।

মানুষ মানুষের জন্য। 🙏

10/05/2022

স্মৃতিময় বিটিভি। যাদের শৈশব বিটিভির সাথে কেটেছে তাদের জন্য। অসাধারণ এক দৃশ্যপট।

06/05/2022
02/05/2022

হাটহাজারী কাচারী সড়ক। ঈদের বাজার। শেষ দিন

04/04/2022

প্রাচীন কালের বাংলাদেশ

09/08/2021

অস্ট্রেলিয়া বদের শেষ মুহূর্ত ❤️❤️❤️
অভিনন্দন বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ৪-১ সিরিজ জয়।

05/08/2021

১১৫ বছরের বয়স্ক নানা।
মাওলানা মুহাম্মদ নুরুল আমিন।
নানা এখনো ৫ ওয়াক্ত নামায জামায়াত সহকারে আদায় করেন। এ ধরনের আল্লাহর বান্দাগন এখনো বেঁচে আছেন বলে, আল্লাহর নেয়ামত, বরকত পৃথিবীতে বিরাজমান আছে।
নানার জন্য সকলে দোয়া করবেন।
আল্লাহ নানাকে হায়াতে তৈয়্যবা দান করুন। আমিন।

04/08/2021

মাশাআল্লাহ, অতি চমৎকার

02/08/2021

HSC-21
Assignment
Accounting

26/07/2021

HSC 2021 এর এসাইনমেন্টের কভার পেইজ

26/07/2021

এ্যাসাইনমেন্ট নোটিশ
এস.এস.সি- ২০২১ খ্রি. পরীক্ষার্থীদের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক প্রদত্ত (১৮/০৭/২০২১ খ্রি.) এ্যাসইনমেন্ট প্রস্তুত করে বাসায় রাখতে হবে এবং জমা দানের তারিখ আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে জানানো হবে। এস্যাইনমেন্ট জমাদান প্রত্যেক পরীক্ষার্থীর (এস.এস.সি-২০২১) জন্য বাধ্যতামূলক। কোন পরীক্ষার্থীর এ্যাসাইনমেন্ট পাওয়া না গেলে/জমা না দিলে তার ফলাফল নির্ধারণে জটিলতা সৃষ্ঠি হতে পারে। জটিলতার দায়ভার বিদ্যালয় কোনভাবেই গ্রহণ করবে না।
এতদসঙ্গে কভার পৃষ্ঠার নমূনা দেওয়া হল।

প্রধান শিক্ষক

16/05/2021

One Man Army.
আপনি কি কখনো বুলেটের জবাব পাথর দিয়ে দিতে দেখেছেন??

05/05/2021

কণ্ঠ তেমন ভালো না। রাসুলুল্লাহ (দঃ) এর মহব্বতে গাওয়ার ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা।

Want your school to be the top-listed School/college in Chittagong?

Click here to claim your Sponsored Listing.

Videos (show all)

মুফতি মমতাজুল বেগম আযহারী।ওয়াজটি মনযোগ সহকারে শুনে আমল করুন।
প্রাচীন কালের বাংলাদেশ
হিসাব বিজ্ঞান এ্যাসাইনমেন্ট HSC
Basic English Grammar (Part-1) নতুনদের জন্য
মোটরবাইক ড্রাইভিং লাইসেন্সের আবেদন করার আগে দেখে নিন ড্রাইভিং পরীক্ষা পদ্ধতি। #BRTA

Location

Category

Telephone

Address

Hathazari
Chittagong
4330
Other Tutors/Teachers in Chittagong (show all)
Jahid Sir Jahid Sir
New Market
Chittagong

Killai aisshus de??? :P

Innovative Learning Innovative Learning
Jamal Khan
Chittagong

Online tuition for classes 9-12 (National Curriculum). One-to-one care on Higher Mathematics & Physics.

A Passage to Public Varsity A Passage to Public Varsity
Chittagong

An English Course Provider Specialized Private Program for Varsity & Medical Admission & HSC English

Trusted Home Tutor Provider Trusted Home Tutor Provider
Chittagong, G.P.O4000

অভিজ্ঞ প্রাইভেট টিচার বাসায় পেতে, যোগাযোগ :01811-536844

Tutor School Tutor School
Chittagong, 4000

We provide the best and expert home tutor from CU, CMC, CUET, NU in Chittagong city. Please let us k

Rayhan Rayhan
Chittagong

University admission

Majid's Math & Accounting Majid's Math & Accounting
Chittagong
Chittagong

It is an important medium for learning

Korean_Hangul Korean_Hangul
Chittagong

It's a Korean language page As there r so many kdrama fans in world wide and they r much fascinated

Sitakunda Online School Sitakunda Online School
Chittagong, 4310

This page will play an important role in Secondary Education in Sitakunda Upazila. All the students

GRE IELTS TOEFL GMAT Explainer GRE IELTS TOEFL GMAT Explainer
Chittagong, 4203

EASY GRE IELTS TOEFL GMAT

PiRates Math with Abdullah sir PiRates Math with Abdullah sir
Campus 1: B. T. COACHING, Spondon Office, Beside South Asian School, Chatteshawri Road, Chawkbazar , Campus 2: Halishohor, Agrabad
Chittagong

Abdullah sir সুদীর্ঘ ১২ বছরের অভিজ্ঞতা

Bangladesh Online Madrasah Bangladesh Online Madrasah
Chadgoan
Chittagong

মাদরাসার দাখিল/আলিমের নির্ভরযোগ্য প্লাটফর্ম 😊 সফলতা কী? যাতে জাহান্নামে না দিয়ে জান্নাত দেওয়া হয়।